জনগণ জাতীয় ঐক্য চায় : ড. কামাল হোসেন


344 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
জনগণ জাতীয় ঐক্য চায় : ড. কামাল হোসেন
নভেম্বর ২১, ২০১৫ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আশরাফুল আলম :
গণফোরাম সভাপতি, সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন,  জাতীয় ঐক্যের কারণে স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বসহ সকল জাতীয় অর্জন সম্ভব হয়েছে। দেশের জনগনের মধ্য থেকে আবারও জাতীয় ঐক্যের দাবি উঠেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ১৯৭৫ এ জাতীয় নেতৃবৃন্দকে হারিয়েও জনগন হতাশ হয়নি, তারা হতাশ  হবেও না । সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে জনগনকে রুখে দাঁড়াতে হবে।

ড. কামাল বলেন, দেশে সুস্থ রাজনীতি ফিরিয়ে আনা, নিরপেক্ষ বিচার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, স্বাাধীন ও অবাধ-নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন, অসাম্প্রদায়িক রাজনীতিসহ হাজার বছরের সভ্যতা ফিরিয়ে আনতে হবে। মৌলিক অধিকার ক্ষুন্ন হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে জনগনকে ঐক্যবন্ধ ভূমিকা পালন করতে হবে। পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনকে নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালনের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, দূর্নীতিমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করতে গণআন্দোলনের বিকল্প নেই।

শনিবার সকালে সাতক্ষীরায় গনফোরামের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তৃব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা আহবায়ক এম. জামান খানের সভাপতিত্বে  আয়োজিত সম্মেলনে  তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সুস্থ ধারার গনতন্ত্র কায়েমের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরও আমরা পিছিয়ে থাকতে পারি না। তরুন সমাজকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে ড. কামাল বলেন, ভাষা আন্দোলন, যুক্তফ্রন্ট আন্দোলন, ছাত্র আন্দোলন, গনআন্দোলন সকল ক্ষেত্রেই তরুনরা অগ্রসর হয়েছে। জনগনই ক্ষমতার মালিক মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা নির্ভেজাল গনতন্ত্র, নিরপেক্ষ নির্বাচন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন চায়। এসব বিষয়ে জনগন দ্বিমত প্রকাশ করে না বলেও জানান তিনি। সংকীর্ন স্বার্থে আমরা জাতীয় মূলনীতি বিসর্জন দিতে পারি না। তিনি সুস্থ ধারার রাজনীতি এবং প্রকৃত গনতন্ত্রের জন্য কাজ করার আহবান জানান।

সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় নেতা এ্যাড. সুব্রত চৌধুরী, এ্যাড. আফম শফিকুল্লাহ, মুস্তাক আহমেদ, এ্যাড. সেলিম আকবর, ফজলুল করিম কাউসার, আলী নূর খান বাবুল, কাজী রবিউল ইসলাম, এনামুল হক, মামুনুর রহমান প্রমুখ।

সম্মেলন শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সময়ের তুখোর ইসলামী ছাত্র শিবির নেতা প্রভাষক মামুনুর রহমান মামুনকে সভাপতি  ও আলী নূর খান বাবুলকে সাধারণ সম্পাদক করে সাতক্ষীরা জেলা গণফোরামের কমিটি ঘোষনা করা হয়।