জন্মের আগেই মাকে হারাল শিশুটি


383 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
জন্মের আগেই মাকে হারাল শিশুটি
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হক :
জন্মের আগেই মাকে হারাল শিশুটি ! গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯ টায় ভূমিষ্ঠ শিশুটি পৃথিবীর আলো দেখলেও গর্ভধারিণী মাকে জীবিত দেখতে পেল না। আর কখনও মায়ের মুখখানা দেখতেও পাবেনা সে। গর্ভধারিণী মা শিশুটিকে জম্ম দেয়ার পরপরি না ফেরার দেশে চলে গেছে। মমতাময়ী মায়ের আদর-¯েœহ-ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত হলো শিশুটি। ভূল চিকিৎসায় বৃহস্পতিবার রাতেই মা সুমনা খাতুনের মৃত্যু হয়েছে। সিজার করার জন্য অপারেশন টেবিলে নেয়ার পর তার আর জ্ঞান ফিরেনি। বর্তমানে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎিসাধীর রয়েছে সদ্য জম্ম নেয়া ওই শিশুটি।

সুমনা প্রায় ১০ মাস তিলে তিলে ব্যাথা যন্ত্রনা নিয়ে গর্ভে ধারণ করলেও এক নজরের জন্যও রাজার ধন শিশুটিকে দেখতে পায়নি প্রিয়তম মা। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘঠেছে সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোলস্থ একতা হাসপাতালে। সিজার অপারেশনে ডাঃ দেবদুলাল সরকার ও ডা. সুদীপ্ত শেখর দেবনাথের হাতে প্রাণ যাওয়া কুড়ি বছর বয়সী গৃহবধু সুমনা খাতুনের এই ছোট্র শিশুটির ভাগ্যে কি রয়েছে তা কি কেউ বলতে পারবে ?

তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বকচর গ্রামের আব্দুস সাত্তার মোল্লার কণ্যা সুমনার সাথে সদরের রেউই’র গ্রামের লিটন হোসেনের সাথে ৩ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। সুমনা গর্ভবতী হওয়ায় সে বকচর গ্রামে থাকত। বৃহস্পতিবার প্রসবযন্ত্রনায় অসুস্থ্য হলে তাকে বৃহস্পতিবার রাত ৯ টায় খড়িয়াডাঙ্গার হরিদাসের মালিকানাধীন (সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের সামনে ) একতা হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার ৫ মিনিটের মধ্যে মোটা টাকায় সিজারের অপারেশনের জন্য চুক্তিও হয়। মিনিট দশেক পরে তড়িঘড়ি করে সুমনার অপারেশন করেন সাতক্ষীরার বিতর্কিত ডাক্তার ডাঃ দেবদুলাল সরকার। এ সময় তাকে অজ্ঞান করান ডা. সুদীপ্ত শেখর দেবনাথ।

সূত্র আরও জানায়, আপরেশনের টেবিলেই মৃত্যু হয় সুমনার। এ সময় শিশুটিকে ভূমিষ্ঠ করানো হয়। শিশুটি ভূমিষ্ঠ হওয়ার আগেই এতিম হয়ে যায়। মা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মমতাময়ী নারী। শত ব্যাথা, শত কথার মাঝেও মা সন্তানকে আগলে ধরে রাখে। যে শিশু সন্তানের জন্য ১০ মাস ব্যাথ্যা-যন্ত্রনা ভোগ করা হলো সেই সন্তানকে না দেখেই চিরবিদায় নিতে হলো মা সুমনাকে। তার একমাত্র ছেলে সন্তানটিও শৈশব- কৈশরসহ সারা জীবন বেড়ে উঠবে মায়ের আদর-সোহাগ বঞ্চিত হয়ে।

শিশুটির মামা হোসাইন আলী ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটমককে জানান, মা হারা শিশুটি বর্তমানে সুস্থ্য আছে। তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের শিশু ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। ছোট্র শিশুটির জন্য তার হতভাগা পিতা,মামাসহ স্বজনেরা সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

এমন ভূল চিকিৎসায় যেন আর কারও শিশু মা হারা না হয়, সেই কামনা তাদের। একই সাথে তারা বিতর্কতি চিকিৎসক দেবদুলাল সরকারসহ জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছে।