‘জলবায়ু ট্রাস্টের অর্থায়ন নিয়ে অপপ্রচার বন্ধ করতে হবে’


384 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘জলবায়ু ট্রাস্টের অর্থায়ন নিয়ে অপপ্রচার বন্ধ করতে হবে’
জুলাই ৩, ২০১৫ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

 

ভয়েস ডেস্ক :
জলবায়ু ট্রাস্টের অর্থায়ন নিয় যে অপপ্রচার রয়েছে তা বন্ধ না করতে পারলে জলবায়ু মোকাবেলায় সঠিক পদক্ষেপ নিলে তা ফলপ্রসু হবে না বলে মন্তব্য করেছেন পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ।

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে পিকেএসএফ মিলনায়তনে ‘কমিউনিটি ক্লাইমেট চেঞ্জ প্রজেক্টের’র (সিসিসিপি) আওতায় ‘জলবায়ু অর্থায়ন’ শীর্ষক কর্মশালায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

পিকেএসএফ চেয়ারম্যান বলেন, জলবায়ু ট্রাস্টে অর্থায়ন নিয়ে দেশীয় কয়েকটি প্রতিষ্ঠান কারও এজেন্ট হিসেবে অপপ্রচার চালিয়ে সবাইকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। তাদের চিহ্নিত ও প্রতিহত করার মাধ্যমে এ ইস্যুতে এখনই সচেতনতা তৈরি করতে না পারলে বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে পিছিয়ে যাবে।

কাজী খলীকুজ্জমান আরও বলেন, পিকেএসএফের ১০ টি প্রকল্পের বিষয়ে টিআইবি অস্তিত্বহীনতার অভিযোগ তোলে। কিন্তু টিআইবির এ অবিযোগ ভিত্তিহীন। এ প্রকল্পগুলো সফলভাবে চলমান উল্লেখ করে তিনি প্রশ্ন তোলেন টিআইবি কার স্বার্থে এসব ভিত্তিহীন গবেষণা করছে?

অনুষ্ঠানে পিকেএসএফ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল করিম বলেন,জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিঘাত সফলভাবে মোকাবেলা করতে জলবায়ু অর্থায়ন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দেশীয়,আন্তর্জাতিক অর্থায়ন ও কার্বন মার্কেট জলবায়ু অর্থায়নের অন্যতম প্রধান উৎস।

সেমিনারে কর্মশালায় ‘জলবায়ু অর্থায়নে আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জলবায়ু পরিবর্তন বিশেষজ্ঞ ড. ফজলে রাব্বি ছাদেক আহমাদ।

সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ’র সহকারী ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলুল কাদের, বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ ট্রাস্টের সচিব রাশেদুল ইসলাম এবং বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. নুরুল কাদির প্রমুখ