জাপানি সমুদ্রসীমায় ঢুকেছে কামানবাহী চীনা জাহাজ


266 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
জাপানি সমুদ্রসীমায় ঢুকেছে কামানবাহী চীনা জাহাজ
ডিসেম্বর ২৭, ২০১৫ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
পূর্ব চীন সাগরের বিতর্কিত দ্বীপপুঞ্জের পানিসীমায় প্রথমবারের মতো ঢুকেছে কামানবাহী চীনা জাহাজ। গতকাল এ ঘটনা ঘটে বলে  বলে জাপানের উপকূলরক্ষী বাহিনী দাবি করেছে। খবর এবিসি অনলাইনের

বিতর্কিত পানিসীমায় ঢুকেছিল তিনটি চীনা জাহাজ। তার মধ্যে একটিতে কামানের নল দেখা গেছে বলে দাবি করা হয়েছে। এ সব জাহাজ বিতর্কিত পানিসীমার মধ্যে প্রায় এক ঘণ্টা ১০ মিনিট কাটানোর পর ওই এলাকা ছেড়ে চলে যায়।

মঙ্গলবার প্রথম ওই এলাকার কাছাকাছি এ জাহাজকে দেখা গেছে। এটি সে সময়ে ঘণ্টায় ২৯ কিলোমিটার বেগে চলছিল। সে সময়ে চীন বলেছিল, সাধারণভাবে জাহাজে যে সব সরঞ্জাম থাকেই এতে তাই রয়েছে। এ ছাড়া, চীনা পানিসীমায় স্বাভাবিক তৎপরতায় সংশ্লিষ্ট রয়েছে এটি।

বিতর্কিত পানিসীমার কাছ দিয়ে অনেক সময়ই চীনা জাহাজ অতিক্রম করে কিন্তু ওসব জাহাজে কামান বা অস্ত্র থাকে না বলে জাপানের উপকূলরক্ষী বাহিনী জানিয়েছে।

পূর্ব চীন সাগরের দিয়াইউ বা সেনকাকু দ্বীপ নিয়ে চীন ও জাপানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। জাপান ২০১২ সালে দ্বীপটিকে জাতীয়করণ করার পর থেকে প্রায়ই চীনা জাহাজ ও বিমান বিতর্কিত অঞ্চল দিয়ে টহল দেয়। চীনও ওই দ্বীপের মালিকানা দাবি করে আসছে। দিয়াইউ বা সেনকাকু দ্বীপের সার্বভৌমত্ব ছাড়ের বিষয়ে কোনো আপোষ করবে না বলে এর আগে ঘোষণা করেছে টোকিও এবং বেইজিং।

এদিকে, সেনকাকু দ্বীপের আরো বেশি সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে জাপান সরকার পরবর্তী অর্থ বছরের জন্য রেকর্ড  ৪১.৮ বিলিয়ন ডলারের প্রতিরক্ষা বাজেট অনুমোদন দিয়েছে যা চলতি অর্থ বছরের চেয়ে ১.৫ শতাংশ বেশি। প্রতিরক্ষা বাজেট বাড়ানোর ঘোষণায় চীন বরাবরের মতোই তার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কারণ দেশটির মতে এতে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা নষ্ট হবে।

উল্লেখ্য, চীনের উপকূল থেকে সেনকাকু দ্বীপটি ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে বিতর্কিত দ্বীপপুঞ্জকে ঘিরে আকাশ প্রতিরক্ষা জোন গঠন করে বেইজিং।