সাতক্ষীরায় জামায়াত নেতার নির্যাতন : প্রতিকার চেয়ে সংখ্যালঘু পরিবারের থানায় অভিযোগ


164 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরায় জামায়াত নেতার নির্যাতন : প্রতিকার চেয়ে সংখ্যালঘু পরিবারের থানায় অভিযোগ
এপ্রিল ২১, ২০২১ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরা শহরের পারকুখরালী জেলে পল্লীর একটি অসহায় জেলে পরিবার জামায়াতের নেতাদের নির্যাতনের শিকার হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। নির্যাতনের শিকার পরিবারটি আশংকা করছে যে কোন মুহুর্তে জামায়াত শিবিরের ক্যাডারদের দ্বারা তারা আক্রান্ত হতে পারে। এব্যাপারে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে নির্যাতনের শিকার পরিবারটি। সুবিচার চেয়ে পরিবারটি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি, ডিআইজি, পুলিশ সুপার, র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরা ক্যাম্প, উপপরিচালক এনএসআই, সাতক্ষীরা, অফিসার্স ইনচার্জ, ডিজিএইআই, সাতক্ষীরা, পরিচালক স্বদেশ, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ ও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে লিখিত আবেদন করেছেন বলে নির্যাতিত পরিবারটি জানিয়েছেন।

সাতক্ষীরা শহরের পারকুখালী জেলে পাড়ার মৃত্যু ফুলচাঁদ বৈদ্যের ছেলে রতন বৈদ্যর (৯০) লিখিত অভিযোগে জানা যায়, একই গ্রামের মৃত হামিজ উদ্দীন সরদারের দুইপুত্র জামায়াতের নেতা আবু সালেহ ও আবু সাঈদ দীর্ঘ ২০ বছর ধরে তাদের উপর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। রতন বৈদ্যের বশত ভিটার মাত্র ১৫ শতক জমি দখল করে নেওয়ার জন্য তাদের উপর বিভিন্ন সময় নির্যাতন চালানো হচ্ছে। রতন বৈদ্য বলেন জামায়াত শিবিরের বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসে আমাদের হুমকি দিয়ে জমি দখল করতে যায়। আবু সালেক ও আবু সাঈদ আমাদের ভারতে চলে যেতে বলে না হলে গুম খুন করার হুমকি দেয়। যার কারনে রতন বৈদ্য সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। যার নং- ২৩৯। এরপরও থেমে নেই জামায়াতের ভ্রাত্বিদ্বয়। জমি জমা সংক্রান্ত মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে আমাদের হয়রানি করছে।

এ ব্যাপারে একই গ্রামের মৃত্যু জহুর আলীর ছেলে কুরবান আলী ও আব্দুল খালেকের ছেলে রফিকুল ইসলাম জানায়, জেলে পল্লীর অসহায় রতন বৈদ্য দীর্ঘদিন ধরে জামায়াত নেতা আবু সালেক ও আবু সাঈদের অত্যারে অতীষ্ট হচ্ছে। ১৫ শতক বাস্তু ভিটার জমি জোর পূর্বক দখল করার জন্য পরিবারটির উপর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। রফিকুল ইসলাম জানায়, আমি অসহায় হিন্দু পরিবারটির পক্ষে কথা বলায় জামায়াত নেতা আবু সাঈদ ও আবু সালেহ আমাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। আমি সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি।

যার নং- ১৭২২। নির্যাতন শিকার রতন বৈদ্য জানায় আমাদের বিরুদ্ধে জমি সংক্রান্ত একটি মিথ্যা মামলা সদর থানায় করে আমাদের হয়রানি করছে আবু সালেক ও আবু সাঈদ। তিনি আরো জানান, আমার দুটি পুত্র সন্তানের মধ্যে একটি বিকলঙ্গ। আমার বড় ছেলে, বৌ মা, আমার স্ত্রী কিষাণ দিয়ে সংসার চালায়। কোন দিন কাজ না হলে অনাহারে দিন যাপন করি। বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমি সুবিচার চেয়ে আবেদন করেছি। যদি কোন বিচার না পায় তাহলে পরিবারটি নিয়ে আত্মহুতি দেবো। তবুও আমার জন্মভূমি বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে যাবো না। এব্যাপারে আবু সালেহ ও আবু সাঈদের সাথে যোগাযোগের চেস্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।