জাসদ সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভা


181 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
জাসদ সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভা
আগস্ট ২২, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

‘স্বাস্থ্য খাতের সীমাহীন দুর্নীতি বন্ধ, সাতক্ষীরা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন ও উপকূলে টেকসই ভেড়ী বাঁধ নির্মান এবং বিচার বর্হিভুত হত্যা বন্ধ করুন’

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ::

স্বাস্থ্য খাতের সীমাহীন দুর্নীতি বন্ধ, সাতক্ষীরা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন, উপকূলে টেকসই ভেড়ী বাঁধ নির্মান ও বিচার বর্হিভুত হত্যা বন্ধের দাবীতে জাসদ সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাসদ সাতক্ষীরা জেলার সভাপতি শেখ ওবায়দুস সুলতান বাবলু। প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রিয় কমিটির উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা কাজী রিয়াজ। জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মো. জাকির হোসেন লস্কর শেলীর পরিচালনায় আলোচনায় অংশ নেন দৈনিক দক্ষিনের মশাল সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী, সাংগঠনিক সম্পাদক আমির হোসেন খান চৌধুরী, শ্যামনগর উপজেলা সাধারন সম্পাদক এস এম কামরুজ্জামান, তালা উপজেলা সাধারন সম্পাদক ফারুক হোসেন, আশাশুনি উপজেলা সাধারন সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম ও জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল আলিম প্রমুখ।
সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা ভাইরাসের এই সংকট কালে স্বাস্থ্য বিভাগের সীমাহীন দুর্নীতির খরর দেশ বাসীকে উৎবিগ্ন করে তুলেছে। এমনিতেই সাতক্ষীরার স্বাস্থ্য বিভাগের দুনীতি ও চিকিৎসা নিয়ে সাতক্ষীরার মানুষরা উদ্বিগ্ন ছিল, তার মধ্যে কেন্দ্রিয়ভাবে বিভিন্ন অপকর্মের প্রকাশিত চিত্র প্রমানিত করে স্বাস্থ্য বিভাগের সকল স্তরে দুনীতির শিকড় বাসা গেড়ে বসেছে। এ দায় থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রি বাদ পড়তে পারেন না। সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে এ দায় কাধে নিয়ে অবিলম্বে তার পদত্যাগ করা উচিত।
সভায় বক্তরা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারনে সাতক্ষীরার উপক’লের মানুষের জীবন মারাত্মক ঝুকিযুক্ত হয়ে পড়েছে। বিগত আম্ফানে বিধ্বস্থ ভেড়ীবাধের অনেক স্থানে এখনও রিংবাধ দেওয়া সম্ভব হয়নি। সামপ্রতিক জোয়ারের পানিতে আশাশুনি ও শ্যামনগর উপজেলার ভেড়ীবাধ ভেঙে আবারও ডুবে গেছে বিস্তৃন্য এলাকা। এলাকার মানুষের পক্ষ হতে টেকসই স্থায়ীত্বশীল ভেড়ি বাধের দাবী জানানো হলেও দশ বছরে সেই দাবী প্রতি সামান্য সম্মান দেখানো হয়নি। অথচ সরকারের উর্ধতন পর্যায় থেকে বার বার আশ^াস দেওয়া হয়েছে যে, দ্রুত বাধ নির্মানের কাজ শুরু হচ্ছে। এই বাস্তবতাহীন বক্তব্য সরকারের ভামুর্তিকে আরো ক্ষুন্ন করেছে। মানুষের মধ্যে অবিশ^াসের অবস্থা তৈরী হয়েছে। এছাড়া সাতক্ষীরা সদর আজ স্থায়ী জলবদ্ধার করাল গ্রাসে আক্রান্ত। শত শত মানুষ দীর্ঘদিন ধরে জলামগ্ন হয়ে থাকলেও বাস্তব সম্মত কোন উদ্যোগ গ্রহণ না করায় মানুষের দুর্ভোগ আরো তীব্র হচ্ছে। অথচ নানা প্রকল্পের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করাসহ নানান অপকর্ম ও দুনীতি বিষয় আজ প্রকাশ্য নিয়েছে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে স্থানীয় সরকারকে যুক্ত করে স্থায়ীত্বশীল ভেড়ী বাঁধ নির্মান করে সাতক্ষীরার উপকূলের মানুষদের জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং সাতক্ষীরার সদরকে জলবদ্ধতার অভিসাপ মুক্ত করতে আন্তনদীর সংযোগ সৃষ্টিসহ পরিকল্পিত উদ্যোগ গ্রহন করার জোর দাবী জানান।
সভায় নেতৃবন্দ বলেন, দেশে বিচার বহিঃভূত (ক্রস ফায়ার) হত্যার প্রবনতা এত বেড়ে গেছে যে, সাধারন মানুষদের কখন কিভাবে আইন শৃংখলা বাহিনীর এ হত্যার শিকার হতে হয়, এ বিষয়ে উদ্বিগ্ন থাকতে হয়। একটি স্বাধীন দেশে এটি চলতে পারে না। সম্প্রতি সিনহা হত্যার মাধ্যমে এটির নগ্নতা প্রকাশ হয়ে পড়েছে। সকল মহল থেকে আজ এ ধরনের কার্যক্রমের রাশ টেনে ধরার জোর দাবী উঠেছে।
সভায় আগামী ৩১ অক্টোবর জাসদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী যথাযথ ভাবে পালনের লক্ষ্যে পুরা অক্টোবর মাস ব্যপি প্রচার কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়।