জেএমবি পরিচয়ে সাতক্ষীরার পাঁচ রাজনীতিককে হত্যার হুমকী : পুলিশ জিডি নেয়নি


505 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
জেএমবি পরিচয়ে সাতক্ষীরার পাঁচ রাজনীতিককে হত্যার হুমকী : পুলিশ জিডি নেয়নি
নভেম্বর ২১, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
‘তোরা আল্লাহর কোরান হাদিসকে দুনিয়া থেকে নিশ্চিহ্ণ করে দিতেছিস। তার জন্য তোদের আর কোনো সুযোগ দেবোনা ’ এমন হুমকি দিয়ে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার ধানদিয়া ইউনিয়নের পাঁচজন রাজনীতিকের নামে পৃথক চিঠি এসেছে। চিঠিতে তাদেরকে যা প্রাণে চায় তা খেয়ে নিতে বলা হয়েছে ।  কারণ ‘তাদের পরিনতি হবে জজ মিয়ার মতো’।

ডাকযোগে আসা চিঠিগুলির ভাষা একই। কমপিউটার টাইপ করা চিঠি গুলি রোববার ও সোমবার প্রাপকদের হাতে পৌঁছায়।

যারা চিঠিগুলি পেয়েছেন তারা হলেন  ধানদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি কাটাখালি গ্রামের  ডা. শহিদুল ইসলাম,  একই দলের ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক পাঁচপাড়া গ্রামের মাষ্টার শহিদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির ইউনিয়ন সম্পাদক সেনেরগাঁতি গ্রামের মো. রহমুদ্দিন  গাজি, একই দলের শাখা সদস্য মানিকহার গ্রামের মনজুর কাদির ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সদস্য পাঁচপাড়া গ্রামের রেজাউল করিম খান। তারা জানান চিঠিগুলি হাতে পেয়ে তারা আতংকিত হয়ে পড়েছেন।

20161121_18083

চিঠিতে যা লেখা রয়েছে ‘ সেই মহান আল্লাহর নামে কসম দিয়া শুরু করিতেছি। মহান আল্লাহ এতো সুন্দর করে পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন, মানুষ সৃষ্টি করেছেন তার এবাদত করার জন্য। কিন্তু তোরা আল্লাহর প্রেমে পাগল যারা তাদের এই দুনিয়া থেকে বিদায় করে দিতে চাস? আমাদের পেছানোর আর কোনো সুযোগ নেই। আমরা তোদের অনেক সুযোগ দিয়াছি। তোরা বঙ্গবন্ধুর ( শব্দটি বিকৃতভাবে লেখা হয়েছে) নামে দেশটাকে ধ্বংস করে দিয়াছিস। তোরা আল্লাহর  কোরান হাদিসকে দুনিয়া থেকে নিশ্চিহ্ণ করে দিতেছিস।  তার জন্য তোদের আর কোনো সুযোগ দেবো না। তোরা আমাদের ভাই মতিয়ারকে নির্মমভাবে হত্যা করেছিস। তাই তোদের জীবনের মতো যা প্রাণে চায় তাই খেয়ে নিস। তোদের পরিনতি হবে জজ মিয়ার মতো। কমান্ডার অফ চীফ , জেএমবি’।

চিঠিতে উল্লেখিত মতিায়র রহমান একই ইউনিয়নের ওমরপুর গ্রামের নাসিরউদ্দিনের ছেলে। গত ২৫ জুলাই    ঢাকার কল্যানপুরে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের গুলিতে নিহত হয় এই  জঙ্গি মতিয়ার। তার বাড়ি ধানদিয়া ইউনিয়নে। অপর দিকে চিঠিতে যে জজ মিয়ার নাম বলা হয়েছে তার  নাম মেহেদি হাসান জজ। কলারোয়া উপজেলার ক্ষেত্রপাড়া   গ্রামে তার বাড়ি। ২০১৩ সালে  যুদ্ধাপরাধী কাদের মোল্লার ফাঁসির ঘটনা নিয়ে সহিংসতার চলাকালে  জামায়াত ও শিবির তাকে কুপিয়ে ও হাত পা কেটে  হত্যা করে।

এদিকে হুমকি দিয়ে চিঠি লেখার বিষয়ে আতংকিত প্রাপকরা  সোমবার সন্ধ্যায় পাটকেলঘাটা থানায় যান এ বিষয়ে একটি জিডি করার জন্য। তারা জানান পুলিশ জিডি নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেছে ‘ ওসি  সাহেব ছুটিতে আছেন । তিনি না আসা পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যাবেনা ’। আগামী বৃহস্পতিবার ওসি সাহেব আসলে পরে জিডি নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি উপ-পরিদর্শক বুলবুল ইসলাম বলেন ‘ ওসির নির্দেশের বাইরে  আমি কিছু করতে পারবোনা। ওসি সাহেব  ছুটি থেকে ফিরে ব্যবস্থা নেবেন’।

এদিকে, সোমবার বিকালে বিষযটি সাংবাদিকরা জানার পর সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মো: আলতাফ হোসেনকে অবহিত করেন। এ সময় পুলিশ সুপার জানান, থানায় জিডি নেওয়ার জন্য আমি পাটকেলঘাটা থানাকে বলে দিচ্ছি। বিষয়টি যথাযথ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কিন্তু এর পরেও পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ বিষয়টি গুরুত্ব দেয়নি। নেয়নি জিডি।
##