সাতক্ষীরার ক্রীড়াঙ্গণে ধারাবাহিক সাফল্য অর্জন সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির


740 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
সাতক্ষীরার ক্রীড়াঙ্গণে ধারাবাহিক সাফল্য অর্জন সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির
ডিসেম্বর ৮, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুর রহমান :
সাতক্ষীরা জেলার ক্রীড়াঙ্গণে ধারাবাহিকভাবে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেই চলছে সাতক্ষীরার সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমি। এই একাডেমিতে জাতীয় দলের ক্রিকেট তারকা সৌম্য সরকার ও কাটাররাজা মোস্তাফিজুর রহমানের উত্থান। বর্তমানে এ জেলার ক্রীড়াঙ্গণে সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমি নবাগত ক্রিকেটার গড়ার ধারক ও বাহক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে।

সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চলছে ক্রিকেট প্রশিক্ষণ। সাতক্ষীরা জেলার অহংকার জাতীয় ক্রিকেট দলের দুই তরুণ ক্রিকেটার সৌম্য সরকার ও মুস্তাফিজুর রহমান এ একাডেমির ক্রীড়া প্রশিক্ষক হিসেবে বিশ্বের মাঝে নিজের দেশ তথা সাতক্ষীরা জেলাকে পরিচিতি করেছে তারা। ক্রীড়াঙ্গণে ভালো ক্রিকেটার হতে হলে প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শেখানোর উদ্দেশ্য নিয়ে এ একাডেমি কাজ করে যাচ্ছে। গত চার মাস আগে চালু হওয়া সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির প্রশিক্ষণার্থীরা বর্তমানে দেশের ক্রীড়াঙ্গণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। ক্রিকেট খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে তৃর্ণমূল পর্যায়ের খেলোয়াড়দের সুযোগ সৃষ্টি করে বিশেষ অবদান রেখে চলেছে সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমি। দেশবরেণ্যে দুই ক্রিকেট তারকা সৌম্য সরকার ও মোস্তাফিজুর রহমান সুন্দরবন একাডেমি’র প্রশিক্ষক হিসেবে খেলোয়াড়দের উৎসাহ জাগিয়েছেন।

সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক আলতাফ হোসেন ক্রিকেট খেলোয়াড় গড়ার কারিগর নিরলসভাবে পরিশ্রম করে আজ তার প্রশিক্ষণ একাডেমিতে ৩ শতাধিক প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। তার হাত দিয়েই বাংলাদেশে দলের বরেণ্য ক্রিকেটার সৌম্য ও মোস্তাফিজের মতো নতুন বিস্ময়কর ক্রিকেটার তৈরি হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে সাতক্ষীরা জেলা অনুর্দ্ধ-১৮ দল খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ের ১০টি জেলার মধ্যে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌবর অর্জন করেছে। বর্তমানে অনুর্দ্ধ ১৮ দলে সাতক্ষীরা জেলা থেকে মোট ৮জন বিভাগীয় পর্যায়ে প্রশিক্ষণের সুযোগ পেয়েছে। তার মধ্যে সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির ৩জন খেলোয়াড়। তারা হলেন-ইমতিয়াজ হোসেন বাবু, রবিউল ইসলাম ও রিমু। এছাড়াও ঢাকা প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লীগে এ একাডেমি থেকে দুই জন খেলোয়াড় অংশ নেয়। তারা হলেন- রবিউল ইসলাম ও ইমতিয়াজ হোসেন বাবু। বর্তমানে তারা ঢাকা আজাদ স্পোটিং ক্লাবে খেলছে।

ধারাবাহিকভাবে এ একাডেমিতে প্রশিক্ষণার্থীদের দু’টি ব্যাচে সপ্তাহে চার দিন প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। জেলার সাতটি উপজেলা থেকে আসা ক্রিকেটাররা এ একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। একাডেমিতে গরীব ও কৃর্তী খেলোয়াড়দের জন্য রয়েছে বিশেষ সুযোগ-সুবিধা। একাডেমির প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন- পরিচালক মোঃ আলতাপ হোসেন, সহকারী প্রশিক্ষক বিসিবি’র প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কোর্স তারিকুজ্জামান তারিক ও সহযোগি হিসেবে প্রশিক্ষন দেন- অপু,রিপন, মিলন, ফারুক ও আশিক।

সুন্দরবন ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক আলতাফ হোসেনের হাতে গড়া দেশবরেণ্য দুই ক্রিকেট তারকা সৌম্য সরকার ও মোস্তাফিজুর রহমান এর উত্থান সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে দেশের এতো বড় সাফল্য এনে দিয়েছে যে মাঠ থেকে সে মাঠের দিকে লক্ষ্য নেই কারো। এ মাঠ থেকে আগামী দিনে সৌম্য মোস্তাফিজের মতো ক্রিকেট তারকা দেশবাসীকে উপহার দিতে পারে। কিন্তু মাঠটি খেলার অনুপযোগি হওয়ায় প্রশিক্ষণার্থীরা খেলার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরে পাচ্ছে না। দীর্ঘ দিন ধরে মাঠ সংস্কারের ব্যাপারে অনেকেই আশার বাণী শুনালেও তা এখনো বাস্তবায়ন হয়নি।