ঝাউডাঙ্গার টনি ক্লিনিকের মালিককে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা


306 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ঝাউডাঙ্গার টনি ক্লিনিকের মালিককে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা
আগস্ট ১৮, ২০১৬ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

রাশেদ রেজা তরুণ:
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঝাউডাঙ্গা বাজারে অবস্থিত টনি ক্লিনিকের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট নূর আহমেদ মাসুম বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টার দিকে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট নূর আহমেদ মাসুম বলেন “ক্লিনিকে ডাক্তার নেই, ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্ন নার্স নেই, অপারেশন থিয়েটারের লাইট নেই, ল্যাবের জন্য দক্ষ টেকনেশিয়ান নেই এসব অভিযোগের কারনে ক্লিনিকের মালিককে জরিমানা করা হয়। সব মিলিয়ে একটি অব্যবস্থাপনার ভেতর দিয়ে পরিচালনা হচ্ছে ক্লিনিকটি”।

এছাড়াও বর্তমান ক্লিনিকের মালিক টনি নিজেকে বড় ডাক্তার পরিচয় দিয়ে থাকেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকেই। এমনকি বিভিন্ন সময়ে মাইকিং এর মাধ্যমে প্রচার করে থাকে “টনি ক্লিুনিকে সব ধরনের রোগী সেবার সুব্যবস্থা আছে”। অথচ সরোজমিনে যেয়ে দেখা যায় ক্লিনিকে পর্যাপ্ত বেড, ডিপ্লোমা নার্স , ২৪ ঘন্টা এমবিবিএস ডাক্তার, অপারেশন থিেেয়টার লাইট সহ নোংরা , অপরিস্কার ও অব্যব¯া’পনার মধ্য দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে ক্লিনিকটি। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে ক্লিনিকের মালিক টনির সাথে কথা হলে তিনি অভিযান ও জরিমানা দুটো বিষয়ই অস্বীকার করেন।

সম্প্রতি গাড়াখালির শাহিন নামের একটি রোগী সেখানে চিকিৎসা হতে থাকেন কিন্তুু ক্লিনিকের ডাক্তারের ভুল চিকিৎসার কারনে রোগীর অবস্থার অবনতি হতে থাকে। রোগীর অবস্থা বেগতিক দেখে ক্লিনিকের মালিক টনিরোগী শাহিনকে ৪০ হাজার টাকার চুক্তিতে সাতক্ষীরা নাজমুল ক্লিনিকে ভর্তি করায় । কিন্তুু বর্তমানে সেই রোগীর অবস্থা খুবই আশঙ্খাজনক। এভাবে মানুষকে ধোকা দিযে রোগীদের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে ক্লিনিকটি। । এছাড়াও চিকিৎসার জন্য এই ক্লিনিকে সেবা নিতে আসলে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ও প্রতারিত হচ্ছে এলাকার মানুষ। অন্যদিকে ক্লিনিক মালিক টনি চিকিৎসার নামে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা।