টাইগারদের জন্য শুভকামনা


380 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
টাইগারদের জন্য শুভকামনা
মার্চ ২৫, ২০১৭ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
উৎসবের শুরু সেদিনের সেই কলম্বো টেস্ট জয় থেকেই। জন্মদিনের আগাম উপহার পেয়েছিলেন সেদিন তামিম ইকবাল। গতকাল ছিল সাকিবের একত্রিশতম জন্মদিন, সতীর্থরা টিম হোটেলেই বার্থডে বয়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, তবে উপহারটা অধরাই রেখেছেন, হয়তো আজ দেবেন বলে…! ‘প্রথম ম্যাচটি জিতেই সাকিব ভাইকে জন্মদিনের উপহার দিতে চাই আমরা’_ গতকাল ডাম্বুলায় অনুশীলন শুরু করার আগেই মনের কথাটি বলেন তাসকিন। সাগর পাড়ের কলম্বো থেকে টাইগাররা এখন শ্রীলংকার পাহাড় আর হ্রদের শহর ডাম্বুলায়, টেস্ট জয়ের পর একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে প্রায় সাড়ে তিনশ’ রান ছুঁয়ে ফেলার আত্মবিশ্বাস সঙ্গে নিয়ে আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলতে নামছে টাইগাররা। তা ছাড়া কে না জানে, ওয়ানডেতে টাইগাররা টেস্টের চেয়েও ভয়ঙ্কর।

এর আগে শেষবার লংকা থেকে ওয়ানডে সিরিজ ১-১ ড্র করে বাড়ি ফিরেছিলেন মুশফিক, এবার মাশরাফির চ্যালেঞ্জ সিরিজটি জিতে দেশে ফেরা। যদিও মাশরাফি সতর্ক করে দিয়েছেন এই বলে যে, লংকান দলটি টেস্টের চেয়ে ওয়ানডেতে বেশি শক্তিশালী। কিন্তু এটা বলেননি যে, সিরিজ জেতা অসম্ভব। ‘টেস্ট জয়ের অনুপ্রেরণা অবশ্যই থাকবে। এমন সাফল্যের পর মনোবল বাড়ারই কথা। কেউ কেউ হয়তো আমাদের এগিয়ে রাখতে চাইবেন; কিন্তু আমি মনে করি, এগিয়ে থাকলেও মাঠে সেরাটাই খেলতে হবে। আমিও বলেছি, শ্রীলংকার বর্তমান ওয়ানডে ও টি২০ দল টেস্টের চেয়ে ভালো।’

দু’দলের ইতিহাস বলছে, বাংলাদেশ প্রতিপক্ষের তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে। মোট ৩৮ বারের মুখোমুখিতে মাত্র চারটি জয় মিলেছে বাংলাদেশের। তবে শেষবার এই লংকার মাটি থেকে ওয়ানডে ম্যাচ জিতেছিল বাংলাদেশ। সেটা পাল্লেকেলেতে, ডাম্বুলায় অবশ্য বাংলাদেশের স্মৃতি সুখকর নয়। এই মাঠে ২০১০ সালের এশিয়া কাপে তিনটি ম্যাচের সবক’টিতেই হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে এবারে ডাম্বুলায় কিছুটা নাকি চমক অপেক্ষা করছে বাংলাদেশের। টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রের খবর, রানগিরি স্টেডিয়ামের পিচে ঘাসের উপস্থিতি দেখেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। আর তাই আজকের দিবারাত্রির ম্যাচে একাদশে তিন পেসারের সম্ভাবনাও প্রবল। মাশরাফি তার সেরা অস্ত্র মুস্তাফিজকে রাখছেনই, তার সঙ্গে থাকতে পারেন পেসার তাসকিন। লংকান দলে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান বেশি_ এই যুক্তিতে উড়িয়ে নেওয়া হয়েছে স্পিনার মিরাজকে। তবে আজকের একাদশে তার থাকার সম্ভাবনা কম। তার জায়গায় দেখা যেতে পারে শুভাগত হোম চৌধুরীকে। একাদশের একটি জায়গা নিয়ে টাইগার সমর্থকদের কৌতূহল প্রবল_ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ কি থাকছেন একাদশে? শততম টেস্টে স্কোয়াডের বাইরে রাখা হয়েছিল তাকে। তবে একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে ৭১ রানে অপরাজিত ছিলেন মাহমুদুল্লাহ। প্রস্তুতি ম্যাচে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও করেছিলেন ৫৩ রান। কোচ আর অধিনায়কের কম্বিনেশনে আজ কে থাকছেন, তা গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ফাঁস হয়নি। সম্ভাব্য একাদশে ইমরুলের থাকা-না থাকা নিয়েও কৌতূহল থাকছে। প্রস্তুতি ম্যাচে বোলারদের পারফরম্যান্স সন্তোষজনক ছিল না, তাই বোলিং নিয়ে একটা চিন্তা থেকেই যাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টের।

সে সঙ্গে আইসিসির বেঁধে দেওয়া র‌্যাংকিং নিয়েও একটা দুশ্চিন্তা থাকছে। সিরিজটি ৩-০ ব্যবধানে জিততে পারলে সাত থেকে ছয় নম্বরে চলে যাবে বাংলাদেশ। ২-১ জিতলেও সাত নম্বরে থাকছে, এটা নিশ্চিত। কিন্তু ০-৩-তে হারলেই পাকিস্তানের কাছে সাত নম্বর জায়গাটি ছেড়ে দিয়ে র‌্যাংকিংয়ে আট নম্বরে চলে যাওয়ার শঙ্কা আছে। তাই সিরিজের তিনটি ম্যাচই ভীষণভাবে গুরুত্বপূর্ণ মাশরাফিদের কাছে। তা ছাড়া টেস্ট হারার পর রীতিমতো চাপের মুখে রয়েছে গোটা লংকান দল। সেখানকার মিডিয়া এরই মধ্যে ‘লংকান ক্রিকেটের মৃত্যু’ লিখে শিরোনাম করেছে। লংকান বোর্ডপ্রধান ওই দিনই পুরো দলকে নিয়ে হোটেলে বসেছিলেন, সেখানেই কোচসহ পুরো দলকে ওয়ার্নিং দিয়েছেন বলে খবর দ্য আইল্যান্ড পত্রিকার। লংকান বোর্ডপ্রধান নাকি বলে দিয়েছেন_ ওয়ানডে সিরিজ হাতছাড়া হলে চাকরি যেতে পারে কোচিং স্টাফদের কয়েকজনের। টেস্ট দল থেকে ছয়টি পরিবর্তন নিয়ে ওয়ানডে স্কোয়াড গড়েছে লংকানরা। তবে ইনজুরির কারণে নেই তাদের নিয়মিত অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। আর শেষ বেলায় তাদের জন্য দুসংবাদ নিয়ে এসেছে ওপেনার কুশল পেরেরার ইনজুরি। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম দুটি ওয়ানডে তিনি খেলতে পারছেন না। ওয়ানডেতে লংকানদের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে ক্ষুব্ধ সে দেশের বোর্ডপ্রধান। দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে থারাঙ্গাদের এ দলটিই ০-৫-এ হোয়াইটওয়াশ হয়ে এসেছে। তা ছাড়া আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যদি র‌্যাংকিংয়ে আটের মধ্যে না থাকা যায় তাহলে লংকানরাও পরের বিশ্বকাপ সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে না। তাই সব মিলিয়ে বাংলাদেশের সামনে ভীষণ সতর্কভাবে নামছে লংকান সিংহরা।

টাইগাররাও কিছুটা সতর্ক, কেননা শেষ ওয়ানডে খেলেছে তারা গত বছরের শেষ দিনটিতে। নেলসনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। তারপর টানা প্রায় তিন মাস শুধুই লাল বল নিয়ে অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল। মাশরাফি নিজে লংকা যাওয়ার আগে ফতুল্লায় একটি একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে গেছেন। ইনজুরির পর তার বোলিং ছন্দ ফিরে আসতেও কিছুটা সময় লাগবে। তাই সব মিলিয়ে আজকের ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের ফর্মের ওপর অনেকটা তাকিয়ে থাকতে হতে পারে মাশরাফিকে।