টেংরাখালী স্কুলের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উৎকোচের বিনিময়ে নিন্মমান সহকারী পদে নিয়োগ বন্ধে মানববন্ধন


569 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
টেংরাখালী স্কুলের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উৎকোচের বিনিময়ে নিন্মমান সহকারী পদে নিয়োগ বন্ধে মানববন্ধন
ডিসেম্বর ৭, ২০১৫ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি :
আশাশুনির টেংরাখালী আদর্শ শিক্ষা নিকেতন এর সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উৎকোচের বিনিময়ে নিন্মমান সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ প্রদানের বিরুদ্ধে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে উপজেলার টেংরাখালী আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের সামনে অভিভাবক ও এলাকাবাসী সভাপতি মনোরঞ্জন সরকার ও প্রধান শিক্ষক বিষ্ণুপদ বিশ্বাস নিন্মমান সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে মোটা অংকের অর্থের বিনিময় নিয়োগ বানিজ্য করছে বলে অভিযোগ করেন। তারা বলেন আগামী ০৮ ডিসেম্বর বেলা ২টায় অত্র বিদ্যালয়ে সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক যোগসাজসে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে নির্দিষ্ট এক জন ব্যক্তিকে নিয়োগ দিচ্ছে বলে প্রচার হচ্ছে।
মানব বন্ধনকারীরা বলেন, আমরা পরীক্ষার বিরোধীতা করি না। কিন্তু নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে নিয়োগ না দিয়ে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ পরীক্ষা গ্রহণ ও মেধা সম্পন্ন ব্যক্তিকে নিয়োগ দেওয়ার দাবী করছি। পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে উক্ত পদে ১৪জন প্রার্থী আবেদন করেন। উৎকোচের বিনিময়ে নিয়োগের বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে এলাবাসী উক্ত নিয়োগ বন্ধের দাবীতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট মৌখিক ও লিখিত ভাবে জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এক প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন পরীক্ষার কার্ডে ০১ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত ৮ ডিসেম্বর পরীক্ষা অনুষ্ঠানের পত্রটি তিনি ৬ডিসেম্বর বিকালে পেয়েছেন। এ ব্যাপারে পঙ্কজ মন্ডল বাদী হয়ে সভাপতি দিং দের বিবাদী করে সাতক্ষীরা (আশাশুনি) সহকারী জজ আদালতে একটি দেওয়ানী মামলা দায়ের করেন। আদালত উক্ত মামলার ১১ ও ১২নং বিবাদীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করেছেন। কিন্তু বিবাদীগন আজ ৮ডিসেম্বর সোমবার নিয়োগ কার্যক্রমের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন বলে মানব বন্ধনকারীগন অভিযোগ করেন। মানব বন্ধনে অভিভাবক ও এলাকাবাসী প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে করার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে মানব বন্ধন শেষে প্রধান শিক্ষক না পেয়ে মোবাইলে তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মানব বন্ধনের বিষয়টি জানেন না বলে জানান।

প্রার্থীর নোটিশ পাওয়া না পাওয়ার বিষয়টি তার অজ্ঞাতেই হতে পারে। সভাপতি মনোরঞ্জনের সাথে মানব বন্ধন কারীদের অভিযোগের বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি জানান, উৎকোচের বিনিময় কোন ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট করার বিষয়টি আমার আদৌ জানা নেই। তবে নিয়োগ পরীক্ষাটি সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট পরীক্ষা বোর্ডের সকলকে অনুরোধ জানিয়েছি।