টেনিসকেও গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী


82 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
টেনিসকেও গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী
নভেম্বর ২০, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি ও কূটনীতিকরা বুধবার অপরাহ্নে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন- পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার সরকার ক্রিকেট ও ফুটবলের পাশাপাশি টেনিসসহ অন্যান্য খেলার প্রসারেও সমান গুরুত্ব দিচ্ছে।

শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি ও কূটনীতিকরা বুধবার অপরাহ্নে গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাতে এলে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৪তম জন্মদিন উপলক্ষে গত ১৩ থেকে ১৮ নভেম্বর খুলনায় শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। খবর বাসসের

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে ক্রিকেট ও ফুটবল জনপ্রিয় খেলা হলেও মানুষ এখন টেনিসের সঙ্গেও পরিচিত হচ্ছে। এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের পর তরুণ প্রজন্ম আরও বেশি করে টেনিসের প্রতি আকৃষ্ট হবে বলে তিনি মনে করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার টেনিস কোর্ট তৈরি, প্রশিক্ষণ প্রদানসহ স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতা আয়োজনের মাধ্যমে এ খেলার প্রসারে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ছেলেমেয়েদের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা খেলাধুলাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি এজন্য যে, তরুণ প্রজন্ম যত বেশি অংশ নেবে, তাদের মনমানসিকতা ততই ভালো হবে। তারা শারীরিকভাবে সুস্থ হবে এবং নিজেদের আরও বেশি করে তৈরি করতে পারবে।’

তিনি বলেন, বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক খেলায় বিদেশিরা অংশগ্রহণ করায় একে অন্যের সঙ্গে ওঠাবসার মাধ্যমে পরস্পরকে জানার একটি সুযোগ পাওয়া যায়। সেদিক থেকেও এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে দেবে। সরকার টেনিসের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেবে। প্রধানমন্ত্রী খুলনায় শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টেনিস টুর্নামেন্ট সফলভাবে আয়োজন করায় আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান। বিশেষ করে এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও একসময়কার দেশবরেণ্য ফুটবলার এবং বাফুফের সহসভাপতি সালাম মুর্শেদীর ভূমিকার প্রশংসা করেন।

সরকারপ্রধান বিজয়ী, বিজিতসহ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ১৯টি দেশের ২১টি ক্লাবের সব সদস্যের প্রতি শুভেচ্ছা জানান। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব আখতার হোসেন প্রতিযোগিতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, স্থানীয় সংসদ সদস্য সালাম মুর্শেদী এবং শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।