ট্রাম্পের সংসারে তুষের আগুন


154 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ট্রাম্পের সংসারে তুষের আগুন
সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

নির্বাচনের আগে নতুন বইয়ে তথ্য

মেলানিয়া ও ইভানকার দা-কুমড়া সম্পর্ক

অনলাইন ডেস্ক ::

ক্ষমতাবানদের প্রাসাদে কী হয় না হয়, তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে জল্পনা থাকে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংসার নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। ধনকুবের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অন্দরমহলের কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে মঙ্গলবার প্রকাশিত এক বইয়ে। তাতে স্পষ্টতই দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের সংসারে জ্বলছে তুষের আগুন।

ট্রাম্পের ঘটনাবহুল প্রথম মেয়াদ শেষ হতে চলেছে। ৩ নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে দ্বিতীয় মেয়াদে জিততে জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। এরই মধ্যে মঙ্গলবার স্টেফানি উইনস্টন ওলকফ প্রকাশ করেছেন তার বই ‘মেলানিয়া অ্যান্ড মি’। বইটিতে মূলত ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের মূল্যায়ন করেছেন তিনি। ট্রাম্পের বড় মেয়ে (প্রথম স্ত্রীর সন্তান) ইভানকা ট্রাম্পের সঙ্গে মেলানিয়ার সম্পর্ক নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যও আছে তাতে। তবে উইনস্টনের লেখা সেসব তথ্যকে ‘সত্যের বিকৃতি’ হিসেবে উল্লেখ করেছে হোয়াইট হাউস।

উইনস্টনের সঙ্গে মেলানিয়ার ১৫ বছর বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। বছর দুয়েক আগে তাদের সে সম্পর্ক ভেঙে যায়। ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিষেক অনুষ্ঠানে তহবিল তছরুপের বিষয়টি সামনে এলে উইনস্টনের নামটি জড়িয়ে যায়। তার অভিযোগ, মেলানিয়া তখন পাশে না দাঁড়িয়ে উল্টো ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ করেছিলেন। সেই তহবিল তছরুপের ঘটনায় বর্তমানে যে তদন্ত চলছে, এখন অবশ্য তাতে সহযোগিতা করছেন উইনস্টন।

ইভানকা-কুশনারকে সাপের সঙ্গে তুলনা: ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ইভানকা ও মেলানিয়ার মধ্যে সব সময়ই একটি মর্যাদার লড়াই চলে আসছে বলে বইতে জানিয়েছেন উইনস্টন। স্বামীর ওপর মেয়ে ইভানকার প্রভাবে মেলানিয়া যে সন্তুষ্ট নন, তা বইটিতে স্পষ্ট। মেলানিয়া ব্যঙ্গ করে ইভানকাকে ‘রাজকুমারী’ বলে সম্বোধন করেন। এ ছাড়া ইভানকা ও তার স্বামী জারেড কুশনারকে একবার ‘সাপ’ বলেও উল্লেখ করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্টলেডি। ইভানকা এবং কুশনার দু’জনই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা।

বদলে যাওয়া মেলানিয়া: উইনস্টন ছিলেন ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিষেক অনুষ্ঠানের প্রধান পরিকল্পনাকারী। তিনি ও হোয়াইট হাউসের আরও এক সহকারীর বিরুদ্ধে সে অভিষেক অনুষ্ঠানের অর্থ তছরুপের অভিযোগ আনা হয়েছিল। সে সময় মেলানিয়া তাকে সমর্থন না করে ‘পেছন থেকে ছুরি’ মেরেছিলেন বলে বইটিতে লিখেছেন উইনস্টন। তিনি আরও লিখেছেন, ‘চোখের সামনে মেলানিয়া বদলে যান। কাঁচা স্বর্ণ থেকে ক্রমেই ২৪ ক্যারেটের দামি স্বর্ণে পরিণত হন তিনি।’

টয়লেট কাণ্ড: ২০১৬ সালে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পাঁচ মাস পর হোয়াইট হাউসে যান মেলানিয়া। উইনস্টন লিখেছেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং তার পরিবারের ব্যবহূত টয়লেটের সব ফিটিংস পরিবর্তনের পরই হোয়াইট হাউসে ওঠেন মেলানিয়া। এটি তার বর্ণবাদী মানসিকতার পরিচয় কিনা তা অবশ্য স্পষ্ট করেননি লেখক। ওই সময় মেলানিয়ার পছন্দের রং করা হয়েছিল হোয়াইট হাউসের অন্দরমহলে। সূত্র: বিবিসি।