ডুমুরিয়া সংবাদ ॥ কেওড়াতলা স্লুইচ গেটটি পলি ভরাট হওয়ার কারণে পানিবন্দি ২১ গ্রামের দেড় লাখ মানুষ


430 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ডুমুরিয়া সংবাদ ॥ কেওড়াতলা স্লুইচ গেটটি পলি ভরাট হওয়ার কারণে পানিবন্দি ২১ গ্রামের দেড় লাখ মানুষ
আগস্ট ১৫, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গাজী আব্দুল কুদ্দুস ডুমুরিয়া ॥
ডুমুরিয়ায় ৯টি বিলের পানি সরবরাহের একমাত্র কেওড়াতলা স্লুইচ গেটটি পলি ভরাট হওয়ার কারণে পানি নিস্কাশনের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ফলে ওই এলাকার ২১ গ্রামের দেড় লক্ষাধিক লোক পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে শত শত মানুষের স্বেচ্ছাশ্রমের মধ্যে দিয়ে চলছে পলি অপসারণের কাজ। গতকাল বিকালে উপজেলা চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সরেজমিনে গিয়ে স্বেচ্ছাশ্রম ও স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের সাথে কথা বলে জানা যায় উপজেলার রুদাঘোরা, রঘুননাথপুর ও ধামালিয়া ইউনিয়নের বিল তাওয়ালিয়া, বিল মধুগ্রাম, বিল বরুনা, কোলবিল সহ ৯টি বিলের পানি সরবরাহ হয় কেওড়াতলা স্লুইস গেট দিয়ে। ইতি পূর্বে হরি নদীটি পলি ভরাটি হওয়ায় পানি নিস্কাশনে গতিবিধি কমে যায়। তার উপর অপরিকল্পিত ভাবে খাস জমি বন্ধবস্ত দেয়ায় যত্র-তত্র খাল ভরাট করে পানির গতি রোধ করা হয়েছে। ফলে স্লুইস গেটটি ভিতর-বাইরে পলি ভরাটি হয়ে পানি নিস্কাশনের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। রুদাঘোরা ইউপি  চেয়ারম্যান জি এম আমালল্লাহ, ধামালিয়া ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান রেজওয়ান মোল্যা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গাজী তহিদুর রহমান, বিল কমিটির সভাপতি মতলেব গোলদার, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, জহুরুল হক, এফ এম সরোয়ার সহ একাধিক স্বেচ্ছাশ্রমিকরা বলেন গত ৩/৪  যাবত পলি অবসারণের কাজ চললেও লক্ষ্যে পোঁছান অসম্ভব হয়ে পড়ছে। আশু সরকারের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। অন্যথায় দেড় লক্ষাধিক লোকের জনজীবন অচল হয়ে পড়বে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন কালে শত শত ভুক্তভোগীদের প্রশ্নের মুখে উপজেলা চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর বলেন জনস্বার্থে যাহা প্রয়োজন তা করা হবে।
##

ডুমুরিয়ায় বানভাসীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ
গাজী আব্দুল কুদ্দুস ডুমুরিয়া ॥ ডুমুরিয়ার চাঁদগড়-সুন্দরমহল বানভাসীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ডুমরিয়া বাজারস্থ  কালীবাড়ি মোড়ের একদল বন্ধু মহল গতকাল বিকালে সম্মিলিত হয়ে হাজার হাজার অসহায় পানিবন্দী মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এ সময় শরাফপুর, চাঁদগড়, আকড়া,ও সুন্দরমহল বানভাসীদে ৮’শ পরিবারের  মাঝে  ত্রাণ-সামগ্রী বিতরণ করা হয়। উপস্থিত ছিলেন  ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রবিউল ইসলাম , শুরখালী ইউপি চেয়ারম্যান হেমায়েত হোসেন, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোঃ রবিউল ইসলাম খান আন্টু, শেখ এনামুল হক, সরোয়ার হোসেন খান বাবু, মাহমুদুর রহমান খান, কবিরুল ইসলাম খান ও মাহাবুর রহমান মিন্টু প্রমুখ।