ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি নেই, চিকিৎসা অপ্রতুল


99 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি নেই, চিকিৎসা অপ্রতুল
আগস্ট ৩, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

রাজধানীর বাইরে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমেনি। পরিস্থিতি আগের মতোই আছে। প্রতিদিনই ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন নতুন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। শুক্রবার নোয়াখালীতে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। মুন্সীগঞ্জে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার হাসপাতালে মারা গেছেন আরেকজন। রাজশাহীতে আক্রান্ত হয়েছেন খোদ সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী। কিছু কিছু হাসপাতালে ওষুধ ও স্যালাইন সংকট দেখা দিয়েছে। রোগীদের বাইরে থেকে কিনে এসব ব্যবহার করতে হচ্ছে। চাহিদার তুলনায় ডেঙ্গু শনাক্তের কিটের সংখ্যা কম হওয়ায় বিপাকে পড়ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। অনেক স্থানে রোগী ও স্বজনের সঙ্গে চিকিৎসকের বাকবিতণ্ডার ঘটনাও ঘটছে। ব্যুরো, অফিস, প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর-

নোয়াখালী : ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে নোয়াখালীতে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের হুগলী গ্রামের মোশাররফ হোসেন (৩০) ও বেগমগঞ্জের মীরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের আব্দুল মোতালেব (২০)। শুক্রবার দুপুরে শহরের প্রাইম হাসপাতালে ও বৃহস্পতিবার রাতে বেগমগঞ্জ হাসপাতালে তাদের মৃত্যু হয়। জেলা সিভিল সার্জন মোমিনুর রহমান ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দু’জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় জেলাজুড়ে ডেঙ্গু আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

মুন্সীগঞ্জ : ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলা মানবাধিকার কমিশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বালিগাঁও বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন (৪০) মারা গেছেন। বুধবার ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে তাকে ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার ভোরে ওই হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়।

রাজশাহী : রাজশাহীতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন খোদ সিটি করপোরেশনের (রাসিক) প্রকৌশলী আশরাফুল হক। রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এএফএম আঞ্জুমান আরা বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। অবস্থা গুরুতর না হওয়ায় তিনি বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম ডেঙ্গুর বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

রংপুর : রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বর্তমানে ৭১ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। প্রতিদিনই বিভাগের ৮ জেলা থেকে রোগীরা এ হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। এ জন্য এ হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসা ও মনিটরিংয়ের জন্য আলাদা ইউনিট গঠন করা হয়েছে।

ফরিদপুর : ফরিদপুরে বর্তমানে মোট ১১০ জন চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের মধ্যে ফরিদপুর সদর হাসপাতালে দুইজন, ডায়াবেটিক হাসপাতালে ১৫ জন, আরোগ্য সদনে ১০ জন ও মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮৩ জন চিকিৎসাধীন আছেন। এ জেলায় গত ২০ জুলাই থেকে মোট ১৪৩ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৪ জন স্থানীয়ভাবে আক্রান্ত হয়েছেন। জেলায় একজন মারা গেছেন। ঢাকায় পাঠানো হয়েছে তিনজনকে। সুস্থ হয়েছেন ৩০ জন।

নড়াইল : নড়াইল সদর হাসপাতাল ও লোহাগড়া হাসপাতালের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ক্রিকেটতারকা মাশরাফি বিন মুর্তজার পাঠানো ২শ’ ডেঙ্গু কিট হস্তান্তর করা হয়েছে। মাশরাফি ব্যক্তিগত অর্থায়নে এসব কিট সরবরাহ করেছেন। এছাড়া জেলার সব হাসপাতালের জন্য আরও ৪শ’ কিট জেলা প্রশাসকের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে। নড়াইল সদর হাসপাতালে এখন ১১ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

মৌলভীবাজার ও কমলগঞ্জ : মৌলভীবাজারে শুক্রবার নতুন করে আরও তিন ডেঙ্গু রোগী সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তারা তিনজনই কমলগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ও ঢাকা ফেরত। এ নিয়ে মৌলভীবাজারে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯-এ। শুক্রবার ভর্তি হওয়া তিনজনের একজনকে সিলেট পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে সদর হাসপাতালে ৭ জন ও মৌলভী ক্লিনিকে তিনজন চিকিৎসাধীন আছেন।

জামালপুর : জামালপুর সদর হাসপাতালে বর্তমানে ২৭ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। এ হাসপাতালে মোট চিকিৎসা নিয়েছেন ৪৬ জন। তাদের আটজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এসব রোগীর সবাই ঢাকায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এ হাসপাতালে ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন রোগীরা। স্যালাইনসহ বিভিন্ন ওষুধ তাদের বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে।

ঝিনাইদহ ও কালীগঞ্জ : ঝিনাইদহে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় সামান্য জ্বর হলেই মানুষ হাসপাতালে ছুটে আসছেন। গত ১৭ দিনে কয়েকশ’ রোগীর ডেঙ্গু পরীক্ষা করা হয়েছে। ধরা পড়েছে ৪৩ জনের। তাদের মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২৩ জন। ঢাকায় পাঠানো হয়েছে চারজনকে। ১৬ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ হাসপাতালে মাত্র একশ’ রোগীর জন্য কিট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সব রোগীই হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষা করতে চাচ্ছেন। এ নিয়ে চিকিৎসক ও হাসপাতালের কর্মচারীদের সঙ্গে রোগী ও তাদের স্বজনের বাকবিতণ্ডা হচ্ছে। এদিকে জেলার কালীগঞ্জে ডেঙ্গু আক্রান্ত পাঁচজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের দু’জন ঢাকা থেকে এসেছেন।

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া বেগম (৩৫) ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে ওই হাসপাতালে ভর্তি আছেন পাঁচজন। এখান থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন মোট ১৫ জন।

লালমনিরহাট : লালমনিরহাটে বৃহস্পতি ও শুক্রবার আরও তিন ডেঙ্গু রোগী সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা হলো ছয়জন। তাদের মধ্যে চারজন চিকিৎসা নিচ্ছেন। দু’জন সুস্থ হয়েছেন। তারা সবাই ঢাকায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন।

পটুয়াখালী : পটুয়াখালীতে বৃহস্পতি ও শুক্রবার নতুন করে পাঁচজন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১৭ জন। এর আগে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৬ জন। শুক্রবার এসব রোগীর খোঁজখবর নিতে হাসপাতালে যান জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪১ হয়েছে। বর্তমানে ১২ জন সদর হাসপাতালে, দু’জন বালিয়াকান্দি হাসপাতালে এবং একজন করে পাংশা ও গোয়ালন্দ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এখন পর্যন্ত এ জেলায় ডেঙ্গু শনাক্তের জন্য পাঠানো হয়েছে মাত্র ১২০টি কিট। প্রয়োজনের তুলনায় যা খুবই কম।

মাগুরা : মাগুরা জেলার দুই হাসপাতালে ১৯ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন। সদর হাসপাতালে শুক্রবার ভর্তি হওয়া তিনজনসহ মোট ১৫ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ছাড়া মহম্মদপুর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি আছেন চারজন। এদিকে ডেঙ্গু আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার পর মাগুরা শহরের বিভিন্ন এলাকায় শুক্রবার মশক নিধন অভিযান চালানো হয়েছে।

মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৯৬ হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে শুক্রবার সকাল ১০টা পর্যন্ত সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সাতজন। আক্রান্তদের মধ্যে নয়জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বতমানে সদর হাসপাতালে ৩১ জন ও মুন্নু মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে নয়জন ভর্তি আছেন। বাকিরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে আটজন নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ হাসপাতালে বর্তমানে ৪৪ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ছাড়া জেলার মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২২ জন। এসব রোগীর মধ্যে তিনজন স্থানীয়ভাবে আক্রান্ত হয়েছেন।

বাজিতপুর (কিশোরগঞ্জ) : কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন করে তিন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ হাসপাতালে মোট ১৮ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন।

পলাশ (নরসিংদী) : নরসিংদীর পলাশে গত কয়েক দিনে ১৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায় কয়েকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। গুরুতর রোগীতে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে এলাকায় ফেরা এক ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে তিনি সেখানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।