ঢাকার বড় রানও মামুলি রংপুরের কাছে


276 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ঢাকার বড় রানও মামুলি রংপুরের কাছে
জানুয়ারি ২৯, ২০১৯ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

রংপুরের খেলোয়াড়দের নামগুলো দেখলেই বোঝা যায়। রংপুর রাইডার্সকে আদতে টেক্কা দেওয়ার মতো দল মেলা ভার। আছে কেবল ঢাকা আর কুমিল্লা। হাতে সেই দুর্দান্ত দল নিয়েও ঢাকা আটকাতে পারলো না রংপুরকে। এবি ডি ভিলিয়ার্স এবং অ্যালেক্স হেলসের ব্যাটিং তান্ডবে দুমড়ে-মুচড়ে গেল তারা। সাকিবদের কিছু বুঝে ওঠার আগেই যেন তাদের ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে উঠে গেল রংপুর রাইডার্স।

রংপুর গড়েছে রান তাড়া করার রেকর্ডও। বিপিএলে রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটা ১৯৮ রান টপকানোর। ২০১৩ সালে সিলেট জিতেছিল রংপুরকে হারিয়ে। এছাড়া ২০১২ সালে ১৯৩ এবং ১৮৯ রান তাড়ার রেকর্ড আছে। রংপুরের ১৮৬ রান তাড়া করে জয়টা বিপিএলের পঞ্চম সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড।

বড় এই রানের লক্ষ্যে ছুটতে বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিম থেকে ওঠা কালবৈশাখির মতো এক ঝড় তোলেন ডি ভিলিয়ার্স। আর দক্ষিণে সাগরের বুক থেকে ওঠা ঘূর্ণিঝড় তোলেন অ্যালেক্স হেলস। এ ঝড়ে বিদীর্ণ হয়ে যায় ঢাকা। দু’জনে ব্যাট হাতে জুটি গড়েছেন ১৮৪ রানের। বিপিএলে যা তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি।

প্রথমে ব্যাট করে ঢাকা এ ম্যাচে ৬ উইকেটে ১৮৬ রানের সংগ্রহ পায়। পরে ব্যাট করতে নামা রংপুর শুরুর দ্বিতীয় ওভারে দলের পাঁচ রানের মাথায় গেইল এবং রুশোকে হারায়। এরপর ক্রিজে এসেই ঝড় শুরু করেন ডি ভিলিয়ার্স। শুরু করেন ধুমধাম মার। ব্যাটে নেমে তিনি স্বস্তিতে থাকতে দেননি সাকিব-রাসেল কিংবা নারিন-রুবেলদের। খেলেন ৫০ বলে পুরোপুরি ১০০ রানের হার নামা ইনিংস।

ভিলিয়ার্স তার দুর্দান্ত ওই ইনিংস খেলার পথে ছক্কা মেরেছেন ছয়টি। সঙ্গে চারের মার আটটি। তার স্ট্রাইক রেট চোখ ধাঁধাঁনো ২০০। এছাড়া অ্যালেক্স হেলস খেলেছেন ৫৩ বলে ৮৫ রানের হার না মানা ইনিংস। তার হাত থেকে বেরিয়েছে তিনটি ছক্কা এবং সাতটি চারের মার। হেলস রান তুলেছেন ১৬০.৩৮ স্ট্রাইক রেটে। আর তারা দু’জন দলকে জিতিয়ে ফিরেছেন হাতে ৯ বল থাকতে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

ঢাকার হয়ে এ ম্যাচে সবাই মোটামুটি ভালো রান করেন। রনি তালুকদার দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩২ বলে ৫২ রান করেন। এছাড়া সাকিব ২৫, নারিন ২৮ এবং পোলার্ড খেলেন ৩৭ রানের ইনিংস। ঢাকার এ ম্যাচে দুইশ’ রানের স্কোর হতে পারতো। তবে রংপুর তাদের সেট ব্যাটসম্যানদের নিয়মিত বিরতিতে তুলে নিলে তাদের রান আর বড় হয়নি। এ জয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে উঠে গেল রংপুর। ছয় জয়ে ১২ পয়েন্ট তাদের। সমান পয়েন্ট কুমিল্লারও। তবে নেট রান রেটে এগিয়ে মাশরাফির দল।