‘তামাদি হয়নি যে ভালবাসা’ : ভারতে সাতক্ষীরার কবি শিমুল পারভীনের প্রকাশনা


651 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘তামাদি হয়নি যে ভালবাসা’ : ভারতে সাতক্ষীরার কবি শিমুল পারভীনের প্রকাশনা
ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

‘জীবনের যতো আনন্দ জমা আছে অ্যাকাউন্টে, তামাদি হয়নি আজও। যতো ভালোবাসা ফুরিয়ে যায়নি, বাসি ফুলের গন্ধ মেখে গায়ে তার সবটুকু, এসো আমি নিঃশেষে খরচ করি এই অবেলায়’ ছন্দময় এমন ৫৬ টি কবিতার গুচ্ছ নিয়ে ‘তামাদি হয়নি যে ভালোবাসা’ প্রকাশিত হয়েছে।

সাতক্ষীরার কবি শিমুল পারভীন রচিত কবিতাগুচ্ছ প্রকাশনার দায়িত্ব নিয়েছে ভারতের আগরতলার ¯্রােত প্রকাশনী। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রি মানিক সরকার ৯ ফেব্রুয়ারি আগরতলা প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে মলাট উন্মোচন করেন ‘তামাদি হয়নি যে ভালবাসা’র।

মুখ্যমন্ত্রি এ সময় বলেন ভাসমান থাকা চলবে না। উঠে ঘুরে রুখে দাঁড়িয়ে আলোর পথের নির্দেশনা দিতে হবে। নইলে ইতিহাস ক্ষমা করবে না আমাদের। ভারতীয় পত্রপত্রিকায় মুখ্যমন্ত্রি কর্তৃক শিমুলের কবিতার বইয়ের মলাট উন্মোচনের ছবি ও খবর প্রকাশিত হয়েছে ১০ ফেব্রুয়ারি।  বইটির প্রচ্ছদ এঁকেছেন বাংলাদেশের ধ্রুব এষ।

সাতক্ষীরার কবি ও সাহিত্যিক শিমুল পারভীন এ যাবত ২৭ টি বই লিখেছেন। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের শোকাবহ দিনের উল্লেখ করে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ধরে রাখতে তিনি ‘রুদ্ধদ্বার’ কবিতায় লিখেছেন ‘সেদিনও ছিল শ্রাবনের এমন অন্তিম দিন। বৃষ্টি ছিল না মানবিক আকাশে, ছিল ভয়াল রক্তপাত’।

শনিবার শিমুল পারভীন হাস্যোজ্জ্বল মুখে এসেছিলেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে। প্রতিটি বইয়ের নাতিদীর্ঘ বিবরন দিয়ে বললেন আরও লিখেছি উপন্যাস ‘শেষ বিকেলের আলো’, ‘অতোটুকু চায়নি বালিকা’, ‘ভেসে যাবে পথের বাতাসে’ ।

লিখেছেন বাটিক শিল্পের প্রথম পাঠ, আবৃত্তির কলাকৌশল, মুক্তিযুদ্ধের বই বিজয়ের স্মৃতিকথা, সংবাদ ও উপস্থাপনা।
বুলবুল ললিতকলা একাডেমির শিক্ষক শিমুল পারভীন একজন রোটারিয়ান।

তিনি দিলকুশা ৩২৮১ রোটারিয়ান জেলার সহকারি সম্পাদক । আটটি শিশুতোষ বইও লিখেছেন শিমুল। ইমরানের গোয়েন্দা কাহিনীর পার্ট ১ ও ২ এবারের বইমেলায় উঠেছে। হোয়াটসন ইউকে থেকে শ্রেষ্ঠ লেখক হিসাবে অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন মাদার তেরিজা অ্যাওয়ার্ডও।

শিমুল পরভীনের কবিতার বইয়ের তালিকায় আরও যুক্ত হয়েছে বিষন্ন গোধূলি, অন্ধকারের উৎস হতে, সোনালী ডানার ভালবাসা, ভালবাসাহীন এই দিন।

‘কখনও কখনও কোনো সুগন্ধি, সুক্ষণে ভালবাসার আনন্দ, হঠাৎ এসে আমার সস্তা কামনা সস্তা চাওয়াকে এক দারুণ দুর্লভে দম্ভে ভরে দিয়েছে’

এভাবেই কবি ‘ভালবাসা’কে হৃদয়ের অনুভবে এনেছেন, আর মনের মন্দিরে আঁকড়ে ধরে ভালবেসেছেন ।  শিমুল পারভীন আরও লিখতে চান কবিতার ছন্দে, ভালবাসার আনন্দে নিজেকে হারিয়ে ফেলতে চান এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বলেন ‘কবিতা মনের গহীনের সব কথা তুলে আনে।

কবিতা আমাদের সোনালী সকাল হয়ে ওঠে। কবিতা তার ছন্দে মানবিকতাকে সমুজ্জ্বল করে তোলে। কবিতা মনে দ্রোহের জন্ম দেয়, পথ দেখায় সুন্দরের, ভালবাসার।
##