তামিমের সেঞ্চুরির পরও দিনটা কিউইদের


467 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তামিমের সেঞ্চুরির পরও দিনটা কিউইদের
ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

দিনের ঝকঝকে রোদ সবসময় ভালো শেষের ইঙ্গিত বহন করে না। ওপেনিং জুটিতে তাই পঞ্চাশ ছাড়ানো জুটি। কিংবা তামিমের সেঞ্চুরির পরও হ্যামিলটন টেস্টের প্রথম দিনটা পক্ষে আসেনি বাংলাদেশের। শুরুতে টস হেরে ব্যাট করা বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম পেয়েছেন দারুণ এক সেঞ্চুরি। তারপরও ২৩৪ রানে অলআউট বাংলাদেশ। পরে কোন উইকেট না হারিয়ে ৮৬ রান তুলে দিন শেষ করেছে কিউইরা। প্রথম ইনিংসে তারা পিছিয়ে আছে মোটে ১৪৮ রানে।

তিন টেস্টের সিরিজের প্রথম ম্যাচে সিডল পার্কে শুরুতে ভালো ব্যাটিং করে বাংলাদেশ দল। তবে শুরুর দুই উইকেট হারানোর পর পথ হারায় মাহমুদুল্লাহর দল। সেঞ্চুরি করে তামিম আউট হওয়ার পর বিপদ আরও বাড়ে দলের। টপ-মিডল অর্ডার কিংবা লোয়ার অর্ডারের অন্যরা সুবিধা করতে পারেননি।

দলের হয়ে ওয়ানডে মেজাজে খেলা তামিম ইকবাল ১২৮ বলে ১২৬ রান করে আউট হন। তিনি ২১ চার ও এক ছক্কায় সাজান তার ইনিংস। তার সঙ্গে থাকা মুমিনুল হক ১২ রানে ফিরে যান। এর আগে ওপেনার সাদমান ২৪ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন। তিনি উদ্বোধনী জুটিতে তামিমের সঙ্গে ৫৭ রানের জুটি গড়েন। নতুন বলের শুরুর ১০ ওভার সামাল দেন চট্টগ্রামের এই দুই বা-হাতি ওপেনার।

মুমিনুলের পর ওয়ানডে সিরিজে ভালো করা মিঠুন ৮ রান করে আউট হন। সৌম্য সরকার এর পরে ফেরেন ১ রান করে। এরপর মাহমুদুল্লাহ ২২ রানে ও মেহেদি মিরাজ ১০ রান করে। লিটন দাস শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ২৯ রান করে আউট হন। নিউজিল্যান্ডের হয়ে নেইল ওয়াগনার ৫ উইকেট নেন। সাউদি নেন তিন উইকেট।

জবাবে প্রথম ইনিংস দুই কিউই ওপেনার দিনের বাকি ২৮ ওভার সহজে পার করেন। জেট র্যাভেল ফিফটি পূর্ণ করেন। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে আগের তিন টেস্টে তিনশ’র রানের উপরে করা হেনরি নিকোলাস খেলেন হার না মানা ৩৫ রানের ইনিংস। কম খরুচে বোলিং করলেও তাদের সামনে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশের বোলারর।

বাংলাদেশ এ ম্যাচে তিন ডানহাতি পেসার এবং এক স্পিনার নিয়ে নামে। টেস্টে অভিষেক হয়েছে পেসার এবাদত হোসেনের। এছাড়া অন্য দুই সিলেটের পেসার খালেদ আহমেদ এবং আবু জায়েদের ওপর আছে বোলিং আক্রমণের ভার। সিরিজের প্রথম টেস্টের দলে নেই বা-হাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তাকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। স্পিন আক্রমণ সামলাতে দলে আছেন মেহেদি মিরাজ। বল হাতে দলকে সৌম সরকারও সহায়তা করতে পারবেন। প্রথম টেস্টে মুশফিক থাকবেন না নিশ্চিতই ছিল। তবে মোহাম্মদ মিঠুন চোট কাটিয়ে দলে ফিরেছেন।