তালার আটারই গ্রামে ঈদগাহ’র জমি জালিয়াতির মাধ্যমে দখল চেষ্টায় জনমনে ক্ষোভ


158 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার আটারই গ্রামে ঈদগাহ’র জমি জালিয়াতির মাধ্যমে দখল চেষ্টায় জনমনে ক্ষোভ
মার্চ ২, ২০২০ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

বি. এম. জুলফিকার রায়হান ::

তালা উপজেলার আটারই গ্রামে অর্ধ শতাধিক বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠিত ঈদগাহ’র জমি জাল জালিয়াতির মাধ্যমে জোর দখল নিতে একটি কূচক্রি মহল পায়তারা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এজন্য ওই মহলটি গ্রামবাসীদের হয়রানীর জন্য নানান অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এঘটনার প্রতিবাদে তালা রিপোটার্স ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় সংবাদ সম্মেলনে এলাকাবাসীর পক্ষে শেখ আব্দুস সবুর লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।
তিনি বলেন, উপজেলার আটারই গ্রামের মৃত মিয়াজান মাহমুদ ও বাছের মাহমুদ সি. এস. রেকর্ড’র সময় জেএল নং : ১৪২, ডিপি খতিয়ান নং : ৭১০, দাগ নং ৫৯/৮৩ এর ৪৩ শতক জমি আটারই গ্রামে ঈদগাহের নামে দান করেন। যার এসএ রেকর্ড ঈদগাহ’র নামে এখনও বহাল আছে এবং এলাকার মুসল্লিরা প্রতি ঈদে সেখানে নামাজ আদায় করেন। কিন্তু ঈদগাহ’র ওই জমি অবৈধ ভাবে দখল নেয়ার জন্য গত মাঠ জরিপে এলাকার হান্নান মাহমুদ জ¦াল কাগজের মাধ্যমে নিজেদের নামে রেকর্ড করিয়ে পরিকল্পিত ভাবে তা নাজির মাহমুদের কাছে বিক্রয় করেদেন। পরবর্ত্তিতে গ্রামবাসীরা ঘটনা জানতে পেরে ন্যক্কারজনক এই ঘটনার প্রতিবাদ জানায় এবং ঈদগাহ রক্ষায় একত্রিত হয়। এতে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ঈদগাহ’র জমি দখল চেষ্টায় মত্ত আটারই গ্রামের নজির মাহমুদের স্ত্রী ফতেমা বেগম গং ক্ষিপ্ত হয়ে গ্রামবাসীদের হয়রানীর জন্য নানাভাবে অপপ্রচার চালিয়ে আসছে। যার ধারাবাহিকতায় গত ২৬ ফেব্রুয়ারী ফাতেমা বেগম সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে প্রতিষ্ঠিত ঈদগাহ ও ঈদগাহ’র পক্ষের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংবাদিক সম্মেলনে করে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ উত্থাপন করে। মূলত এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকৃত তথ্য ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা চালানো হয়েছে। সেখানে তিনি এস এ রের্কডীয় মালিকের নিকট হতে ৫৯/৮৩ দাগে ৪৩ শতক জমি ক্রয় করেছেন মর্মে দাবী করেন, যা সম্পূর্ন মিথ্যা।
সংবাদ সম্মেলনে এলাকার রাজনৈতিক ব্যক্তি সহ সমাজের সম্মানীয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ফতেমা বেগম’র মিথ্যা ও অপমাননাকর তথ্য উপস্থাপন এবং ঈদগাহ’র জমি দখল চেষ্টার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে এলাকার সাধারন মুসল্লীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
এমতাবস্থায় এলাকার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ঈদগাহ রক্ষা পূর্বক এলাকার সাধারণ মানুষ শান্তিপুর্ণ ভাবে বসবাস করতে পারে সেই বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য এলাকাবাসী সংবাদ সম্মেলন’র মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট প্রসাশন’র সুদৃষ্টি কামনা করা হয়। উক্ত সংবাদ সম্মেলনকালে এলাকার বিশিষ্ট রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাধারন মুসল্লীরা উপস্থিত ছিলেন।

#