তালার টিআরএম প্রকল্পে স্যাটালাইট যন্ত্রযুক্ত কচ্ছপ উদ্ধার


2256 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার টিআরএম প্রকল্পে স্যাটালাইট যন্ত্রযুক্ত কচ্ছপ উদ্ধার
মার্চ ১৩, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এম.শাহীন গোলদার/বি. এম. জুলফিকার রায়হান ::
সাতক্ষীরার তালা উপজেলার টিআরএম বিলে মাছ ধরার সময় স্যাটালাইট যন্ত্রযুক্ত ১২ কেজি ওজনের পর্যাবেক্ষনের একটি কচ্ছপ পাওয়া গেছে। কচ্ছপটি উপজেলার দোহার গ্রামের মৃত নাফের শেখের ছেলে শেখ ওহাব উদ্দিন সকাল ৮টায় শ্রীমন্তকাটি নতুন বাজার মাছের আড়তে বিক্রর জন্য নিয়ে আসে।

বাজারের ব্যবসায়ী জাকির হোসেন ও কাইয়ুম শেখ জানানা,পরে স্থানীয় লোকের পরামর্শে তিনি কচ্ছপটি বাড়ি নিয়ে যায়। এ সময় শত শত মানুষ ঐ বাড়িতে কচ্ছপটি দেখতে ভীড় করেন।

পরে খবর পেয়ে খেশরা পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বে থাকা উপ-পরিদর্শক মাজেদ হাওলাদার জানান, তিনি কচ্ছপটি উদ্ধার করে তালা থানায় পাঠিয়েছেন। বর্তমানে তালা থানায় কচ্ছপটি আছে।

কচ্ছপের পিঠে একটি এন্টিনা,একটি জিপিএস ট্রাকার সেট করা আছে এবং একটি স্টীকারে লেখা আছে ID -১৬৫৩৩৭-P০২৭৯২,  PROJECT-BATAGUR BASKA, VIENNA-ZOO, BANGLADESH-২০১৬, SIRTRACK।কচ্ছপটির আনুমানিক ওজন IRb প্রায় ১২ কেজি।

ওসি মো. হাসান হাফিজুর রহমান আরো বলেন, অষ্ট্রিয়ার একটি ওয়াইল্ড লাইফ সংগঠনের সহযোগীতায় বাংলাদেশে বিলুপ্তপ্রায় প্রাণি সংরক্ষনে একটি প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পের আওতায় গত ১২ ফেব্রুয়ারী সুন্দরবনের করমজল থেকে দুটি বিলুপ্তপ্রায় বিরল বাতাগুর বাসকা জাতের কচ্চপের পিঠে স্যাটালাইট ট্রান্সমিটার সিস্টেম সেট করে সাগরে ছেড়ে দেয়া হয়।

এই প্রজাতীর কচ্ছপের স্বভাব, খাদ্যাভ্যাস, বিচরণক্ষেত্র ও জীবনযাপন সম্পর্কে গবেষনার জন্য কচ্ছপ দু’টির পিঠে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার সিস্টেম স্থাপন করা হয়। এদেরমধ্যে এই কচ্চপটি বঙ্গপোসাগর হয়ে কপোতাক্ষ নদের মাধ্যমে গত তালায় এসে ৩দিন ধরে গবেষকদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল।

ওসি জানান, উদ্ধার হওয়া কচ্ছপের পিঠে একটি এন্টিনা এবং একটি জিপিএস ট্রাকার সিস্টেম সেট করা ছিল। এছাড়া কচ্ছপের পিঠে থাকা জিপিএস ট্রাকারের উপর লাগানো স্টিকারে আইডি ১৬৫৩৩৭ পি০২৭৯২,  PROJECT-BATAGUR BASKA, VIENNA-ZOO, BANGLADESH-২০১৬, SIRTRACK   লেখা ছিলো।  কচ্ছপটির আনুমানিক ওজন IRb প্রায় ১২ কেজি।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো.মহিউদ্দিন জানান, দ্রুত কচ্ছপটি উদ্ধার করে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

##