তালার দূর্বৃত্ত ওহাব আলীর মিথ্যা মামলার শিকার হলেন মানবাধিকার কর্মী


555 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার দূর্বৃত্ত ওহাব আলীর মিথ্যা মামলার শিকার হলেন মানবাধিকার কর্মী
এপ্রিল ১৫, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান ::
হত্যা, চাঁদাবাজী, প্রতারনা, হামলা, ভাংচুর ও হত্যার চেষ্টা সহ একাধিক মামলার আসামী তালার গৌতমকাটি গ্রামের ওহাব আলীর বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে পড়েছে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও মানবাধিকার কর্মী এজাজ আহম্মেদ জনি সহ এলাকার একাধিক নিরিহ ব্যক্তি। মামলার বাদীদের শায়েস্তা করে নিজে মামলা থেকে বাঁচা, হামলা, মামলা ও হুমকি, একাধিক নিরিহ ব্যক্তিকে মিথ্যা মামলায় আসামী করে এলাকায় ত্রাসের রামরাজত্ব কায়েম করতে ওহাব আলী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার সাধারন নিরিহ মানুষ উর্দ্ধতন পুলিশ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
একাধিক সূত্রে জানাগেছে, তালা উপজেলার গৌতমকাটি গ্রামের মৃত নওয়াব আলী শেখ’র পুত্র ওহাব আলী শেখ একজন পেশাদার দূর্বৃত্ত। সে দীর্ঘ বছর ধরে মানব পাচার, প্রতারনা সহ নানাবিধ অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে। সে এলাকার দূর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ক্রসফায়ারে নিহত মোজাফ্ফর ও একাধিক সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে দীর্ঘদিন সক্রীয়ভাবে জড়িত ছিল। ওহাবের বিরুদ্ধে ঢাকার ভাটারা থানায় হত্যা মামলা (নং : ৩৬, তাং : ৩০/০৪/১৪ ইং), ঢাকার বিমানবন্দর থানায় প্রতারনা ও জাল-জালিয়াতি মামলার মামলা (নং : ৩৯, তাং : ১৯/০৯/১৩ ইং) রয়েছে। এছাড়া দূর্বৃত্ত ওহাব সহ তার বাহিনীর সদস্যরা গোতমকাটি গ্রামের তাছলিমা পারভীনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও একাধিক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় তালা থনায় মামলা (নং : ১৩, তাং : ২৭/০২/১৭ ইং) সহ আরো একাধিক মামলা রয়েছে। যার অধিকাংশ মামলায় ওহাবের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের হয়েছে।
গোতমকাটি গ্রামের রেনুকা বেগম, ওমর সরদার, সাতপাকিয়া গ্রামের আলম সরদার, মিজানুর রহমান ও কবির হোসেন সহ একাধিক ব্যক্তি জানান, ওহাব আলী শেখ একজন পেশাদার প্রতারক ও দূর্বৃত্ত। হত্যা সহ একাধিক মামলায় সে বারবার জেল খেটে বাড়ি এসে ফের সাধারন মানুষের উপর হামলা, হুমকি দিয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তার এসব অপকর্মে বাঁধা দেওয়ায় বিভিন্ন সময় ওহাব এলাকার মানুষকে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরকারী বাদীদের হয়রানী সহ হুমকি প্রদান করে।  হুমকির বিষয়ে ওহাব আলীর বিরুদ্ধে তালা থানায় জিডি হয় এবং তদন্তে হুমকির বিষয় নিশ্চিত হওয়ায় ওহাব গংদের বিরদ্ধে প্রসিকিউশন (০৪/১৭) দায়ের করেছে।
এদিকে, ওহাব আলীর বিরুদ্ধে অন্যের জমি দখিল, প্রতারনা, খুন সহ তার নানাবিধ সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় সুচতুর ওহাব আলী সম্প্রতি তাঁর কাচা ঘর ও বাথরুম নিজে ভেঙ্গে এবং আগুনে পুড়িয়ে দিয়ে তালা থানায় একাধিক ব্যক্তির নামে মিথ্যা মামলা দায়েরের চেষ্টা করে। তালা থানা পুলিশ ঘর ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ’র বিষয়ে তদন্ত করে ঘটনাটি মিথ্যা হওয়ায় মামলা রুজু করেননি। এরপূর্বে ওহাব আলী খুলনার ডুুমরিয়া থানার আরশনগর গ্রাম থেকে নিজ মেয়েকে অপহরন করা হয়েছে বলে একটি নাটক সাজিয়ে সে মানবাধিকার কর্মী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গৌতম কাঠি গ্রামের এজাজ আহম্মেদ জনি, তার ভাই মিঠুন শেখসহ ৩জনের বিরুদ্ধে ডুমুরিয়া থানায় একটি মিথ্যা মামলা (০৭/১৩৪ তাং : ০৬/০৪/১৭ ইং) দায়ের করেন। এই মামলার আসামী এজাজ আহম্মেদ জনি গংদের সাথে ওহাবের পূর্ব বিরোধ রয়েছে এবং ওহাব আলীর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করেন, যা’ বিজ্ঞ আদালতে চলমান রয়েছে। মূলত মামলা দায়ের এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় ওহাবের আলী কৌশলে ডুমুরিয়া থানায় মামলাটি দায়ের করে। বর্তমানে দূর্বৃত্ত ওহাব ও তার পোষ্য লোকজন এলাকায় জমি দখল চেষ্টা, হত্যার চেষ্টা, হুমকি, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো সহ নানাবিধ অপকর্ম করায় এলাকার মানুষ আতংকের মধ্যে রয়েছে।

###