তালার মাগুরায় উপজেলা চেয়ারম্যান সনৎ ঘোষ অবরুদ্ধ হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ


360 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার মাগুরায় উপজেলা চেয়ারম্যান সনৎ ঘোষ অবরুদ্ধ হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ
মার্চ ২৩, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা :
তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার, মাগুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদ্য বিজয়ী ইউপি চেয়ারম্যান গনেশ দেবনাথসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগে নেতা-কর্মীদের উপর হামলা চালানোর অভিযোগ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

মাগুরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ওয়ার্কার্স পার্টির দলীয় পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী হিরন্ময় মন্ডল ও তার সমর্থকরা এই হামলা চালায় বলে তাদের অভিযোগ। হামলাকারীরা একপর্যায়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে অবরুদ্ধ করে রাখে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ প্রায় ৪ ঘন্টা পর উপজেলা চেয়ারম্যানকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা ডিবি কার্যলয়ে নিয়ে যায়। এরপূর্বে উপজেলা চেয়ারম্যান ও তাঁর লোকজনের উপর হামলাকালে হামলাকারীদের উপর পাল্টা হামলা চালানো হয়। হামলা-পাল্টা হামলায় কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়।

এদিকে, মাদরা স্থানীয় ওয়ার্কার্স পার্টি নেতাদের কথামত পুলিশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারমানকে সাতক্ষীরা ডিবি কার্যলয়ে নিয়ে যাবার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে তালার আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরা সহ সর্বস্তরের মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তারা ঘটনার প্রতিবাদে রাত সাড়ে ৯টার দিকে সাতক্ষীরা ডিবি অফিসে যাবার প্রাক্কালে পথিমধ্যে ত্রিশমাইল নামক স্থানে পুলিশ ব্যারিকেট দিয়ে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ রাত ১০টার দিকে উপজেলা চেয়ারম্যানকে নিরাপদে বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করে দেয়।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানান,  তালার রমাদরা সার্বজনীন কালীপুজা উপলক্ষে বুধবার দুপুর থেকে মন্দিরে কবিগান চলছিল। দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, নবনির্বাচিত মাগুরা ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা গনেশ চন্দ্র দেবনাথ ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাদরা গ্রামের সন্দীপ রায়কে নিয়ে মন্দির এলাকায় আসেন। এসময় কবি গানের মঞ্চে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সদ্য বিজয়ী ইউপি চেয়ারম্যানকে পরিকল্পিত ভাবে অবজ্ঞা করা হয়। এনিয়ে ওয়ার্কাস পার্টি নেতা হিরন্ময় মন্ডলের লোকজনের সাথে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা গনেশ দেবনাথ, দেবাশিষ মূখার্জীর বাকবিতন্ডা হয়। এর একপর্যায়ে ওয়ার্কার্স পার্টির লোকজন গনেশ দেবনাথ ও দেবাশী ব্যানার্জীসহ তাদের উপর হামলা করে। এ সংবাদ পেয়ে আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরা ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা-কর্মীদের উপর পাল্টা হামলা করে। হামলায় ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা হিরন্ময় মন্ডল সহ আওয়ামীলীগ নেতা গনেশ দেবনাথ ও দেবাশীষ মূখার্জী সহ কমপক্ষে ১০জন আহত হয়। গুরুতর আহতাবস্থায় আওয়ামীলীগ নেতা গনেশ দেবনাথ এবং দেবাশীষ মূখার্জী পালিয়ে রক্ষা পান। অপরদিকে ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা হিরন্ময় মন্ডলের নেতৃত্বে গ্রামবাসী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এঘটনার খবর পেয়ে সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার আতিকুর রহমান, তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছগির মিঞা, উপ-পরিদর্শক এনামুল হোসেন, সহকারি উপপরিদর্শক প্রকাশ সরকার ও বিজিবি সদস্যরা মাদরা বাজারে এসে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমারকে উদ্ধার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। সেখান থেকে রাতে তাকে মুক্ত করা হয়।

এদিকে তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমারকে পরিকল্পিত ভাবে হয়রানী, অপদাস্থ এবং মাগুরায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাদের উপর হামলার ঘটনায় স্থানীয় সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) সংসদ সদস্য ও ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ’র ইন্ধন রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তালা উপজেলা আওয়ামীলীগ।
বুধবার  রাত ১১টার সময় পাটকেলঘাটা বলফিল্ড মোড় এলাকায় আকে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম। এসময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর জাকির হোসেন সহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা বক্তৃতা করেন। সমাবেশ থেকে ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা ও সংসদ সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহকে তালা উপজেলার সর্বত্র অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়েছে।