তালার মাগুরা ইউনিয়ন কৃষকলীগের কমিটি গঠন নিয়ে নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ


297 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার মাগুরা ইউনিয়ন কৃষকলীগের কমিটি গঠন নিয়ে নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ
ডিসেম্বর ৫, ২০২০ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান ::

তালার মাগুরা ইউনিয়ন কৃষকলীগের কমিটি গঠন নিয়ে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে। বলরামপুর গ্রামের জামায়াত কর্মী লিটন মোড়লকে কৃষকলীগের মাগুরা ইউনিয়নের নেতা বানানোকে কেন্দ্র করে ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মাঝে এখন ক্ষোভ বিরাজ করছে। লিটনের বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীদের বহনকারি গাড়িতে হামলা চালানো সহ সে সক্রিয়ভাবে জামায়াত ইসলামীর রাজনীতিতে জড়িত ছিল বলে দলের একাধিক নেতা অভিযোগ তুলেছে। এবিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পর্যায়ে অভিযোগ জমা দেয়া হয়েছে।
উপজেলার মাগুরা ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তফা জানান, ১৯৯৬ সাল থেকে তিনি মাগুরা ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালে তাকে আহবায়ক করে একটি সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটি থাকাবস্থায় হটাৎ করে দেবব্রত দেবনাথকে আহবায়ক এবং লিটন মোড়লকে যুগ্ম আহবায়ক করে কিছুদিন আগে নতুন কমিটি ঘোষনা হয়। ৬ ডিসেম্বর বালিয়াদহ স্কুল মাঠে কথিত এক সম্মেলনের মাধ্যমে দেবব্রতকে সভাপতি এবং লিটন মোড়লকে সাধারন সম্পাদক ঘোষনা করে ইউনিয়ন কৃষকলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষনা করা হবে- এমন পরিকল্পনা ইতোমধ্যে উপজেলা নেতৃবৃন্দ গ্রহন করেছে।
গোলাম মোস্তফা বলেন, ৬ ডিসেম্বরের কথিত সম্মেলনে লিটন মোড়লকে ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক করা হবে- এমন তথ্য প্রচার হবার পর থেকে দলের নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি জানান, ২০১৪ সালে সাতক্ষীরায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় যাবার প্রাক্কালে কুমিরা বাজারে লিটন সহ বিএনপি এবং জামায়াতের অন্যান্য ক্যাডাররা হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাংচুর করে। পরবর্তীতে লিটন মোড়ল কৌশলে মাগুরার কতিপয় আওয়ামীলীগ নেতার ছত্রছায়ায় আওয়ামী লেবাস ধারন করে এলাকায় নানান অপকর্মে লিপ্ত হয়। জামায়াত ইসলামী থেকে রাতারাতি ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা আর এখন ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক পদ বাগিয়ে নেয়ার বিষয়ে ইতোমধ্যে সাতক্ষীরা জেলা কৃষকলীগের সভাপতি ও সম্পাদক সহ সংগঠনের বিভিন্ন নেতাদের কাছে গোলাম মোস্তফা অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে লিটন মোড়ল বলেন, আমার ব্যপারে আমাদের ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি, সম্পাদক এবং জেলা কৃষকলীগের সভাপতির কাছে জানলে সব পাওয়া যাবে। এব্যপারে তালা উপজেলা কৃষকলীগের সদস্য সচিব ইন্দ্রজিৎ সাধু জানান, লিটন জামায়াত ক্যাডার ছিলনা। পদ না পেয়ে ইউনিয়নের একটি মহল তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।
তবে তালা উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক শংকর দাস বলেন, লিটন মোড়ল জামাত ক্যাডার এবং একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী। সে যদি কৃষকলীগের ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক হয় তবে দলের ভাবমূর্তী ক্ষুন্ন হবে। এবিষয়ে তালা উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা দেবাশীষ মূখার্জ্জী তাঁর ফেসবুক আইডিতে লিটন মোড়লকে জামায়াত ক্যাডার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় অংশগ্রহনে যাওয়া দলীয় নেতা-কর্মীদের গাড়িতে হামলা চালানোর বিষয় উল্লেখ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

#