তালার মানিকহারে আম্পানে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি, বিদ্যুতহীন ভূতুড়ে এলাকা


148 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার মানিকহারে আম্পানে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি, বিদ্যুতহীন ভূতুড়ে এলাকা
মে ২৩, ২০২০ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

শাহিদুর রহমান (শাহিন) ::

দেশে প্রায় ২০০ বছরের রেকর্ড অতিক্রম করল ঘুর্ণিঝড় আম্পান। গাছপালা, ঘরবাড়ি, বিদ্যুৎ সবকিছু তচনছ করে চলে গেছে আম্পান। প্রায় ১০ থেক ১২ ঘন্টা সময়ের স্থায়ী এ ঝড় সাতক্ষীরাকে মাড়িয়ে রেখে গেছে। আমের রাজধানী সাতক্ষীরা এখন আমের স্তুপে পরিণত। আম কুড়ানোরও মানুষ নেই।

তালা উপজেলার মানিকহার ও এর আশেপাশেও হয়েছে ব্যপক ক্ষয়-ক্ষতি। মানিকহারের অধিকাংশ কাঁচা ও আধাপাকা ঘরবাড়ি চুরমার হয়েছে।বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে ও বেশ কিছু কারেন্টের খুটি ভেঙে পড়ে বিদ্যুতহীন অন্ধকারে ভূতুড়ে এলাকায় পরিনত হয়েছে মানিকহার গ্রাম। এখনো কয়দিন এ অবস্থায় কাটাতে হবে অনিশ্চয়তায় গ্রাম্য এলাকার মানুষ। ঈদের কয়েকদিন আগে হওয়ায় অনেক পরিবারের মাঝ থেকে উঠে গেছে ঈদের আনন্দ।

তালার ধানদিয়া ইউনিয়নের মানিকহার সহ অধিকাংশ গ্রাম গুলোতে এরকম সব চিত্র দেখা গেছে।

এদিকে এসব সার্বিক অবস্থা মানিকহার গ্রাম ঘুরে পরিদর্শন করেন মেম্বর ডা: আব্দুল হান্নান। এসময় তিনি ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে বলেন,ভয়াবহ এই ঘূর্ণিঝড় আম্পানে মানিকহার গ্রামে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে।রাস্তার ওপর অসংখ্য গাছ উপড়ে পড়ে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল।রাস্তার উপর থেকে গাছ সরিয়ে নেওয়ার ফলে চলাচলের পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হয়েছে । বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়েছে, ছিড়ে গেছে বিদ্যুতের লাইন। মানুষের ঘরবাড়ি, ফসলি জমির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক।এসময় তিনি এলাকায় অতি দ্রুত বিদ্যুত সংযোগ ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের জন্য সহযোগিতার দাবী জানান উদ্ধর্তন কতৃপক্ষের কাছে।

সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার সন্তোষ কুমার সাহা জানান,ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে প্রবল ঝড়ে ভেঙে গিয়েছে বিদ্যুতের খুঁটি, ছিঁড়ে গিয়েছে বৈদ্যুতিক তার।আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি যাতে করে দ্রুত বিদ্যুত সংযোগ সচল করতে পারি।

#