তালার শালিখা বাজারে যাত্রার নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য !


2216 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার শালিখা বাজারে যাত্রার নামে চলছে অশ্লীল নৃত্য !
মে ৬, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি.এম. জুলফিকার রায়হান, তালা ::
তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামে কবি সিকান্দার আবু জাফর মেলায় যাত্রা ও পুতুল নাচের নামে অশ্লীল নৃত্য এবং সর্বনাশী র‌্যাফেল ড্র শেষ হতে না হতেই এবার একই উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের শালিখা বাজারে যাত্রার নামে চালানো হচ্ছে অশ্লিল নৃত্য। ৫দিন ধরে চলমান এই তথাকথিত যাত্রার আড়ালে চলা নর্তকীদের খোলামেলা দেহ দেখতে ভিড় জমাচ্ছে ওই এলাকা সহ বিভিন্ন এলাকার তরুন, যুবক এবং মধ্য বয়সী নারীর দেহ লোভী পুরুষরা।

এদিকে যাত্রাস্থলে জুয়া এবং লটারী খেলা চালানোর জন্য আয়োজক কমিটি প্রস্তুতি সম্পন্ন করে প্রশাসনের অনুমোতি নিতে দৌড়-ঝাপ শুরু করায় সাধারন মানুষের মাঝে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে শংকিত হয়ে পড়ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার সচেতন একাধিক ব্যক্তি জানান, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য যাত্রা পালার নামে শালিখা বাজারে যা চলছে, তাতে পরিবার পরিজনের সামনে মুখ দেখানো লজ্জাকর হয়ে দাড়িয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে একদিকে সামাজিক এবং অন্যদিকে নৈতিকতার চরম অবক্ষয় হবে।

মান-সম্মান নিয়ে সমাজে চলাফেরা দায় হয়ে যাবে। সামাজিক পরিবেশ এবং বাঙ্গালী সংস্কৃতি রক্ষার জন্য এলাকার সুশিল সমাজ নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এই যাত্রার নামে অশ্লিল নৃত্য বন্ধ সহ জুয়া বা লটারীর সুযোগ সৃষ্টি না করে দেবার জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক সহ পুলিশ সুপারের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

উল্লেখ্য, মুড়াগাছা এলাকার সরকার দলীয় নেতা আল মামুন তাজ’র নেতৃত্বে শালিখা বাজারে চালানো হচ্ছে তথাকথিত যাত্রা! মনিরামপুরের “আনন্দ অপেরা” নামের যাত্রা প্রতিষ্ঠান এখানে যাত্রা মঞ্চ তৈরি করেছে। কিন্তু যাত্রার মঞ্চে নামকাওয়াস্তে যাত্রা চলে আর সারারাত চলে অশ্লিল নৃত্য। আর যুব সমাজকে আকৃষ্ট করে  অশ্লীল নৃত্য দেখানোর জন্য দিন থেকে রাত পর্যন্ত মাইকে প্রচার করা হয় রসালো জাতের বচন।

আসুন! আসুন! মাথায় নষ্ট! মাত্র ১০০ টাকায় পাবেন আকাশ থেকে নেমে আসা এক ঝাঁক ডানাকাটাপরির ঝুমুর ঝুমুর নাচ! যা’ না দেখলে মিস করেবেন মামা। এধরেনর লোভনীয় প্রচারে সাড়া দিয়ে যাত্রা মঞ্চে প্রবেশ করার পর যাত্রা কমিটি আবার মাইকে প্রচার করে- যা’ চাইবেন তাই পাবেন। তবে মোবাইলে কেউ ভিডিও করবেন না।

তাহলে কমিটির লোক আপনার মোবাইল কেড়ে নিয়ে আপনাকে মাঠ থেকে বের করে তিতে বাধ্য হবে। দর্শকদের উপর ভিডিও ধারনে এধরনের ভয় দেখিয়েই শুরু করা হয় নারীদের নগ্ন নৃত্য। নগ্ন নৃত্যকালে যে যুবক নর্তকীকে টাকা দেয়, সেই যুবককে মন উজাড় করে সব কিছু সপে (!) দিচ্ছে নর্তকীরা।

সেটা মঞ্চের পাশে চেয়ারে বসা দর্শক হোক বা জমিনে থাকা দর্শক। যাত্রার নামে নর্তকীদের এমন খোলামেলা দেহ দেখতে আর টাকা দিয়ে নর্তকীদের দেহ স্পর্শ করতে দিন দিন সেখানে দর্শক নামধারী নারী দেহ লোভীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে ক্ষোভ বাড়ছে সুষ্ঠ ধারার সাংস্কৃতিক মনা মানুষ সহ সচেতন মানুষদের।

এ ব্যাপারে  উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ফরিদ হোসেন ভয়েস অব সাতক্ষীরাকে জানান, অর্ধ নগ্ন যাত্রার বিষয়টি আমি জেনেছি। শনিবার থেকে যদি এ ধরনের অশ্লীলতা দেখি তা হলে যাত্রার অনুমতি বাতিল করা হবে।

তালা থানার অফিসার ইনচার্জ হাসান হাফিজুর রহমান ভয়েস অব সাতক্ষীরা কে জানান, অশ্লীল নৃত্যের বিষয়টি আমি শুনেছি।  আজ থেকে যাতে  অশ্লীল নৃত্য না হয় তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।
##