তালার ১২টি ইউনিয়নে নৌকার হাল ধরতে চান ৫০ নেতাকর্মী


452 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালার ১২টি ইউনিয়নে নৌকার হাল ধরতে চান ৫০ নেতাকর্মী
ফেব্রুয়ারি ১, ২০২১ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক রিপোর্ট ::

সাতক্ষীরা জেলার অন্যতম উপজেলা তালা। এই উপজেলাটি ২টি থানা যথাক্রমে তালা ও পাটকেলঘাটা নিয়ে ১২ ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত। এই উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টির মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। বর্তমান টানা ৩ বার ক্ষমতায় থাকা রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকার মনোনয়ন পেতে প্রার্থীরা করছেন নানান লবিং গ্রুপিং। জোর লবিং-গ্রুপিংয়ের পাশাপাশি ওইসব নেতাকে খুশি রাখতে প্রার্থীরা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা।

তবে দলের হাইকমান্ডের নির্দেশ না আসা পর্যন্ত রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতারা প্রার্থী দেয়ার ব্যাপারে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি। এদিকে উন্নয়ন বঞ্চিত এ উপজেলার আশা-নিরাশার দোলাচলে দোলা সাড়ে ৫ লক্ষাধিক সাধারণ ভোটার তাদের যোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে শুরু করেছেন চুলচেরা বিশ্লেষণ।

গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তালা উপজেলা ১২টি ইউনিয়নের মধ্য বিদ্রোহীসহ ১০টিতে আওয়ামী লীগের ও ২জন বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী লাভ করেন। এবার ১২টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হতে মাঠে আছেন প্রায় ৫০জন প্রার্থী।

ধানদিয়া ইউয়িনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতা গাজী হামিজউদ্দীন, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক সন্তোষ কুমার বিশ্বাস, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার শহিদুল ইসলাম, ছাত্র নেতা দিদারুল আলম ও ছাত্র নেতা খান আফজাল হোসেন। ধানদিয়া ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৫ হাজার ৯৩৮জন, এদের মধ্যেপুরুষ ৭ হাজার ৮৮৪জন ও মহিলা ভোটার ৮হাজার ৫৪জন। ২০১৬ সালের ২২ মার্চ নির্বাচনে তালা উপজেলার ধানদিয়া ইউনিয়নে জাহাঙ্গীর আলম ধানেরশীষ প্রতীকে ৭২৯০ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। অপর দিকে নৌকা প্রতীক নিয়ে অধ্যাপক সন্তোষ বিশ্বাস ৫৫৪৭ ভোট পান।

নগরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাচ্ছেন নগরঘাটা ইউনিয়নের আ’লীগের কামরুজ্জামান লিপু, মনোরঞ্জন কুমার ও আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরদার। নগরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার ১৬ হাজার ৩৫৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৮ হাজার ২৬৭ জন ও মহিলা ভোটার ৮ হাজার ৮৭ জন। বিজয়ী হন কামরুজ্জামান লিপু।

সরুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনিয়ন থেকে বার বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. মতিয়ার রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস আতিয়ার রহমান, তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শিক্ষক শেখ আবদুল হাই, শিক্ষক নেতা আবদুর রব পলাশ, তালা উপজেলা কৃষকলীগের সাবেক সদস্য সচিব প্রভাষকআমিনুজ্জামান, তালা উপজেলা কৃষকলীগের সদস্য সচিব কুমার ইন্দ্রজিৎ সাধু ও তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান সুমন। সরুলিয়া ইউনিয়ন ভোটার সংখ্যা ২৭৮৫৭জন, এদের মধ্যে পুরুষ ১৩ হাজার ৯২১ ও মহিলা ভোটার ১৩ হাজার ৯৩৬ জন। ২০১৬ সালের ২২ মার্চ নির্বাচনে তালা উপজেলার সরুলিয়া ইউনিয়নে মো. মতিয়ার রহমান নৌকা প্রতীকে ৯১৩১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন, বিএনপি নেতা সরদার মুজিবর রহমান ধানেরশীষ প্রতীকে ৫৯৭০ ভোট, জাতীয় পার্টির নেতা এসএম আলাউদ্দীন ১৪৮৫, জামায়াত নেতা প্রভাষক গাজী সুজায়েত আলী ২৭৭৩ ও রাশেদুল হক রাজু ২৪৪ ভোট পান।

কুমিরা ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাচ্ছেন, কুমিরা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নেতা রফিকুল ইসলাম, বর্তামান চেয়ারম্যান শেখ আজিজুল ইসলাম, শেখ শাহাবাজ আলী ও কাজী নজরুল ইসলাম হিল্লোল। মোট ভোটার সংখ্যা ২০১৬ সালের তথ্য অনুযায়ী কুমিরা ইউনিয়নের ১৭হাজার ৫২৮জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ৮হাজার ৮০০জন ও মহিলা ৮,৭২৮জন। ২০১৬ সালের ২২ মার্চ নির্বাচনে শেখ আজিজুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪৭৫৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। অপর দিকে গোলাম মোস্তফা ধানের শীষ প্রতীকে ২৯৭৭ ভোট ও প্রভাষক ইদ্রিস আলী ৮৯৭ ভোট পান।

তেতুঁলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন তেঁতুলিয়া ইউনিয়নে আ’লীগের আবুল কালাম আজাদ, বর্তমান চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, মোস্তাক আহমেদ। এই ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা তেতুলিয়া ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ১৮হাজার ৯৮০জন, এদের মধ্যে পুরুষ ৯হাজার ৩৭৪জন ও মহিলা ৯হাজার ৬০৬জন। ২০১৬ সালের ২২ মার্চ ইউপি নির্বাচনে তালা উপজেলার তেতুলিয়া ইউনিয়ন থেকে নির্বাচিত চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬৫১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন অপর দিকে জামায়াত প্রার্থী আফতাপ হোসেন পান ৪৯৫১ জাতীয় পার্টি প্রার্থী মকবুল হোসেন পান ৩০০৬ ভোট।

তালা সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দোড়ঝাপ শুরু করেছেন জেলা পরিষদ সদস্য সাংবাদিক মীর জাকির হোসেন ও সরদার জাকির হোসেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এড. আব্দুর রহমান। তালা সদর ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ২৮ হাজার ৫১৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৩২০ জন ও মহিলা ভোটার ১৪ হাজার ১৯৭ জন।

ইসলামকাটি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাচ্ছেন, ইসলামকাটি ইউনিয়নে আ’লীগের সুভাষ কুমার সেন, শেখ আবদুল আজিজ, শেখ আফতাব হোসেন। ইসলামকাটি ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ১৮ হাজার ১২৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ২৪৯ জন ও মহিলা ভোটার ৮ হাজার ৮৪৭ জন। গত নির্বাচন বিজয়ী হন আওয়ামীলীগের সুভাষ চন্দ্র সেন।

মাগুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন, মাগুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গনেশ দেবনাথ আবারও নির্বাচনে অংশ নেবেন। একইভাবে দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় রয়েছেন তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম টুটুল ও মাগুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উত্তম সেন (বাবু লাল), সুনীল দাশ। মাগুরা ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ১৮ হাজার ৭৫১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৫৭৬ জন ও মহিলা ভোটার ৯ হাজার ১৭৫ জন।

খলিষখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দোড়ঝাপ শুরু করেছেন মোজাফ্ফর রহমান, প্রবীণ নেতা অশোক লাহিড়ী ও সমীর কুমার দাস, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম। খলিশখালী ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ৪০৩জন, এদের মধ্যে পুরুষ ৯ হাজার ৮৮৬ ও মহিলা ৯ হাজার ৫১৭ জন। ২০১৬ সালের ২২ মার্চ ইউপি নির্বাচনে তালা উপজেলার খলিষখালী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মো. মোজাফ্ফর রহমান ৫৩৭৬, বিএনপির প্রার্থী নুর আহম্মদ ধানের শীষ প্রতীকে ৪০৫২ ভোট, ওয়ার্কাস পাটির অধ্যাপক সাব্বীর হোসেন হাতুড়ি প্রতীক ৩৮০৭ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী অশোক লাহড়ী ১৭৯৯ ও হাজী সুলতান আহম্মেদ ৫১৮ ভোট পান।

খেশরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন, বর্তমান চেয়ারম্যান রাজিব হোসেন রাজু। মাঠে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম এবং খেশরা ইউপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও তালা উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম লালটু। খেশরা ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ২৩ হাজার ৬০৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২ হাজার ১৫৫ জন ও মহিলা ভোটার ১১ হাজার ৪৪৯ জন।

জালালপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দোড়ঝাপ শুরু করেছেন, জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সর্বশেষ ইউপি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী রবিউল ইসলাম (মুক্তি) এবং জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিত দাস বাপি, যুবলীগনেতা আবু সাইদ মিঠু, এছাড়া এমএ গফফার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইবেন বলে জানা গেছে। জালালপুর ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ২০ হাজার ৯৩৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৭৬৩ জন ও মহিলা ভোটার ১০ হাজার ১৭৪ জন।

খলিলনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিতে চান বর্তমান চেয়ারম্যান আজিজুর ইসলাম রাজু। সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা দেবব্রত রায় দেব। খলিলনগর ইউপি নির্বাচনে মোট ভোটার ২৬ হাজার ১১৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার ৩৯৮ জন ও মহিলা ভোটার ১২ হাজার ৭২১ জন।

তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার জানান, দলের মনোনীত প্রার্থী বাছাইয়ের ব্যাপারে সিলেকশনে বিষয়ে আমাদের এবার নাম প্রেরন করার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে মনোনয়ন নিশ্চিত করা হবে।