তালায় এক ব্যক্তির পাওনা টাকা আত্নসাৎ করে ভারতে পাড়ি জমানোর অপচেষ্টা !


187 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় এক ব্যক্তির পাওনা টাকা আত্নসাৎ করে ভারতে পাড়ি জমানোর অপচেষ্টা !
জানুয়ারি ১০, ২০১৯ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

পাওনা টাকা চাওয়ায় সাতক্ষীরার তালায় সুকুমার মন্ডল নামে এক ব্যক্তি এবার পাওনাদারের বিরুদ্ধেই নানা ধরনের ষড়যন্ত্রে নেমেছেন। তালা সদরের সাংবাদিক-ব্যবসায়ীর কাছে থেকে জমি দেওয়ার কথা বলে ছয় লক্ষ টাকা হাতিয়ে টাকা অথবা জমি কোনটাই না দিয়ে তিনি ভারতে পাড়ি জমানোর চেষ্টা করছেন।
গোপনে দেশের সমুদয় সহায়-সম্পত্তি বিক্রি করার পায়তারা করছেন বলেও রয়েছে অভিযোগ। যার ধারাবাহিকতায় ইতোমধ্যে পরিবারের সব সদস্যদের ভারতে পাঠিয়ে ও দিয়েছেন। বিশেষ করে ভারতে স্থায়ী হতে তার দু’মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন ভারতে।সর্বশেষ প্রায় দু’মাস পূর্বে সেঝ মেয়েকে ভারতের বর্ধমান জেলায় বিয়ে দিয়ে এবার নিজে স্ব-পরিবারে ভারতে পাড়ি জমাতে চেয়েছিলেন।

ধারণা করা হচ্ছে,পাওনাদারদের ফাঁকি দিয়ে স্থাবর-অস্থবর সব কিছু বিক্রি করে গোপনে পাড়ি জমাবেন ভারতে। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে সদরের পাওনাদার ঐ ব্যবসায়ী ও তালা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক তপন চক্রবর্তী বুধবার সকালে তালা থানায় সুকুমারের বিরুদ্ধে পাওনা টাকা আদায়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। খবর পেয়ে ধুরন্দর সকুমার বিষয়টি ভিন্নখাতে নিতে তপনের বিরুদ্ধে এলাকায় নানাবিধ কুৎসা রটিয়ে বেড়াচ্ছেন, হুমকি দিচ্ছেন তার বিরুদ্ধে নানাবিধ মিথ্যা মামলায় হয়রাণির। সর্বশেষ এমন অবস্থায় নিরুপায় তপন তালা থানায় পাওনা টাকা আদায় ও নিজের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সুকুমারের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

অভিযোগে জানাগেছে, তালা উপজেলা সদরের ঠিকাদারী প্রতিষ্টান মেসার্স রাকা এন্টারপ্রাইজের মালিক সাংবাদিক তপন চক্রবর্তীর নিকট থেকে জমি রেজিষ্ট্রি করে দেওয়ার কথা বলে ছয় লক্ষ টাকা নেয় তালা উপজেলার কাটবুনিয়া গ্রামের মৃত বাবু রাম মন্ডলের ছেলে অভিযুক্ত সুকুমার মন্ডল। গতবছরের নভেম্বর মাসের ৫ তারিখে তিন শত টাকার ননজুডিশিয়াল ষ্ট্যামে স্বাক্ষর করে তিনি ঐ টাকা গ্রহন করেন। এরপর নির্দিষ্ট সময় উত্তীর্ণ হওয়ায় জমি অথবা টাকা ফেরৎ চাইলে সুকুমার মন্ডল নানা ধরনের তালা বাহানা শুরু করে। একপর্যায়ে চলতি বছরের ৮ জানুয়ারী সুকুমার মন্ডলের বাড়িতে টাকা চাইতে গেলে তপনকে টাকা দিতে পারবে না বলে উপরন্তু নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেন।

মেসার্স রাকা এন্টারপ্রাইজের মালিক তপন চক্রবর্তী জানান, সুকুমার মন্ডল তার মহাজনের দেনা ও মেয়ে বিয়ে দেওয়ার জন্য তার কাছে থেকে ছয় লক্ষ টাকা নিয়েছেন। ঐ টাকায় একমাস ২০ দিন আগে তার মেয়েকে ভারতের বর্ধমানে বিয়েও দিয়েছেন। এখন টাকা ও জমি না দিয়ে সুকুমার মন্ডল ভারতে পাড়ি জমানোর চেষ্টা করছেন। এনিয়ে তিনি তালা থানায় সুকুমার মন্ডলের নামে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, এক সময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী মৃনালের একান্ত সহযোগী ছিল সুকুমার মন্ডল। তার বিরুদ্ধে এলাকায় নানা ধরনের অভিযোগও রয়েছে। বর্তমানে পাওনা টাকা চাওয়ায় সুকুমার মন্ডল এলাকায় তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপ-প্রচার চালাচ্ছেন। এনিয়ে তিনি সুকুমার মন্ডলের নামে তালা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরীও করেছেন। যার নং-৩৭১। তাং-৯/০১.১৯ইং।

এদিকে ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এলাকার একটি সুযোগ সন্ধানী মহল সুকুমারকে দিয়ে সাংবাদিক তপনের বিরুদ্ধে নানা কুৎসা রটনার পাশাপাশি মিথ্যা মামলায় হয়রাণির অপচেষ্টা করছেন। যাতে সেই সুযোগে সুকুমার নির্বিঘ্নে ভারতে পাড়ি জমাতে পারেন। প্রসঙ্গত,সুকুমার তার মেয়েদের বাংলাদেশী পার্সপোর্ট-ভিষায় ভারতে পাঠিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে সেখানেই পর্যায়ক্রমে তাদের পাত্রস্থ করেছেন।

এ ব্যাপারে সুকুমার মন্ডলের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি পাওনা টাকার বিষয়টি স্বীকার করলেও তার পরিমাণ সম্পর্কে অস্বীকার করেন।

তালা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রভাষক প্রনব ঘোষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তপনের সাথে সুকুমারের টাকা পয়সার লেন-দেন সম্পর্কে আমি জানি।সুকুমার তপনের নিকট থেকে জমি দিবে মর্ম্মে টাকা নিয়েছিল।

এনিয়ে খলিলনগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সরদার ইমান আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে ইতোপূর্বে আমি বসেছি, সুকুমার মন্ডল ৭ দিনের সময় নিয়ে পরে আর তার নিকট আসেনি। এমনকি তাকে একাধিকবার লোক মারফত সংবাদ পাঠালেও কোন প্রকার যোগাযোগ করেনি।

তালা থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক সেলিমুজ্জামানের নিকট জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,প্রাথমিকভাবে টাকা প্রাপ্তির বিষয়টির সত্যতা মিলেছে। এনিয়ে আজ বৃহস্পতিবার উভয় পক্ষকে নিয়ে থানায় বসাবসির কথা রয়েছে।

##