তালায় এনজিও পরিচালকের বিরুদ্ধে জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ


438 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় এনজিও পরিচালকের বিরুদ্ধে জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ
আগস্ট ৭, ২০২০ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

তালায় সাস নামের এক এনজিও পরিচালকের বিরুদ্ধে রাতের আঁধারে স্কুলের জমিসহ এক নিরিহ ব্যক্তির ভোগ-দখলীয় জমি জোরপূর্বক দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আতংকিত ভূক্তভোগীরা তালা থানায় পৃথক ২টি অভিযোগ দায়ের করেছে। তালা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বৃহস্পতিবার তালা সদরের শিবপুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

তালা উপজেলার শাহাপুর গ্রামের মৃতঃ ভোলাই খাঁ’র ছেলে মোঃ আবু বক্কার খাঁ জানান, ওয়ারেশ সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে শিবপুর গ্রামের মাঝিয়াড়া মৌজার জেএল নং- ৯০, এস.এ ৩৪৬, ৮৫৭, ১৪০৪ ও ১৪০২ খতিয়ানে ২৪৫৬ ও ২৪৫৯ দাগের .০৫৮৩ একর জমি শরিকের সাথে আপোষ মতে তিনি ভোগদখল করছেন। তাঁর বোন আছিরন বিবি ও সুফিয়া বেগম এখান থেকে তাদের প্রাপ্ত অংশের জমি বে-সরকারী সংস্থা উত্তরণ এর কাছে বিক্রি করেন। উত্তরণ পরিচালিত শিশুতীর্থ স্কুল প্রায় ৭ মাস ধরে সেই জমি ভোগ দখল করে আসছে। এছাড়া অপর বোন আনোয়ারা বেগমসহ ৩ ভাই তাদের প্রাপ্ত অংশের জমি এনজিও সাস’র পরিচালক শেখ ঈমান আলীর কাছে বিক্রি করেন। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) রাত সাড়ে তিনটার দিকে সাস পরিচালক শেখ ইমান আলী ২৫/৩০ জন লোক নিয়ে তার কেনা জমি বাদ দিয়ে বেআইনীভাবে আমার ও শিশুতীর্থ স্কুলের ভোগ-দখলীয় জমি অবৈধভাবে জোর দখল করার জন্য সেখানে খুঁটি ও কাটা তারের ঘেরা বেড়া দেয়া শুরু করে। কাউকে কিছু অবহিত না করে রাতের আঁধারে জমিতে কাটা তার দিয়ে ঘেরায় তিনি হতবাক হয়ে যান।

বে-সরকারী সংস্থা উত্তরণের তালা অফিসের সুপারভাইজার আনিচুর রহমান জানান, গত ০২/০১/২০২০ খ্রিঃ তারিখে শরিকদের সাথে আপোষ মতে চিহ্নিত .০৫৮৩ একর জমি ১০১ নং রেজিষ্ট্রি কবলা দলিলমূলে ক্রয় করার পর থেকে উত্তরণ কর্তৃক পরিচালিত শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিশুতীর্থ ভোগদখল করছে। এমতাবস্থায় গত বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে ৩ টার দিকে সাস পরিচালক শেখ ঈমান আলী পরিকল্পিতভাবে ২০/২৫ জন ভাড়াটিয়া লোক নিয়ে শিশুতীর্থ স্কুলের ভোগদখলীয় জমি জোর দখল শুরু করে। বিষয়টি জানতে পেরে জমি জোর দখলে বাঁধা দিলে সাস পরিচালক শেখ ইমান আলীসহ তাঁর লোকজন নানান ভয়ভীতি দেখায়। এক পর্যায়ে বিষয়টি তালা থানার ওসি মোঃ মেহেদী রাসেলকে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে জমি দখল বন্ধ করে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। একই সাথে শিশুতীর্থ স্কুলের জমিতে অবৈধভাবে দেয়া কয়েকটি খুঁটি ও কাটা তারের ঘেরা বেড়া সরিয়ে দেন।

এ ঘটনার পর জমি বে-দখলসহ হামলা, মামলা ও হয়রানীর আশংকায় ভুক্তভোগী জমি মালিক আবু বক্কার খাঁ ও উত্তরণ কর্মী আনিচুর রহমান তালা থানায় পৃথক দু’টি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা (সাস) পরিচালক শেখ ঈমান আলী জানান, জমির সীমানা দেওয়াকে কেন্দ্র করে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। তালা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সেটি নিষ্পত্তি করে দেয়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী তালা থানার এএসআই মোঃ নাসির উদ্দীন জানান, আগামী সোমবার বিষয়টি নিয়ে সকল পক্ষের সাথে বসাবসি হবে। ঐ দিন মাপ-জরীপের মাধ্যমে এটি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করা হবে।

তালা থানার ওসি মোঃ মেহেদী রাসেল বলেন, বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য একজন পুলিশ অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। উক্ত জমি দ্রুত মাপজোপ করে সকল জটিলতার সমাধান করা হবে।

#