তালায় কপোতাক্ষ নদ অববাহিকার জলাবদ্ধ পানি নিষ্কাসন বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত


506 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় কপোতাক্ষ নদ অববাহিকার জলাবদ্ধ পানি নিষ্কাসন বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
জুলাই ২৭, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি.এম. জুলফিকার রায়হান, তালা :
কপোতাক্ষ নদ খননে ব্যাপক অনিয়ম এবং দূর্নীতি করায় চলতি বর্ষা মৌসুমে বর্ষার পানি কপোতাক্ষ নদ দিয়ে নিষ্কাসন হতে পারছেনা। কপিলমুনি থেকে ভাটি অশিভূমে নদ খনন না করে কপিলমুনির উজান দিকে অপরিকল্পিত ভাবে নদ খনন করায় “নদ খনন গলার কাটা” হয়ে দাড়িয়েছে। বর্ষার পানি আর উজান থেকে নেমে আসা পানির চাপে নদ অববাহিকায় ইতোমধ্যে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে। একদিকে নদ দিয়ে পানি নিস্কাসন ব্যাবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এলাকায় জলাবদ্ধতা এবং নদের পানির চাঁপে যেকোনও মুহুর্তে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ধসে নদের পানিতে এলাকায় তলিয়ে যেয়ে ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে আশংকা বিরাজ করছে। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে উপজেলার পাখিমারা বিলে টিআরএম চালু হওয়ার পর বর্তমান অবস্থা, জনগণের অভিমত ও কপোতাক্ষ নদ দিয়ে পানি নিষ্কাসন ব্যাবস্থা নিয়ে এক মতবিনিময় সভা সোমবার সকালে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইখতিয়ার হোসেন ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জুলফিকার আলী হাওলাদার। এ সময় উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা অমল কান্তি রায়, কেশবপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী (এসডি) শফিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরার পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা মোঃ. শহীদুল ইসলাম, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক উপাধ্যক্ষ মহিবুল্লাহ মোড়ল, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার আলাউদ্দীন জোয়াদ্দার, উত্তরণের পরামর্শক অধ্যাপক হাসেম আলী ফকির, উত্তরণ’র কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম, হাসিনা পারভীন, উপজেলা পানি কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর জিল্লুর রহমান, ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, উন্নয়ন প্রচেষ্টা পরিচালক শেখ ইয়াকুব আলী, সাংবাদিক মীর জাকির হোসেন, এমএ ফয়সাল, গাজী জাহিদুর রহমান, আব্দুল জব্বার, নজরুল ইসলাম, বিএম জুলফিকার রায়হান, তপন চক্রবর্ত্তী, সেলিম হায়দার, সব্যসাচী মজুমদার বাপ্পী, নাজমুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় প্রধান অতিথিÑ কপোতাক্ষ নদের কপিলমুনি এলাকা থেকে ভাটি অভিমূখে দ্রুত লিংক চ্যানেল তৈরি করে পানি নি®স্কাশনের ব্যবস্থা করার পাশাপাশি টিআরএম এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ফসলের ক্ষতিপূরণের চেক প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্টদের তাগিদ দেন। এ ছাড়া সভায় টিআরএম এলাকার পেরিফেরিয়াল বাঁধের বিভিন্ন স্থানে ফাঁটল দেখা দেওয়ায় এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবার কারণে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপর অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ সময় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মঙ্গলবার থেকে বাঁধ এলাকায় কাজ করার জন্য উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীকে নির্দেশ প্রদান করেন। আর লিংক চ্যানেলের ভাঙ্গন এলাকায় দ্রুত বালির বস্তা দিয়ে ভাঙ্গন রোধ করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১১ জুলাই পাখিমারা বিলে টিআরএম চালু হবার পর টিআরএম এলাকার পেরিফেরিয়াল বাঁধের বাইরে গ্রামাঞ্চলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। জনগণের দাবীর প্রেক্ষিতে উত্তরণ ২৫ জুলাই সরেজমিনে পরিদর্শন করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করে। প্রতিবেদনটি স্থানীয় সংসদ সদস্যর নিকট পাঠানো হয়। সংসদ সদস্য বিষয়টি নিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সচিব ও ডিজি মহোদয়ের সাথে আলোচনা করেন। আলোচনার প্রেক্ষিতে জরুরী ভিত্তিতে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীকে তালায় পাঠানো হলে তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্য, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, জনগণ এবং সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।