তালায় গীর্জা উচ্ছেদে ষড়যন্ত্র’র অভিযোগ : জনমনে ক্ষোভ


418 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় গীর্জা উচ্ছেদে ষড়যন্ত্র’র অভিযোগ : জনমনে ক্ষোভ
অক্টোবর ১০, ২০২০ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান ::

তালার হাজরাকাঠি গ্রামে দরিদ্র ও অসহায় শিশুদের জন্য স্থাপিত এতিমখানা (হোস্টেল) ও গীর্জা উচ্ছেদ করে জমি জোর দখল নিতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় কুমার দাশ’র নেতৃত্বে একটি দূর্বৃত্তচক্র সেনা সদস্য লিটন দাশ’র সহযোগীতায় জোরদখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এতে এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
হাজরাকাঠি গ্রামের সন্তোষ সরকারের পুত্র স্বপন সরকার জানান, জমি মালিক আ. বারী শেখ’র ওয়ারেশদের ভোগ-দখলীয় এস.এ ২৫১ খতিয়ানের ৭০৫ দাগের ৭ শতক জমি রেজিষ্ট্রি ক্রয় করে সেখানে দরিদ্র ও অসহায় শিশুদের জন্য এতিমখানা (হোস্টেল) এবং খ্রীস্টান ধর্মালম্বীদের জন্য উপসনালয় তৈরি করা হয়। এরপর থেকে প্রতিবেশি মৃত. অমূল্য দাস’র ছেলে কুমার দাস তার ছেলে সেনা বাহিনী সদস্য লিটন দাশের সহযোগীতায় মাধব দাস ও উত্তম দাসকে সাথে নিয়ে অবৈধ ভাবে হোস্টেলের জমি ও উপসনালয় উচ্ছেদ করে জমি জোর দখলের জন্য নানান ষড়যন্ত্র সহ হুমকি দিতে থাকে। যার ধারাবাহিকতায় গত ২ মাস আগে সেনা সদস্য লিটন দাশের ইন্দনে ওই জমি দখল করে ঘর নির্মানের চেষ্টা করে দূর্বৃত্তরা। এসময় তালা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে জোরদখর ও ঘর নির্মান কাজ বন্ধ করে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখেন।
স্বপন সরকার জানান, মিশনারী প্রতিষ্ঠান প্রেয়ার হাউজ চার্চ অব বাংলাদেশ ও নিজস্ব অর্থায়নে এখানে এতিমখানা (হোস্টেল) ও উপসনালয় স্থাপন করা হয়। প্রতিষ্ঠান দুটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, গ্রামবাসী সহ কুমার দাশ এবং তার পরিবারের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। শান্তিপূর্ন ভাবে এতিমখানা ও উপসনালয় উদ্বোধন শেষে সকলেই একসাথে প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রার্থনা করেন। এই গীর্জা ঘরে কুমার দাশের ছেলে সেনা সদস্য ও নব্য খ্রিষ্টান লিটন দাশ, ভাই উত্তম দাশ এবং মাধব দাশ সহ তাদের পরিবারের লোকজন প্রার্থনা করবে তারা জানান। অথচ, কার্যক্রম শুরু হবার পর থেকে কুমার দাশ ও তার ছেলে সেনা সদস্য লিটন দাশ গীর্জা এবং এতিমখানা উচ্ছেদ করে জমি দখলের জন্য ষড়যন্ত্র শুরু করে। এবিষয়ে তালা থানায় এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার’র দপ্তরে পৃথক অভিযোগ এবং সালিশ হয়। উভয় সালিশের রায় কুমার দাশ’র বিরুদ্ধে যাওয়ায় তারা সে রায় মানেনি। বর্তমানে কুমার দাশ ও তার সেনা সদস্য ছেলে নব্য খ্রিষ্টান লিটন দাশ প্রতিষ্ঠান দু’টো উচ্ছেদ করে জমি দখলের জন্য নানান ষড়যন্ত্র, অপপ্রচার এবং হয়রানী করায় নিরিহ স্বপন সরকার সহ গীর্জার সদস্যরা আতংকের মধ্যে রয়েছে। এঘটনায় ভুক্তভোগীরা উর্দ্ধতন প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

#