তালায় জাতীয় পার্টির নির্বাচনী পথসভা


303 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় জাতীয় পার্টির নির্বাচনী পথসভা
অক্টোবর ১, ২০১৮ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আকরামুল ইসলাম ::
বর্তমানে দালাল দৌরাত্নে মানুষ অতিষ্ট। পুলিশের ভয় দেখিয়ে মানুষকে জিম্মি করে এসব দালালরা সাধারণ মানুষকে হয়রানি করে চলেছে। এসব দালালদের পৃষ্ঠপোষক সরকার দলীয় কপিতয় নেতা। আগামী সংসদ নির্বাচনে সাতক্ষীরা-১ আসনকে (তালা-কলারোয়া) দালালমুক্ত করতে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সৈয়দ দিদার বখতকে ভোট দিন, বিজয়ী করুন। জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সাতক্ষীরার তালা সদরের জাতপুর বাজারে সোমবার বিকেলে জাতীয় পার্টির নির্বাচনী পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি, সাবেক চেয়ারম্যান এস.এম নজরুল ইসলাম।
তিনি আরও বলেন, সৈয়দ দিদার বখত বিজয়ী হলে তালা-কলারোয়ার মানুষের হয়রানি বন্ধ করা হবে। এ সময় তিনি সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে লাঙ্গল প্রতিকে ভোট দেওয়ার আহব্বান।


তালা সদর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির আয়োজনে ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে ও উপজেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক এস,এম জাহাঙ্গীর হাসানের পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য উপজেলা জাপার সাধারন সম্পাদক এস,এম আলাউদ্দীন, জাপা নেতা এ্যাড. জিল্লুর রহমান, শিক্ষক আব্দুল আজিজ, জাপা উপজেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক শেখ সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল বাশার, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. কবির আহমেদ, সদর ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক শেখ আবুল হাসান, খেশরা ইউনিয়ন সম্পাদক আজিজুর রহমান, জাতীয় যুব সংহতি উপজেলা সভাপতি সরদার কবির আহমেদ, সাধারন সম্পাদক শেখ আমিনুল ইসলাম, তালা সদর ইউনিয়ন সম্পাদক মোঃ লিটন হুসাঈন, জাতীয় ছাত্র সমাজ তালা উপজেলা সভাপতি নজরুল ইসলাম রাজু, সাধারন সম্পাদক মোঃ ইউনুস আলী সরদার, সাংগঠনিক সম্পাদক এস,এম হাসান আলী বাচ্চু, তালা সদর ইউনিয়ন সভাপতি সাগর মোড়ল, খলিলনগর ইউনিয়ন জাতীয় ছাত্র সমাজ সহ- সভাপতি মো. রায়হান শেখ, জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির তালা ইউনিয়ন সভাপতি বাবলুর রহমান প্রমুখ।
সভায় পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ৯ বৎসরের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে প্রধান অতিথি উপজেলা জাপার সভাপতি এস.এম নজরুল ইসলাম বলেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ঘোষনা, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি, ভূমি সংষ্কার আইন, মুক্তিযোদ্ধা কল্যান ট্রাষ্ট, শ্রীকৃষ্ণের জম্মদিনের ছুটি ঘোষনা, গুচ্ছ গ্রাম তৈরী, পথ কলি ট্রাষ্ট, তিনস্তরের প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীয়করণ, উপজেলা পদ্ধতি চালু করে উপজেলায় ম্যাজিস্ট্রেট ও জজ কোর্ট স্থাপন, ২১টি জেলাকে ৬৪ জেলায় রুপান্তর করে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করেছিলেন পল্লীবন্ধু এরশাদ।
দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলে পল্লীবন্ধুর হাত ধরে সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখ্তের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, তালা সরকারী কলেজ, তালা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, তালা সরকারী বালিকা বিদ্যালয়, কলারোয়া সরকারী কলেজ, কলারোয়া পৌর সভা, তালায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিস, তালা শিল্পকলা একাডেমী, তালায় নাসিং ট্রেনিং সেন্টার, আঠার মাইল- পাইকগাছা ৩৩ কি.মি. পিচের রাস্তার উন্নয়ন হয়েছে। এ সময় সৈয়দ দিদার বখতকে বিজয়ী করতে সকলকে একযোগে কাজ করার আহব্বান জানানো হয়।

##