তালায় ঠিকাদারকে হত্যা চেষ্টা মামলায় স্কুল শিক্ষক জেলে


536 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় ঠিকাদারকে হত্যা চেষ্টা মামলায় স্কুল শিক্ষক জেলে
মার্চ ২২, ২০১৭ তালা
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা ::
তালার ধুলন্ডা গ্রামের শেখ জমির উদ্দীন আহম্মেদ এর ছেলে প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার আ.ব.ম. জাহিদুজ্জামান সহ তার পরিবারে উপর হামলা চালানোর ঘটনায় দূর্বৃত্ত শেখ শায়েখুজ্জামানকে জেলে পাঠিয়েছে বিজ্ঞ আদালত।

বুধবার সাতক্ষীরার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত-৩ এর ম্যাজিষ্ট্রেট মুনিয়া জাহিদ এর আদালতে হাজির হয়ে সরকারি কর্মচারী শায়েখুজ্জামান জামিন প্রার্থনা করলে, বিজ্ঞ আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলে প্রেরন করেন।

সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার ধুলন্ডা গ্রামের জমির উদ্দীন মাষ্টারের জেঠুয়া বাজারের প্রায় ৬৭ বছরের ভোগদলীয় দোকান ঘরের জমি নিয়ে একই গ্রামের মৃত. সামছুর রহমান শেখ এর ছেলে ওয়ার্ড জামায়াতের সাবেক সভাপতি শেখ শাইখুজ্জামান ও আছাদুজ্জামান’র বিরোধ করে আসছিল।

এরজের ধরে গত বছরের ১২ ডিসেম্বর দুপুরে শায়েখুজ্জামান ও আসাদুজ্জামান গং লোহার রড, ধারালো অস্ত্র নিয়ে ঠিকাদার জাহিদুজ্জামানের উপর অতর্কিত হামলা করে।

হামলায় জাহিদুজ্জামানের নাক ভেঙ্গে যাওয়া সহ মাথা, ঘাড়, গলা ও শরীরে অন্যান্য স্থান গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়। এছাড়া তার কাছে থাকা নগদ টাকা সহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নেওয়া হয়। হামলা ঠেকাতে গেলে দূর্বৃত্তরা জাহিদের বৃদ্ধ পিতা শেখ জমির

উদ্দীন মাষ্টার এবং ভাই রাশেদুজ্জামানকেও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এঘটনায় আ.ব.ম. জাহিদুজ্জামান বাদী হয়ে ওইদিন রাতে তালা থানায় হামলাকারীদের নামে একটি মামলা (০৭/১৬৮, তাং : ১২/১২/১৬ ইং) দায়ের করেন।

উক্ত মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে তদন্তকারী পুলিশ অফিসার এস.আই আহাদ আহমেদ আসামীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞ আদালতে ৪৪৭, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৭, ৪২৭, ৩৭৯, ৫০৬ ও ১১৪ পেনাল কোড ধারায় অভিযোগ পত্র দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত এই অভিযোগপত্র ইতোমধ্যে আমলে নিয়েছেন।

উক্ত মামলার অন্য আসামী হাযতবাস করে জামিনে মুক্ত হলেও ১নং আসামী ধুরন্দর দূর্বৃত্ত জামায়াত নেতা তালা উপজেলার ১৭৭ নং দক্ষিন জালালপুর নব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শায়েখুজ্জামান জামিন না নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল।

বুধবার গোপনে সে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হলে আদালত তাকে জেল হাযতে প্রেরন করেন।

উল্লেখ্য, সরকারি চাকুরি করা সত্বেও জামায়াত ইসলামীর রাজনীতির সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত শাইখুজ্জামান ও তার ভাই আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে হামলা ও হয়রানীর অভিযোগ ওঠে।

এনিয়ে সেই সময় স্কুল শিক্ষক শাইখুজ্জামান’র বিরুদ্ধে তালা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ব্যবস্থা গ্রহন করে।

পরবর্তিতে শায়েখুজ্জামান ফৌজদারী মামলার আসামী হলে বিষয়টি স্কুল ও সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে কর্তৃপক্ষ তাঁর বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা গ্রহন না করায় ভুক্তভোগীদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

বুধবার শিক্ষক শায়েখুজ্জামানকে বিজ্ঞ আদালত জেলে প্রেরন করলে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কুমারকে অবহিত করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষক ম্যামল কুমার জানান, শায়েখুজ্জামান স্কুল থেকে ৩দিনের ছুটি নিয়েছেন আর তাঁর জেলে যাওয়ার বিষয়টি শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করা হবে।
##