তালায় বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধের মাটি কেটে চলছে মেসার্স নূর ব্রিক্স !


428 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধের মাটি কেটে চলছে মেসার্স নূর ব্রিক্স !
নভেম্বর ১৩, ২০১৮ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

* পোড়ানো হচ্ছে কাঠ

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা :
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক কর্তৃক বন্ধের নির্দেশনা থাকা সত্বেও তালার কুমিরা গ্রামে অবৈধ ভাবে চরছে মেসার্স নূর ব্রিক্স-এ ইট তৈরি ও পোড়ানোর কাজ। অবৈধভাবে চলা এই ইট ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে গাছ এবং ইট তৈরির ক্ষেত্রে ব্যভহার করা হচ্ছে কপোতাক্ষ নদের বন্যানিয়ন্ত্র বেড়ি বাঁধ।

জানাগেছে, গত ১০ অক্টোবর সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নেজারত শাখার ০৫.৪৪.৮৭০০.০০৫.২০.০৩০.১৮ নং স্মারকে ডেপুটি কালেক্টর দেওয়ান আকরামুল হক উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার কুমিরা (স্বরস্বতী ঘাট) এলাকার মেসার্স নূর ব্রিক্স’র কার্যক্রম বন্ধে চিঠি দেয়। তবে ভাটা মালিক ঐ নির্দেশনা অমান্য করে চলতি মৌসুমেও ভাটার কার্যক্রম চালু রেখেছে।

এরআগে নূর ব্রিক্সের স্বত্ত্বাধিকারী সৈয়দ তানভির মোহাম্মদের কাছ থেকে পাটকেলঘাটার জুজখোলার গ্রামের মৃত সাজ্জাত আলী শেখের ছেলে মো. খায়রুল ইসলাম ভাটাটি এফিডেভিটের মাধ্যমে ক্রয় করে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করে। জেলা প্রশাসকের সংশ্লিষ্ট বিভাগ তদন্ত করে নূর ব্রিক্স এর লাইসেন্স নং ১৪/২০০৩ বাতিল করে লাইসেন্সের মূল মালিক সৈয়দ গোলাম মোস্তফাকে চিঠি দেয়। এরপর থেকে খাইরুল ইসলাম অবৈধভাবে “এমএনবি” নাম দিয়ে ইট ভাটা চালিয়ে যাচ্ছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, নূর ব্রিক্সের স্থলে এমএনবি লিখে খায়রুল ইসলাম দীর্ঘদিন যাবৎ কপোতাক্ষের ভেড়ী বাঁধের মাটি কেটে ইট নির্মাণ করে আসছে। শুধু এখানেই শেষ নয়, ইট পোড়াতে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে জ্বালানী হিসেবে কাঠ ব্যবহার করছে বাটা মালিক খাইরুল ইসলাম।

সরজমিনে দেখা যায়, কপোতাক্ষের খনন করার পর কপোতাক্ষ নদ অববাহিকায় বন্যা নিয়ন্ত্রসের জন্য শক্তিশালী বাঁধ নির্মান করা হয়। কিন্তু নূর ব্রিক্স ওই বাঁধের মাটি কেটে ইট তৈর করায় এখন ইট ভাটা এলাকায় মাত্র ৫/৬ ফুট প্রস্থের এবং ৮/১০ উচ্চতার বেড়ি বাঁধ রয়েছে। ফলে কপোতাক্ষ নদে পানির চাঁপ বাড়লে ওই ইট ভাটা সংলগ্নের বাঁধ ভেঙ্গে বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হবার আশংকা দেখা দিয়েছে।

এদিকে, বন্ধ ঘোষিত ইট ভাটা চালু রাখার জন্য বর্তমানে ওই খাইরুল ইসলাম কৌশলে জেলা প্রশাসকের অনুমোতি পাবার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানাগেছে।