তালায় ভ্রাম্যমান আদালতে প্রতারক মুন্নাকে ২মাসের সাজা


544 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালায় ভ্রাম্যমান আদালতে প্রতারক মুন্নাকে ২মাসের সাজা
নভেম্বর ৬, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি.এম. জুলফিকার রায়হান :
তালার জালালপুর গ্রামের তথাকথিত জিনের বাদশা ভন্ড করিবাজ আলী মোহাম্মদ মুন্নাকে ২ মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। রবিবার বেলা ১২টার দিকে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. ফরিদ হোসেন ভ্রাম্যমান আদালতে মুন্নাকে এই সাজা প্রদান করেন।

মো. মুন্না দীর্ঘ বছর ধরে সাধারন সহজ-সরল মানুষের সরল বিশ্বাসকে পুঁজি করে চিকিৎসার নামে প্রতারনা করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল বলে অভিযোগে রয়েছে। প্রতারক আলী মোহাম্মাদ মুন্না উপজেলা জালালপুর গ্রামের শওকত আলী শেখের পুত্র। সে নিজ বাড়িতে আল্লাহর দান নামের চিকিৎসালয় খুলে প্রতারনার ব্যবসা চালিয়ে আসছিল।

অভিযোগ রয়েছে- এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় থেকে নিজেকে জিনের বাদশা ঘোষনা দেয় মুন্না। পরে জিনের মাধ্যমে সকল রোগের চিকিৎসা দেয়ার নামে নিজ বাড়িতেই সে আল্লাহ’র দান নামের ব্যবসার ফাঁদ পাতে। এই ফাঁদে পা দিয়ে বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার নারী-পুরুষ ও শিশু প্রতিনিয়ত প্রতারিত হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, ছোট বেলায় মুন্না ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। হটাৎ করে সে নিজেকে জিনের বাদশা ঘোষনা দেয় এবং জিনের মাধ্যমে ক্যান্সার ও বন্ধ্যা মহিলাদের সন্তান দান সহ সকল রোগের চিকিৎসা করার ঘোষনা দিয়ে রোগী দেখার জন্য নিজ বাড়িতে আল্লার দান- নামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলে।

প্রায় ৭/৮ বছরের অধিক সময় ধরে সে প্রতিদিন শতাধিক সহজ-সরল মানুষের কাছ থেকে প্রতারনার মাধ্যমে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ফলে একসময়ের দরিদ্র ভ্যান চালক মুন্না এখন লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক বনে গেছে।

এব্যাপরে তালা থানার ওসি মো. ছগির মিয়া জানান, কথিত জিনের বাদশা মো. মুন্না দীর্ঘদিন ধরে সকল রোগের চিকিৎসা দেবার নামে প্রতারনা করে আসছিল।

এবিষয়ে এলাকার মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে, তালা থানা পুলিশের সহযোগীতা নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ফরিদ হোসেন’র ভ্রাম্যমান আদালত রোববার প্রতারক মুন্নার বাড়িতে অভিযান চালান।

এসময় প্রতারনার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত প্রতারক মুন্নাকে দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ১৯২ ধারায় ২ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেন। রোববার ধৃত মুন্নাকে সাতক্ষীরা জেলা হাযতে প্রেরন করা হয়।
##