তালা সংবাদ ॥ তালায় সুশীলনের স্বপ্ন প্রকল্প’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন


451 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তালা সংবাদ ॥ তালায় সুশীলনের স্বপ্ন প্রকল্প’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
আগস্ট ১৭, ২০১৫ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান,তালা :
অসহায় ও দরিদ্র মহিলাদের দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে তালায় বেসরকারি সংস্থা সুশিলনের উদ্যোগে স্বপ্ন প্রকল্প’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়েছে। দাতা সংস্থা ইউএনডিপি’র অর্থায়নে, বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগের অধিনে রোববার তালায় উক্ত প্রকল্প’র উদ্বোধন হয়। এদিন সকালে তালা সদর মডেল ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে প্রকল্প’র উদ্বোধন উপলক্ষ্যে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাংবাদিক এস.এম. নজরুল ইসলাম। সভায়Ñ তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহাবুবুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ও প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সুশীলন এর সংশ্লিষ্ঠ প্রকল্প’র পিও মাহাবুবুল আলম মিন্টু, বেসরকারি সংস্থা কেয়ার এর প্রতিনিধি হুমায়ন কবির, সাংবাদিক বি. এম. জুলফিকার রায়হান, ইউপি সচিব রেহেনা খাতুন, সুশীলন কর্মী রেহেনা পারভীন, ইউপি স্টাফ নেয়ামত ও বাহারুল প্রমুখ। স্বপ্ন প্রকল্প’র পিও মাহবুবুল আলম মিন্টু জানান, গ্রামের দরিদ্র ও অসহায় মহিলাদের দারিদ্রতা দূর করার জন্য বাংলাদেশ সরকার ইউএনডিপির অর্থায়নে স্বপ্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এটি বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারের সবচেয়ে বড় প্রকল্প। এই প্রকল্প’র অধিনে তালা উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ৪৭২জন নারীকে উপকারভোগী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে। এরমধ্যে তালা ইউনিয়নে রয়েছে ৩৬জন উপকারভোগী দরিদ্র নারী। তিনি আরও জানান, রোববার তালা উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে একযোগে প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়েছে। তালা সদর ইউনিয়নে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহাবুবুর রহমান এক সভার মাধ্যমে তালা প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। এছাড়া অন্যান্য ১১টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান স্ব স্ব ইউনিয়নের প্রকল্প উদ্বোধন করেন। প্রকল্প’র উপকারভোগী মহিলারা ইউনিয়ন পরিষদের সরকারি সম্পদ রক্ষনাবেক্ষন কাজে সম্পৃক্ত হবেন। ১৮ মাসের এই প্রকল্পে দরিদ্র মহিলারা প্রতিদিন ২০০ টাকা হারে পারিশ্রমিক পাবেন।
##

তালায় ৪৮ কেজি ভেজাল বাগদা জব্দ
তালা প্রতিনিধি :
তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার’র ভ্রাম্যমান আদালত এবং উপজেলা মৎস্য দপ্তরের যৌথ উদ্যোগে ভেজাল বিরোধী অভিযান চালানো হয়েছে। অভিযানে দু’ ব্যবসায়ীকে জরিমানা সহ ৪৮ কেজি বাগদা চিংড়ি জব্দ করা হয়। সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার মহান্দি এবং জেয়ালানলতা এলাকায় এই অভিযান চালানো হয়। তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. মাহাবুবুর রহমান’র নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযানটি পরিচালনা করেন। এসময় উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার মো. হাজ্জিামান, সহকারী মৎস্য অফিসার এস. এম. শহিদুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার মো. হাজ্জিামান জানান, ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলাকালে উপজেলার মহান্দি বাজারে আলতাফ হোসেন এর মালিকানাধিন একতা ফিস থেকে সাড়ে ৫ কেজি বাগদা চিংড়ি জব্দ হয়। এছাড়া জেয়ালানলতা গ্রামের অসিত সাহার মালিকানাধিন শম্পা ফিস থেকে সাড়ে ৩৪ কেজি বাগদা চিংড়ি জব্দ সহ প্রতিষ্ঠানের মালিক অসিত সাহাকে ৫ হাজার ট০াকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে একই গ্রামের বাগদা চিংড়ি ব্যবসায়ী সন্যাসী সাহার বাড়ি থেকে ৮কেজি বাগদা চিংড়ি জব্দ করা হয় এবং সন্যাসী সাহাকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বাগদা চিংড়িতে অপদ্রব্য পুশ, মাছ পানিতে ভিজিয়ে রেখে ওজন বৃদ্ধি এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মাছ বেচা-কেনার অপরাধে মোবাইল কোর্ট এই জব্দ ও জরিমানা আদায় করে বলে- মৎস্য অফিসার জানিয়েছেন।
##
তালায় ৭কিলোমিটার ডিস লাইনের তার চুরি
তালা প্রতিনিধি :
তালায় ডিস ব্যাবসার প্রতিষ্ঠান এশিয়া ভিশনের কেবল তার চুরি হয়েছে। চোরচক্র উপজেলার বারুইহাটি কর্মকারপাড়া থেকে বারুইহাটি সরদারপাড়া, হাজরাকাঠি ঋসিপাড়া থেকে হাজরাকাঠি বাজার এবং মহান্দি পর্যন্ত দীর্ঘ প্রায় ৭ কিলোমিটার তার চুরি করেছে। তালা এশিয়া ভিশনের পরিচালক জিকু জানান, শনিবার গভীর রাতে চোরচক্র বৈদ্যুতিক খুটির সাথে সংযুক্ত ৭ কিলোামিটার ডিসের অপটিক্যাল ফাইবার তার কেটে নিয়ে যায়। একই সাথে চোরচক্র নোড, এ্যামপ্লিফায়ার, ডিসের ও বক্সসহ প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা মূল্যের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নিয়ে যায়। উপজেলার উত্তরনলতা গ্রামের ডিস লাইন ব্যবাসায়ী কহিনুর দপ্তরী এই চুরির সাথে জড়িত বলে জিকু জানিয়েছেন। এরপূর্বেও এশিয়া ভিশনের ডিসের তারসহ অন্যান্য যন্ত্রাংশ চুরি হয়। যে কারনে কহিনুর দপ্তরীর বিরুদ্ধে তালা থানায় জিডি ও অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। আবারও মূল্যবান তার ও যন্ত্রাংশ চুরি হওয়ায় কহিনুরের বিরুদ্ধে তালা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তার চুরির পর থেকে বারুইহাটি থেকে শুরু করে মহান্দি পর্যন্ত উক্ত তারের অন্তর্ভূক্ত গ্রাহকদের মাঝে ডিস সংশ্লিষ্ট টিভি চ্যানেল সম্প্রচার বন্ধ রয়েছে। তবে, কহিনুর দপ্তরীর নিকট বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি, ডিসের তার চুরির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।