তিনিও আদর্শ শ্রমিক তাই-শ্রমিকের কষ্ট চোখে পড়ে


550 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তিনিও আদর্শ শ্রমিক তাই-শ্রমিকের কষ্ট চোখে পড়ে
মে ৮, ২০১৮ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

বিজয় মন্ডল ::
উতপ্ত দুপুরে চারিদিকে যখন মানুষের দম যায় যায়, নিজ সখের বাড়ি থেকে যখন বেরুতেই মন চায় না, বের হলেই যে গা পুড়ে যায়, শিততাপ নিয়ন্ত্রিত রুমে যখন একটু আরাম হয়। তাখও সব আরাম ভুলে, পরিবারের মানুষদের আহার নিয়ে ভাবতে হয় দিনমুজুর, শ্রমিক মানুষদের। বস্তুত তাদের একটি আরামের দুপুর অনেকগুলো মানুষের অনাহারের কারন হয়ে দাড়ায়। তাই এরকম চিন্তা তাদের কাছে দুরাশার।

আমাদের একজন নেতা আছে যাকে নেতা না বলে জনগণের জন্য একজন আদর্শ শ্রমিক বলাটাই ঠিক হবে। যে কাজ করে সেইতো শ্রমিক, অন্যভাবে শ্রম যে দেয় সেই শ্রমিক। সেই অর্থে তিনি আদর্শ শ্রমিক বটেই। যে দিনরাত এক করে মাঠে ময়দানে ছুটে বেড়ান। তিনিও দুপুরেও ছুটে বেড়ান, তাই শ্রমিক দিনমজুর ভাইদের কষ্ট গুলো চোখে পড়ে। যে কষ্টগুলো আমাদের মতো আরামপ্রীয় মানুষেরা দেখতে পায়না। শ্রমিক না হলে কি শ্রমিকের কষ্ট বোঝা যায়। ভাইয়ের জন্য যে ভাইয়েরই মন সবচেয়ে বেশি পোড়ে।

কাস্তে হাতে ধান শ্রমিক, প্যাডেল ঘুরানো ভ্যান শ্রমিক, ঝুড়ি মাথায় নির্মাণ শ্রমিক, ঝাড়ু হাতে পরিচ্ছন্নতা কর্মি, কিংবা বৈঠা বাউয়া নৌ শ্রমিক, সবাই যে তাকে চেনে। বিশেষ ভাবে তাদের মাঝে কাজ করার কারনে। এর চেয়ে কি বড় শ্রমিক আর হতে পারে।

সেই লুঙ্গি পরা, সাইকেল চড়া এমপি খ্যাত জনগণের জন্য আদর্শ শ্রমিক সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দারের কথা বলছি।

যে নিজেকে জনগণের জন্য একজন আদর্শ শ্রমিক মনে করেন বলেই শ্রমিকদের জন্য তার এতো ব্যেথা। কোথাও চলার পথে তাদের কষ্ট পেতে দেখলে, যেকোন ভাবে তাদের কষ্ট লাঘবের চেষ্টা করেন। ৮ মে ২০১৮ মঙ্গলবার উত্তপ্ত দুপুরে প্রায় ৩৬ ডিগ্রি তাপমাত্রায় তারই প্রতিফলন ঘটতে দেখা গেলো।

নিজ হাতে ডাব দই খাওয়াইয়ে দিনমজুর ভাইদের তৃষ্ণা মেটালেন
অাজ দুপুরে কালিগঞ্জ থেকে শ্যামনগর ফেরার পথে ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের চৌমুহনী মোড়ে ভ্যানচালক ও হতদরিদ্র দিনমজুর ভাইদের প্রচণ্ড তাপদাহে পিপাসা মিটাতে ডাব ও দই খাওয়াইয়ে তিনি তাদের যে তৃষ্ণা মেটালেন তা শুধু তৃষ্ণা মেটানো নয়। দৃষ্টান্ত বটে।