তিশার ‘রূপকথা’


322 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তিশার ‘রূপকথা’
নভেম্বর ২৯, ২০১৮ ফটো গ্যালারি বিনোদন
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
২৪ বছরের সামিয়া মাঝে মধ্যে এমন সব কাজ করে বসে যে, সে জন্য হাসির পাত্রী হতে হয়। তাকে দেখলে ল্যাবেন্ডিস মনে হলেও পড়ালেখায় দারুণ। বাবা-মা বিয়ের কথা বলছে। কিন্তু সামিয়া জানে ছেলেপক্ষ তাকে দেখে পছন্দ করবে না। এজন্য সে চাকরির জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আবেদন করে।

একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান থেকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাক আসে সামিয়ার। ওই অফিসের সিইও আজিফা ওয়েডিং প্ল্যানিং নামের নতুন একটি সেকশন খুলেছেন। সেখানে সামিয়াকে ইন্টার্নশিপের জন্য বলা হয়। ভালো করলে তিনমাস পর চাকরি কনফার্ম। সামিয়া রাজি হয়ে কাজ শুরু করে।

তার সেকশনের সুপারভিশনে আছেন আলিফ। সুদর্শন আলিফকে প্রথম দেখাতেই ভালো লাগে সামিয়ার। কিন্তু সামিয়াকে দেখে হতাশ হয় আলিফ। সামিয়া নিজেকে প্রেজেন্টেবল করার চেষ্টা করে। সে সুন্দর ড্রেস পরে সেজেগুজে অফিসে আসে। এটা নিয়ে অফিসের সবাই হাসাহাসি করে। এসবের মধ্যেই একটা সময় পরে নিজেকে পুরোপুরি বদলে ফেলে সামিয়া।

এমনই গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে বায়োস্কোপ অরিজিনালসের ওয়েব ফিল্ম ‘রূপকথা’। সৈয়দ জিয়াউদ্দিনের রচনায় এটি পরিচালনা করেছেন গোলাম মুক্তাদির। এতে সামিয়ার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। আজিফার ভূমিকায় আছেন শম্পা রেজা আর আলিফের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইয়াশ রোহান।

সম্প্রতি ঢাকার বেশ কয়েকটি লোকেশনে ওয়েব ফিল্মটির দৃশ্যধারণ করা হয়। এ ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে তিশা বলেন, এখানকার ওয়েব কনটেন্টগুলো শক্তিশালী। এখানে সিনেমা বা টেলিভিশনের মতো কোনো সেন্সরশিপ নেই। মানুষ যে কোনো জায়গায় বসে মোবাইল ফোনে কাজ দেখার সুযোগ পাচ্ছেন সহজেই। আর এই চলচ্চিত্রে আমি অভিনয় করেছি গল্পের কারণে। এখাণে আমাকে ভিন্ন একটি রূপে দেখা যাবে। আশা করছি কাজটি দর্শকদের কাছে ভালো লাগবে।

ওয়েব ফিল্মটি প্রযোজনা করেছেন শাহরিয়ার শাকিল। তিনি বলেন, ওয়েব ফিল্মে কাজের স্বাধীনতা আছে। গল্পটাকেও নিজের মতো করে সুবিধাজনকভাবে সাজানো যায়। এছাড়া এখনকার সময়ের পরিচালক ও শিল্পীদের ওয়েব কনটেন্টের প্রতি ঝোঁক বেড়েছে। এসব কারণে অনেক বৈচিত্র্যপূর্ণ কাজ করা সম্ভব।

আলফা আই মিডিয়া প্রডাকশন লিমিটেডের ব্যানারে নির্মিত ‘রূপকথা’ ওয়েব ফিল্মটি আগামী ৬ ডিসেম্বর বায়োস্কোপ অরিজিনালে প্রচার করা হবে।