তেলের দাম : প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে মুহিত


418 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
তেলের দাম : প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে মুহিত
এপ্রিল ২১, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বাংলাদেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করতে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবদুল মাল আবদুল মুহিত।

তিনি আশা করছেন, প্রধানমন্ত্রী এতে ইতিবাচক সাড়া দেবেন।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ও বিশ্ব ব্যাংকের বসন্তকালীন বৈঠকে অংশ নিতে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থান করছেন অর্থমন্ত্রী মুহিত।

বৃহস্পতিবার আইএমএফ সদরদপ্তরে ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মিটসুহিরো ফুরুসাওয়ার সঙ্গে এক বৈঠকের পর মুহিত সাংবাদিকদের সামনে জ্বালানি তেলের দাম নিয়ে কথা বলেন।

গতবছরের শেষ দিকেও অর্থমন্ত্রী দেশের বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমিয়ে আনার উদ্যোগের কথা বলেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

২০১২ সালে যে তেলের দাম ছিল প্রতি ব্যারেল ১০৫ ডলার, দফায় দফায় কমে এক পর্যায়ে ২০১৬ সালে তা ৩৩ ডলারে নেমে আসে।

এই প্রেক্ষাপটে বিভিন্ন মহলের দাবির মধ্যে ২০১৬ সালের ২৪ এপ্রিল ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ৪ শতাংশ এবং অকটেন ও পেট্রোলের দাম ১০ শতাংশের মতো কমানো হয়। তার কয়েকদিন আগে ফার্নেস অয়েলের দাম প্রতি লিটার ৬০ টাকা থেকে ৪২ টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

তেলের দাম যে পরিমাণ কমেছে, তাতে যানবাহনের ভাড়ায় তেমন কোনো পরিবর্তন না আসায় আরও কমানোর দাবি ছিল ভোক্তাদের। গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর মুহিত তাদের আশার কথা শুনিয়ে বলেন, তেলের দাম আরেক দফা কমানোর নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং তা জানুয়ারিতেই কার্যকর হতে পারে।

কিন্তু বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু ৯ ফেব্রুয়ারি সাংবাদিকদের জানান, বিশ্ব বাজারে তেলের দাম আবার খানিকটা বেড়ে যাওয়ায় আপাতত জ্বালানি তেলের দাম কমছে না।