‘তোমরা সবাই আইছো, আমার তিতাস তো আসলো না’


87 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘তোমরা সবাই আইছো, আমার তিতাস তো আসলো না’
আগস্ট ২, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

তদন্ত দলের সামনে মায়ের আহাজারি

অনলাইন ডেস্ক ::

এক ‘ভিআইপি’র জন্য ফেরি তিন ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখায় সেখানে অ্যাম্বুলেন্সে থাকা গুরুতর আহত স্কুলছাত্র তিতাসের মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বজনের সঙ্গে কথা বলেছে তদন্ত কমিটি। স্থানীয় ইউএনও কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার ঘটনার বিষয়ে এ শুনানি হয়। তিতাসের মৃত্যুর ঘটনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় দুটি কমিটি গঠন করেছে।

এই অকাল মৃত্যুর জন্য দায়ীদের বিচারের দাবিতে বৃহস্পতিবার তিতাসের বিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তদন্ত কমিটির উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেওয়া স্মারকলিপি ইউএনওর হাতে তুলে দেয়। এ সময় তিতাসের মা সোনামনি ঘোষ আহাজারি করে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘তোমরা সবাই আইছ, আমার তিতাস তো আসলো না।’ অঝোরে কেঁদেছেন তিতাসের বোন তনিষা ঘোষসহ স্বজনরাও। এর আগে শিক্ষার্থীরা একই দাবিতে মানববন্ধন করেছে।

২৪ জুলাই নড়াইলের কালিয়া সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র তিতাস সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হলে প্রথমে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় নেওয়ার পথে পরদিন রাত ৮টার দিকে কাঁঠালবাড়ি ১ নম্বর ফেরিঘাটে পৌঁছালে স্বজনরা জানতে পারেন, নৌ মন্ত্রণালয়ের এক ‘ভিআইপি’র অপেক্ষায় ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। তারা অসুস্থ মানুষের কথা জানালেও সেখানকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ অন্য দায়িত্বপ্রাপ্তরা কর্ণপাত করেনি। অবশেষে রাত ১১টার দিকে ওই ভিআইপির গাড়ি আসার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়। এরই মধ্যে তিতাস বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার বণিকের নেতৃত্বে নৌ মন্ত্রণালয়ের গঠিত ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি কালিয়ার ইউএনওর কার্যালয়ে পৌঁছায়। সেখানে স্থানীয় লোকজন ভিড় জমাতে থাকে। এরপর সেখানে তিতাসের মা সোনামনি ঘোষ, বোন তনিষা ঘোষসহ ওই রাতে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে অ্যাম্বুলেন্সে থাকা স্বজনরা উপস্থিত হন। তদন্ত কমিটি তাদের কাছ থেকে ঘটনার বিষয়ে বক্তব্য শোনে। এরপর দুপুর ২টায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রেজাউল আহসানের নেতৃত্বে গঠিত ৩ সদস্যের কমিটি একইভাবে তিতাসের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেছে।

শুনানি শেষে মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান সঞ্জয় কুমার বণিক বলেন, তদন্ত কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। শুনানি শেষে যাচাই-বাছাই করে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান রেজাউল আহসানও একই মন্তব্য করেছেন।

এর আগে তিতাসের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে কমিটি পুনর্গঠন করে সরকার। এক যুগ্ম সচিবের নেতৃত্বে আগের দুই সদস্যের কমিটির দু’জনকেই বহাল রেখে নতুন করে এক অতিরিক্ত সচিবকে আহ্বায়কের দায়িত্ব দেওয়া হয়। গত বুধবার নৌ মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে অফিস আদেশ জারি করে।

মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার বণিকের নেতৃত্বে পুনর্গঠিত কমিটিকে সরেজমিনে তদন্ত করে সাত কার্য দিবসের মধ্যে প্রাথমিক প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন যুগ্ম সচিব শাহনওয়াজ দিলরুবা খান ও উপসচিব এসএম শাহ্‌ হাবিবুর রহমান হাকিম।