দলে আরও নতুন মুখ আসবে : কাদের


342 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দলে আরও নতুন মুখ আসবে : কাদের
অক্টোবর ২৫, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিনিধি :
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘দলে যারা দীর্ঘদিন রাজনীতি করেছেন এমন ব্যক্তিদের আওয়ামী লীগে জায়গা দেওয়া হয়েছে। তারা রাজনীতিতে অভিজ্ঞ। পোড়খাওয়া নেতা। তৃণমূল থেকেও অনেককে টেনে আনা হয়েছে। ইতোমধ্যে দলে অনেক পরিবর্তন এসেছে। আরও অনেক নতুন মুখ আসবে।’

মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে নতুন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সম্পাদকমণ্ডলীর নাম ঘোষণাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেতাকর্মীদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘যারা জনগণের সঙ্গে আচরণ খারাপ করবে, যাদের অপকর্মের কারণে সরকার ও দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে আগামী নির্বাচনে তাদের মনোনয়ন নিয়ে প্রশ্ন থাকবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কমিটি নিয়ে চমকের কিছু নেই। সভাপতিমণ্ডলীতে যারা নতুন এসেছেন, তাদের দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের অভিজ্ঞতা রয়েছে। ঢাকার পাদ-প্রদীপের আলোয় তারা নেই। কিন্তু নিজ এলাকার তৃণমূলে তারা অত্যন্ত অভিজ্ঞ, পোড়খাওয়া। নেত্রী (শেখ হাসিনা) তৃণমূল থেকে অনেককে টেনে এনেছেন। যেমন চট্টগ্রামের এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নফেলকে আনা হয়েছে। ঢাকায় তিনি পরিচিত না হলেও চট্টগ্রামে তার পরিচিতি রয়েছে।’

ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের এবারের কমিটিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে কি না, এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমি শুধু এটুকুই বলতে পারি, কমিটিতে আরও নতুন মুখ আসবে। নতুন রক্ত সঞ্চালনও এখানে থাকবে।’

এবারের কমিটিতে বামদের প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে কি না, এমন প্রশ্নের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এখানে বাম-ডানের বিষয় নয়। মতিয়া চৌধুরী ৩৬ বছর আগে ১৯৮০ সালে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন। এখনো তাকে আমরা বাম বলব? এত দিন পরে তাদের বাম-ডানে চিহ্নিত করা সুবিচার হবে না।’

দলের নতুন কর্মপরিধি বাড়ানোর বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রতিদিনই দলের কাজের পরিধি বাড়ানো হবে। কেবল ঢাকা নয়, তৃণমূল পর্যন্ত এ গতিসঞ্চার করা হবে। আপাতত লক্ষ্য পরবর্তী নির্বাচন। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখেইে দলকে এগিয়ে নিতে কাজ পরিচালিত হবে।’

তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আওয়ামী লীগের কোনো প্রকাশ্যে শত্রু নেই। আওয়ামী লীগের প্রকাশ্য শত্রু খুবই দুর্বল। কিন্তু গোপন শত্রু উগ্রবাদ আছে। যা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে মোকাবেলা করবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।’