দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর চার দিনের ব্যস্ত সফরসূচি


335 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর চার দিনের ব্যস্ত সফরসূচি
এপ্রিল ৬, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
দিল্লিতে চার দিনের সফরে ব্যস্ত সময় কাটাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। এ ছাড়া ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি এবং ভারতীয় কংগ্রেসের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এর বাইরে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ভারতের সেনা সদস্যদের সম্মাননা জানাবেন। দিলি্লতে বিশিষ্ট নাগরিক এবং শীর্ষ ব্যবসায়ীদের দুটি পৃথক সভায় বক্তব্য দেবেন। এ ছাড়া আজমির শরিফে যাবেন। রাজঘাটে ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতির দেওয়া ব্যক্তিগত নৈশভোজে এবং প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া মধ্যাহ্নভোজেও অংশ নেবেন। দিলি্লর কূটনৈতিক সূত্রে দিলি্লতে প্রধানমন্ত্রীর চার দিনের বিস্তারিত কর্মসূচি সম্পর্কে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ৪০ সদস্যের সরকারি প্রতিনিধি দল এবং ২৩৯ সদস্যের বেসরকারি বাণিজ্যিক প্রতিনিধি দল যাচ্ছে। সরকারি প্রতিনিধি দলে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবরা, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তা এবং ছয়জন বিশিষ্ট গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব। গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বদের মধ্যে রয়েছেন সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, বিশিষ্ট সাংবাদিক আবেদ খান, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সংবাদ সম্পাদক আলতামাশ কবির, জনকণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায় এবং ইত্তেফাকের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আশিস সৈকত।

দিলি্লর কূটনৈতিক সূত্র জানায়, ৭ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা হবেন। দিলি্লতে পেঁৗছবেন স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায়। বিমানবন্দরে মিনিস্টার ইন ওয়েটিং হিসেবে থাকবেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তিনি স্বাগত জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তিনি যাবেন রাইসিনা হিলসের রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে। যেটি বিদেশি রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের জন্য রাষ্ট্রপতির অতিথি ভবন হিসেবে বিশেষভাবে মর্যাদাসম্পন্ন। এই অতিথি ভবনের ঐতিহ্যবাহী ‘দ্বারকা স্যুটে’ থাকবেন তিনি। তার সফরসঙ্গী পাঁচমন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীও রাষ্ট্রপতির অতিথি নিবাসে থাকবেন। প্রধানমন্ত্রীর অন্যান্য সফরসঙ্গী ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা থাকবেন দিলি্লর অভিজাত পাঁচতারা হোটেল ‘তাজ মান সিং’এ।

রাষ্ট্রপতির অতিথি ভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। বিকেলে দিলি্লতে বাংলাদেশের হাইকমিশন আয়োজিত বিশেষ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এখানে তিনি দিলি্লর বিশিষ্ট নাগরিক এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের উদ্দেশে ভাষণ দেবেন। রাতে দিলি্লতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোয়াজ্জেম আলীর বাসভবনে নৈশভোজে অংশ নেবেন তিনি।

৮ এপ্রিল দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচি শুরু হবে রাজঘাটে ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে। এরপর তিনি যাবেন রাষ্ট্রপতি ভবনে। এখানে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগত জানাবেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এখানেই ভারতের হায়দ্রাবাদ হাউসে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা। দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে তার সম্মানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন। এ দিন বিকেলে মানেক শ ভবনে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ভারতের সেনা সদস্যদের বিশেষ সম্মানা প্রদান করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠান শেষে অতিথি ভবনে ফিরে আসবেন তিনি।

৯ এপ্রিল সফরের তৃতীয় দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজমির শরিফে যাবেন। সেখান থেকে ফিরে আসবেন অতিথি ভবনে। বিকেলে সেখানে তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। রাতে শেখ হাসিনার সম্মানে ব্যক্তিগত নৈশভোজের আয়োজন রেখেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। প্রটোকল অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে ব্যাঙ্কোয়েট দিতে পারেন না, এ কারণে তিনি ব্যক্তিগত নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। দিলি্লর সূত্র জানায়, এ নৈশভোজ একটি ব্যতিক্রমী নজির। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশেষ সম্মান জানিয়েই এ নজির স্থাপন করছেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। অপর একটি সূত্র জানায়, এ দিন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও তার সৌজন্য সাক্ষাৎ হবে।

১০ এপ্রিল সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ ও ভারতের শীর্ষ শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীদের এক সেমিনারে যোগ দেবেন। সেমিনার শেষে দুপুরে তিনি দিল্লি থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন।