দুই ডেপুটি গভর্নরকে অব্যাহতি


263 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দুই ডেপুটি গভর্নরকে অব্যাহতি
মার্চ ১৫, ২০১৬ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
রিজার্ভের অর্থ খোয়া যাওয়া নিয়ে গভর্নর ড, আতিউর রহমানের পদত্যাগের পর বাংলাদেশ ব্যাংকের দুই ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানা ও আবুল কাশেমকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে ড, আতিউর রহমান পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার পর বিকেলে শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত একথা জানান।

প্রাকবাজেট আলোচনায় সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের দুই ডেপুটি গভর্নর আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এই দুই পদে শিগগিরই নতুন নিয়োগ দেওয়া হবে।’

এই দুজন বাদ পড়ায় এখন ডেপুটি গভর্নর পদে রয়েছেন আবু হেনা মো. রাজী হাসান ও এস কে সুর চৌধুরী। সাবেক অর্থ সচিব ফজলে কবিরকে গভর্নরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

বাংলাদেশের প্রথম নারী ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানার চাকরির মেয়াদ সম্প্রতি শেষ হওয়ার পর তা চলতি বছরের ১৪ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। আবুল কাশেমের চাকরির বাড়তি মেয়াদও আগামী আগস্টে শেষ হওয়ার কথা ছিল।

ফিলিপাইনের ডেইলি ইনকোয়েরারে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সে দেশে ১০ কোটি ডলার পাচার হয়েছে। এ অর্থ বাংলাদেশের কোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের হতে পারে বলে উল্লেখ করা হয়। এরপর ৭ মার্চ সমকালে এ বিষয়ে প্রকাশিত সংবাদে জানা যায়, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি করে হ্যাকাররা ফিলিপাইনে স্থানান্তর করে। এরপর থেকে এ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

তদন্তে জানা যায়, চুরির এ ঘটনা ঘটে গত ৪ ফেব্রুয়ারি। বাংলাদেশ ব্যাংকের সুইফট বার্তা সিস্টেম হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে সঞ্চিত বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই অর্থ ফিলিপাইনের একটি ব্যাংকে সরিয়ে ফেলা হয়। শ্রীলংকার একটি ব্যাংকে আরও ২ কোটি ডলার সরানো হলেও পরে তা বাংলাদেশে ফেরত আসে।

হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে চুরির খবরটি গোপন রাখায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্তাব্যক্তিদের ওপর ক্ষুব্ধ অর্থমন্ত্রী সোমবার বলেছিলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকে পরিবর্তন আসছে।

এদিকে, হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে রিজার্ভের অর্থ লোপাটের ঘটনায় মতিঝিল থানায় বুধবারই একটি মামলা করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন যুগ্ম পরিচালক।

এছাড়া পুরো ঘটনা তদন্তে একটি তদন্ত কমিটি গঠনের কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। তিন সদস্যের এই কমিটির প্রধান করা হয়েছে সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনকে।