দুর্দান্ত সাকিব-মুস্তাফিজ


346 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দুর্দান্ত সাকিব-মুস্তাফিজ
মার্চ ১৯, ২০১৭ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
দিন শেষে শ্রীলংকার সেঞ্চুরিয়ান দিমুথ করুনারত্নেই বললেন, ‘মুস্তাফিজকে আমাদের আরও সতর্ক হয়ে খেলা দরকার ছিল।’ করুনারত্নের মুখে সাকিব আল হাসানের নাম ছিল না। তবে লংকার ব্যাটিং লাইনআপে মুস্তাফিজের বড়সড় ধাক্কার পর ভাংচুরের বাকি কাজটা করেছেন সাকিবই। দু’জনের সম্মিলিত আক্রমণে লংকার সকালের হাসি উধাও হয়ে যায় দুপুরে। বিপরীতে বাংলাদেশ পেয়ে যায় উৎসব অপেক্ষার অনুভূতি।

দিনের শুরুটাও বাংলাদেশের অনুকূলে ছিল। মেহেদী হাসান মিরাজের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন লংকান ওপেনার উপল থারাঙ্গা। কিন্তু প্রথম সেশনের বাকি সময়টা সেই ধারা আর থাকেনি। স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের লিড শোধ করে ফেলেন করুনারত্নে ও কুশল মেন্ডিস। স্বাগতিকরা লাঞ্চ বিরতিতে যায় ১ উইকেটে ১৩৭ রান নিয়ে। ৮ রানে এগিয়ে যাওয়া লংকার সামনে তখন ৯ উইকেট নিয়ে বড় সংগ্রহ গড়ার সুযোগ। কিন্তু বিরতির পরই পাল্টে যায় দৃশ্যপট। একপাশ থেকে সাকিব আর অন্যপাশ থেকে মুস্তাফিজকে দিয়ে আক্রমণ শুরু করে বাংলাদেশ। সাফল্য আসে মুস্তাফিজের প্রথম ওভারেই। ওভারের শেষ বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ বানান কুশল মেন্ডিসকে। আম্পায়ার অবশ্য শুরুতে আউট দেননি। তবে রিভিউ চেয়ে বহু কাঙ্ক্ষিত ব্রেক থ্রু পেয়ে যায় বাংলাদেশ। অপর পাশ থেকে রান আটকে চাপ তৈরি করতে থাকেন সাকিবও। ইনিংসের ৫১তম ওভারে আসে পরের সাফল্যটি। এবারের শিকার প্রথম ইনিংসে ১৩৮ রান করা দিনেশ চান্দিমাল। ডানদিকে ঝাঁপিয়ে দারুণ এক ক্যাচ নেন মুশফিক। ১৬৫ রানে তৃতীয় উইকেট পতনের পর শিকারির মিছিলে যোগ দেন সাকিব। অ্যাসেলা গুনারত্নে সাকিবের বল ছেড়ে দিতে গিয়ে এলবিডবি্লউতে কাটা পড়েন। ঠিক পরের ওভারে বোলিংয়ে এসে ধনঞ্জয় ডি সিলভাকে ফেরান মুস্তাফিজ। অফস্টাম্পের বাইরের স্লোয়ার বলে ধনঞ্জয় ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। সব মিলিয়ে ইনিংসে নিজের তৃতীয় স্পেলে সাত ওভার বোলিং করে ২৪ রানে ৩ উইকেট নেন মুস্তাফিজ। তাকে সরিয়ে আনা হয় শুভাশীষকে। তবে মুস্তাফিজ বিশ্রামে গেলেও সাকিব বল করে যেতে থাকেন টানা। তারই ধারাবাহিকতায় সাকিবের দ্বিতীয় শিকার হন নিরোশান দিকওয়েলা। ১ উইকেটে ১৩৭ রান নিয়ে লাঞ্চে যাওয়া শ্রীলংকা ১৬ ওভারের মধ্যে পরিণত হয় ৬ উইকেটে ১৯০ রানে! সাকিব-মুস্তাফিজের স্পিন-পেসের যৌথ আক্রমণে ৯৭ বলের মধ্যে ম্যাচ মুঠোয় নিয়ে আসে বাংলাদেশ।

সাকিব অবশ্য দিনের শেষ সেশনে আরও একবার আঘাত হেনেছেন। নতুন বল নেওয়ার পর তার স্পিনে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ দেন করুনারত্নে। লংকার শেষ দুটি উইকেটের সঙ্গে এখন জয়ের অপেক্ষায়ও আছে বাংলাদেশ।

প্রথম টেস্ট জিতে এগিয়ে থাকা শ্রীলংকা চতুর্থ দিন শেষে এখন যে অবস্থায় দাঁড়িয়ে, তাতে সন্তুষ্টি অবশ্যই নেই; বরং আক্ষেপই আছে। করুনারত্নে যেমন দ্বিতীয় সেশনে দলের ব্যাটিং ভেঙে পড়াকে দায়ী করলেন, ‘আমাদের মূল তিন ব্যাটসম্যান একই সময়ে পরপর আউট হয়ে গেছে। আমরা বড় শট খেলতে গিয়ে ভুল করেছি। মুস্তাফিজ খুবই ভালো বোলিং করেছে। তাকে আমাদের আরও সতর্ক হয়ে খেলার দরকার ছিল। আরও একটা সেশন ব্যাটিং করতে পারলে ভালো হতো।’

স্কোর কার্ড

বাংলাদেশ-শ্রীলংকা

দ্বিতীয় টেস্ট

পি সারা ওভাল, কলম্বো

শ্রীলংকা প্রথম ইনিংস ৩৩৮

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস ৪৬৭

তৃতীয় দিন শেষে

শ্রীলংকা দ্বিতীয় ইনিংস ৫৪/০

শ্রীলংকা দ্বিতীয় ইনিংস রান বল ৪ ৬

করুনারত্নে ক সৌম্য ব সাকিব ১২৬ ২৪৪ ১০ ১

থারাঙ্গা ব মিরাজ ২৬ ৪০ ৩ ০

কুশল ক মুশফিক ব মুস্তাফিজ ৩৬ ৯১ ২ ০

চান্দিমাল ক মুশফিক ব মুস্তাফিজ ৫ ১৩ ১ ০

গুনারত্নে এলবি সাকিব ৭ ১৫ ১ ০

ধনঞ্জয় ক মুশফিক ব মুস্তাফিজ ০ ৭ ০ ০

দিকওয়েলা ক মুশফিক ব সাকিব ৫ ১৫ ০ ০

দিলরুয়ান অপরাজিত ২৬ ১২৬ ২ ০

হেরাথ এলবি তাইজুল ৯ ৩২ ০ ০

লাকমল অপরাজিত ১৬ ১৭ ২ ০

অতিরিক্ত (বা ৪, লে বা ৭, ও ১) ১২

মোট (৮ উইকেট; ১০০) ২৬৮

উইকেট পতন :১/৫৭ (থারাঙ্গা, ১৪.১), ২/১৪৩ (কুশল, ৪৪.৬), ৩/১৬৫ (চান্দিমাল, ৫০.২), ৪/১৭৬ (গুনারত্নে, ৫৩.৪), ৫/১৭৭ (ধনঞ্জয়, ৫৪.৬), ৬/১৯০ (দিকওয়েলা, ৫৯.১), ৭/২১৭ (করুনারত্নে, ৮১.৩), ৮/২৩৮ (হেরাথ, ৯১.২)।

বোলিং :শুভাশীষ ১৬-৪-৩৬-০, মিরাজ ২২-০-৬৭-১, মুস্তাফিজ ১৯-৩-৫২-৩, সাকিব ৩০-৮-৬১-৩, মোসাদ্দেক ৩-০-১০-০, তাইজুল ১০-১-৩১-১।

* শ্রীলংকা ১৩৯ রানে এগিয়ে।