দেবহাটার ইসলামিয়া ব্রিকসে নারী কর্মচারীকে মারপিট করার অভিযোগ


326 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটার ইসলামিয়া ব্রিকসে নারী কর্মচারীকে মারপিট করার অভিযোগ
এপ্রিল ২১, ২০২০ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর. কে বাপ্পা ::

সারা দেশে বর্তমানে মহামারি করোনা ভাইরাসের সময় একাধিক কর্মচারী নিয়ে চলমান আছে দেবহাটার সখিপুরে মেসার্স ইসলামিয়া ব্রিকসের কাজ। কর্মচারীরা মানছে না কোন সামাজিক দুরত্ব। এখান থেকে ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন। কর্মচারীরা প্রায়ই ব্যস্ত হট্টগোলে।

এরই মধ্যে রবিবার সন্ধ্যার পর তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক নারী কর্মচারীকে পিটিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় আহত দক্ষিণ সখিপুর গ্রামের শেখ আমির হামজার কন্যা আজমিরা খাতুন (২৭) গুরুতর জখম হয়েছেন।

আহত আজমিরা খাতুন জানান, তিনি দীর্ঘদিন ধরে সখিপুর ভাটায় রাধুনী হিসেবে কাজ করে আসছেন। রবিবার রাতে ভাটায় কাজ করা কর্মচারীদের জন্য ভাত রান্না করার পর ভাতের মাড় নেওয়ার জন্য ভাটার শ্রমিক দক্ষিণ সখিপুর গ্রামের শেখ সিদ্দিক হোসেনের পুত্র শেখ তৌহিদ হোসেন লালু তুচ্ছ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে অশ্লীল ভাষায় গালি গালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে তিনি তাকে গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে সে আমার উপর আরো ক্ষেপে ওঠে এবং ভাটার মধ্যে ঘরের হাক দিয়ে তার মাথায় ও হাতে বাড়ি মেরে গুরুতর জখম করে।

এসময় তিনি রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে গেলে ভাটার অন্যান্য কর্মচারীরা তাকে উদ্ধার করে। পরে ভাটা কর্তৃপক্ষ নিজেদেরকে বাঁচাতে স্থানীয় এক গ্রাম ডাক্তার নিয়ে এসে সেলাই ও ব্যান্ডেজ করে প্রাথমিক চিকিৎসা করায়।

আজমিরা খাতুন আরো বলেন, ভাটা কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও উক্ত শেখ তৌহিদ হোসেন লালু প্রভাবশালী হওয়ায় তিনি হামলার শিকার হয়েছেন। এমনকি তাকে অসুস্থ অবস্থায় সোমবার সকালে রান্নার কাজ করতে বাধ্য করলে তার ভাই রমজান আলীকে মারপিটের হুমকি দেয়।

এঘটনায় শেখ তৌহিদ হোসেন লালুর কাছে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সে সময় তিনি রাগের বশে তাকে আজমিরাকে আঘাত করেন। এ বিষয়ে ভাটার ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি নিউজটি না করার জন্য অনুরোধ জানান।