দেবহাটার কুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের বর্ধিত সভা ষড়যন্ত্র মূলক ভাবে পন্ড করার প্রতিবাদে সমাবেশ


401 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটার কুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের বর্ধিত সভা ষড়যন্ত্র মূলক ভাবে পন্ড করার প্রতিবাদে সমাবেশ
ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৬ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে পূর্ব নির্ধারিত বর্ধিত সভা ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে পন্ড করার প্রতিবাদে  এক সমাবেশ সোমবার সকালে স্থানীয় আশু মার্কেটে অনুষ্ঠিত হয়। কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

কুলিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, দেবহাটা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি এ্যাডঃ গোলাম মোস্তফা, কুলিয়া ইউনিয়নের আ’লীগ দলীয় চেয়ারম্যান মনোয়ন প্রত্যাশী সফট রক গ্রুপের চেয়ারম্যান ইমাদুল ইসলাম, দেবহাটা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক রেজাউল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক লীগের ইউনিয়ন সভাপতি ওয়াসিম কুমার, যুবলীগ সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোশরাফ হোসেন, ইউপি সদস্য কালি চরণ কালু, ৯ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি ইউপি সদস্য বিকাশ বাবু প্রমূখ।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সোমবার সকাল ১০ টায় কুলিয়াস্থ আশু মার্কেটে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভার আহবান করা হয়। কিন্তু একটি কুচক্রি মহলের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে কুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস ও সাধারন সম্পাদক বিধান চন্দ্র বর্মন পরিকল্পিত ভাবে এই বর্ধিত সভা পন্ড করার ষড়যন্ত্র করে। প্রতিপক্ষ একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর দ্বার প্রভাবিত হয়ে পূর্ব নির্ধারিত এই বর্ধিত সভা পন্ড করতে তারা রোববার রাতে মোবাইলে ফোনে কাউন্সিলরদের সভায় হাজির না হওয়ার জন্য বলে।

বক্তারা বলেন, কুলিয়্ াইউনিয়নের ৬৫ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ৬৩ জন এই প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত আছেন। ইউনিয়নের সাধারনণ মানুষ এলাকার বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক ইমাদুল ইসলামের সাথে আজ এক কাতারে সামিল হয়েছে। কোন চোরাচালানী, অস্ত্র ব্যবসায়ী ও নারী নির্যতনকারিকে আর এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসাবে মানুষ দেখতে চায় না। কোন অপরাধী যাতে নৌকা প্রতিক নিয়ে ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে না পারে সে জন্য তারা উপজেলা ও জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দের প্রতি অনুরোধ জানান। বক্তারা ইউনিয়নের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উপস্তিতিতে নির্দিষ্ট বর্ধিত সভার মাধম্যে তৃণমূল নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে কুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার জোর দাবি জানান। ###