দেবহাটার ধোপাডাঙ্গায় সাবেক ইউপি সদস্যের সাংবাদিক সম্মেলন


284 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটার ধোপাডাঙ্গায় সাবেক ইউপি সদস্যের সাংবাদিক সম্মেলন
নভেম্বর ১৬, ২০১৫ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা :
দেবহাটা উপজেলার ধোপাডাঙ্গা গ্রামের মরহুম ছবিয়ার রহমান সরদারের ছেলে আনারুল ইসলাম সোমবার সকাল ১১ টায় তার বাড়িতে তার বিরুদ্ধে পত্রিকায় প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে এক সাংবাদিক সম্মেলন করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার কন্যা তাহেরা খাতুন (২৮) দীর্ঘদিন যাবৎ ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মূমূর্ষ অবস্থায় যখন মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে কালীগঞ্জ উপজেলার বিঞ্চুপুর ইউনিয়নের নৌবাসপুর গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে রুহুল কুদ্দুস নামের এক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসা নিয়ে আল্লাহর মেহেরবানীতে তার কন্যা সুস্থ হয়ে উঠে। তিনি পরে এলাকার মানুষদেরকে চিকিৎসা দেয়ার জন্য ঐ চিকিৎসককে তার বাড়িতে এনে চিকিৎসা করানোর ব্যবস্থা করে দেন।

তিনি নামমাত্র শুধু ৭০ (সত্তর) টাকা ফি নিয়ে বিভিন্ন জটিলসহ সকল রোগের চিকিৎসা করেন। উনার কাছে চিকিৎসা নিয়ে দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও দেবহাটা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব আব্দুল গনি সহ শতশত মানুষ উপকার পেয়েছেন ও সুস্থ হয়েছেন বলে আনারুল ইসলাম উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, গত কিছুদিন আগে কতিপয় সাংবাদিক তার অনুপস্থিতিতে বাড়িতে এসে ডাঃ রুহুল কুদ্দুসের কাছে বিভিন্ন অবৈধ সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করে। তিনি বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গনি, দেবহাটা সদর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সহ প্রশাসনকে জানান।

পরে ইং ১৪-১১-২০১৫ ইং তারিখে সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত স্থানীয় একটি পত্রিকায় তাকে, তার স্ত্রী ও কন্যাকে জড়িয়ে একটি উদ্দ্যেশ্য প্রনোদিত, বানোয়াট, মিথ্যা, ভুল তথ্য সম্বলিত সংবাদ পরিবেশন করে। যেটা উক্ত চিকিৎসক ও তাদেরকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করার অসৎ অভিপ্রায়। আনারুল ইসলাম লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, সংবাদে জনপ্রতি ২৫’শ থেকে ৩ হাজার টাকা এবং ঔষধের নামে নদীর পানি ও সরিষার তেল বিক্রির জমজমাট ব্যবসার কথা উল্লেখ করা হয়ে যেটা সম্পূর্ন্নভাবে মিথ্যা। কারন জনপ্রতি মাত্র ৭০ টাকা করে ফি নেয়া হয় আর নদীর পানি আর সরিষার তেল বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা যায়না।

তিনি উক্ত মিথ্যা সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা  জানান এবং সাথে সাথে প্রশাসনের কাছে এ ধরনের কুরুচিপূর্ন কাজের সুষ্টু বিচার দাবী করেন। এসময় চিকিৎসা নিতে আসা পাচপোতা গ্রামের জয়ন্তী রানী, ধোপাডাঙ্গা গ্রামের কবির হোসেন ও মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী, কোড়া গ্রামের আব্দুস সামাদ সহ শতশত পুরুষ মহিলা উপস্থিত ছিলেন।