দেবহাটার লাবণ্যবর্তী খালের সাাঁকোর বেহালদশা । জনদুর্ভোগ


439 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটার লাবণ্যবর্তী খালের সাাঁকোর বেহালদশা । জনদুর্ভোগ
জুলাই ২৭, ২০১৫ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
একযুগেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও উন্নয়ন অভাবে বেহালদশায় (দেবহাটা ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলা) দুই উপজেলার সীমান্তে আবস্থিত লাবণ্যবতী খালের উপর নির্মিত যোগাযোগের একমাত্র সাঁকোর। দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ভোমরা ইউনিয়ন সীমানা দিয়ে বয়ে চলেছে এই রুপময় লাবণ্যবর্তী। সাঁকোটি দুই উপজেলার হাজারো মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হলেও উন্নয়নের মাথাব্যাথা নেই কারোও।
জানাগেছে ,বিগত ২০০০ সালের পূর্বে নির্মান করা হয়েছে সাঁকোটি। কালের বিবর্তনে লোহার তৈরী সাঁকোটি বাঁশ ও কাঠের সাঁকোয় পরিণত হয়েছে। দুপাড়ের মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় কর্মক্ষেত্রে ছুটে চলেছে আপন গতিতে। ইত্যেপুর্বের অযোগ্য অবস্থায় চলাচল করতে গিয়ে শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ পানিতে পড়ে যাওয়ার ঘটনা রয়েছে। তাছাড়া কুলিয়াসহ আশেপাশের এলাকার একমাত্র চলাচলের মাধ্যম হলেও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করে আশানুরুপ ফল পাওয়া যায়নি। স্থানীয় নির্বচনের পূর্বে সাঁকোর হালচিত্র পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিলেও পরিবর্তনের দেখামেলেনি। জনবহুল সাঁকোটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়লে কুলিয়া,শ্রীরামপুর চৌবাড়িয়া, বৈচনা, কুলাটি, হারদ্দা,কোমরপুরসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষের ভোগান্তির শেষ থাকবে না। এছাড়া সাঁকোটি চলাচলের একবারে অযেগ্য হয়ে পড়লে ব্যাবহত হবে স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা কার্যক্রম। তাছাড়া হঠাৎ অসুস্থ ব্যক্তি এবং  গর্ভবর্তী মায়েদের ৪-৫ কিলোমিটার অতিরিক্ত রাস্তা পাড়িদিয়ে আসতে হবে। যা এদের জন্য মারাত্বক ঝুঁকি পূর্ণ।
জানাগেছে সাঁকোর পাশে অবস্থিত ইউনাইটেড মডেল কলেজের অধ্যক্ষ’র তত্বাবধানে ইতিপূর্বে একাধিক বার সংস্কার কাজ করা হয়েছে। তার প্রচেষ্টায় বিভিন্ন সময়ে জেলা,দুই উপজেলা প্রশাসন পরিদর্শন করেছেন। কিন্তু কোনকিছুতে পরিবর্তন ঘটেনি সাঁকোটির। এবিষয়ে ইউনাইটেড মডেল কলেজের অধ্যক্ষ নাজমুস সাহাদাতের সাথে কথা বললে তিনি ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান,বহুবার প্রচেষ্টার করেও পাটাতনসহ লোহার সাঁকোটি রক্ষাকরা যায়নি। যেটি বর্তমানে বাঁশ ও কাঠের সাঁকোয় রুপান্তরিত হয়েছে। বিশেষ করে বর্ষার সময়ে এটি মারাত্বক আকার ধারন করে।  বর্তমান সরকার উন্নয়নের বদ্ধপরিকর হলেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা যেন দিনদিন অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছে। সাধারণ মানুষ মনে করেন জনপ্রতিনিধিদের অনিহায় অবহেলায় একযুগের পার হয়েছে। সাঁকোটি উন্নয়নের যথেষ্ট সময় পেরিয়ে গেছে। সাঁকোর ‌দু’পাড়ের মানুষের দাবী যাতে করে সংশি¬ষ্ট সরকারী উচ্চ মহল সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে সাঁকোটি পরিবর্তন করে যতদ্রুত সম্ভব একটি ব্রিজ নির্মান করা হোক।