দেবহাটায় আ’লীগের দু-গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসুচীকে ঘিরে ১৪৪ ধারা জারি


222 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটায় আ’লীগের দু-গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসুচীকে ঘিরে ১৪৪ ধারা জারি
জুন ৩, ২০১৯ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা ::

দেবহাটার সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতির সূত্র ধরে ঈদের ঠিক আগ মুহুর্তে ক্ষমতাসীনদলের দু’গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কমূর্সচীকে কেন্দ্র করে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৪৪ ধারা ঘোষনা করা হয়েছে। ১৪৪ ধারা জারির পরে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উপজেলাব্যাপী পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। জাসা গেছে, সম্প্রতি উপজেলার তাতীলীগ কর্তৃক সখিপুর ইউনিয়ন তাতীলীগের কমিটিতে সদস্য সচিব হিসেবে ওয়ালিউল্লাহকে মনোনীত করে। উপজেলা আওয়ামীলীগ রবিবার সকালে ওয়ালিউল্লাহ সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হোসেন রতন হত্যা চেষ্টা মামলার এজাহারভুক্ত আসামী ও শিবির ক্যাডার হিসেবে আখ্যায়িত করে পারুলিয়া শহীদ আবু রায়হান চত্বরে এক মানববন্ধন ও সমাবেশ করে। এর প্রতিবাদের সোমবার সকালে উপজেলা তাতীলীগ একই স্থানে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচী ঘোষনা করে। এই কর্মসূচী দেয়ার পরপরই উপজেলা যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ একই স্থানে একই সময় পাল্টা কর্মসূচীর ঘোষনা দিলে উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। যার কারনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সোমবার সকাল ৮টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্ট কালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেন দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ইকবাল হোসেন। দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন উপজেলাব্যাপী ১৪৪ ধারা জারির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সামনে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। এসময় দেবহাটার কোথাও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি যাতে করে কেউ বিঘিœত করতে না পারে সেজন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য উপজেলাব্যাপী ১৪৪ ধারা জারি সহ পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। কোন ব্যাক্তি কিংবা সংগঠন যদি প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির চেষ্টা করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান নির্বাহী অফিসার ইকবাল হোসেন। উপজেলা তাতীলীগের আহবায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ জানান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুজিবর রহমান ও সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি ২০১৩ সালে দেবহাটা ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিল। এছাড়া বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তারা প্রকাশ্যে নৌকার বিরোধীতা করেছিল। তাহলে কিভাবে তারা আওয়ামীলীগ হয়। সবুজ বলেন, তিনি ১১ বছর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পরে ৫ বছর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনের পরে জনগন তাকে ভোট দিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করা এবং দূর্নীতিমুক্ত করার জন্য কাজ করছেন। আগে তারা বিশেষ কোটা এলজিএসপি ও বিভিন্নভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা লোপাট করতো। নির্বাচিত হয়ে এগুলো বন্ধ করার কারনে ক্ষোভের কারনে তার বিরুদ্ধে এই মানববন্ধনসহ অপবাদ ছড়াচ্ছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি বলেন, সখিপুর ইউনিয়ন তাতীলীগের সদস্য সচিব হিসেবে একজন শিবির ক্যাডার ও হত্যা চেষ্টা মামলার আসামী ওয়ালিউল্লাহকে মনোনীত করার প্রতিবাদে সোমবার সকালে উপজেলা যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচী ঘোষনা করা হয়।

#