দেবহাটায় মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ


135 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটায় মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ
জুলাই ২, ২০২২ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

॥ আর.কে.বাপ্পা ॥

দেবহাটার নাজিরের ঘের স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঐ মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনীর শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে শনিবার ২ জুলাই, ২২ ইং তারিখ সকালে ভুক্তভোগী ঐ শিক্ষার্থীর পিতা নাজিরের ঘের এলাকার আব্দুস সামাদ মোড়লের ছেলে কামরুল ইসলাম মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি বরাবর উক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লিখিত আবেদন করেছেন। উক্ত অভিযোগ পত্রে তিনি উল্লেখ করেছেন, তার কন্যা উক্ত মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী। বিগত ৩০-০৬-২২ ইং তারিখ বৃহষ্পতিবার সকাল ৭ টার দিকে অত্র মাদ্রাসার শিক্ষক নাজিরের ঘের এলাকার মৃত ছফেদ আলী সানার ছেলে আব্দুল বারী সানা তার মেয়েকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বাড়ির পাশর্^বর্তী মাদ্রাসার অফিস কক্ষে একা পেয়ে শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয় এবং তার মেয়েকে জাপটে ধরে যৌন হয়রানি করে এবং একথা যেন বাড়ি যেয়ে না প্রকাশ করে সেজন্য তাকে প্রাননাশের হুমকি প্রদান করে। অভিযোগে তিনি আরো উল্লেখ করেছেন, বেশ কিছুদিন যাবৎ আব্দুল বারী সানা তার মেয়েকে এমন অমানুষিক নির্যাতন করে আসছে। তিনি উক্ত শিক্ষকের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানিয়েছেন। সূত্র মতে জানা গেছে, উক্ত ননএমপিও মাদ্রাসাটিতে ১জন প্যারা শিক্ষকসহ মোট ৫জন শিক্ষক রয়েছেন। ১ম থেকে ৫ম শ্রেনী পর্যন্ত মোট ৬২ জন শিক্ষার্থী আছে। মাদ্রাসাটির প্রধান শিক্ষক মোঃ সামিউল্লাহ জানান, তিনি আব্দুল বারী সানার বিরুদ্ধে অভিযোগটি পেয়েছেন। আগামীকাল (৩জুন, ২২ ইং) সকাল ১০ টায় ম্যানেজিং কমিটির মিটিং ডাকা হয়েছে। প্রধান শিক্ষক আরো জানান, বারী সানার বিরুদ্ধে এর আগেও ২ বার এধরনের অনৈতকি কর্মকান্ডের অভিযোগ আছে। তখন স্থানীয়ভাবে বারী সানা মুচলেকা দিয়ে মাফ চেয়ে রক্ষা পায়। মিটিংয়ে এবিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে তিনি জানান। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মুছা সানা জানান, এধরনের কাজ একটি প্রতিষ্ঠান ও এলাকার জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক। ম্যানেজিং কমিটিতে আলোচনা করে এবিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুল বারী সানা জানান, তিনি চিকিৎসার কাজে গত ২ দিন আগে ঢাকায় এসেছেন। তিনি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সাজানো বলে জানান, তার বিরুদ্ধে মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ কয়েকজন ষড়যন্ত্র করছে যাতে তিনি মাদ্রাসায় চাকরি করতে না পারেন। তিনি বলেন, গত কয়েকদিন আগে ঐ শিক্ষার্থী একটি বানান না পারার কারনে তার হাত ধরে তিনি মারেন। যার কারনে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বলে বারী সানা জানান।

#