দেবহাটায় রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে একজন গ্রেফতার


195 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
দেবহাটায় রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে একজন গ্রেফতার
মে ১৮, ২০১৯ দেবহাটা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা, দেবহাটা ॥
দেবহাটায় রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলায় পুলিশ ১ আসামীকে আটক করেছে। মামলার বাদী হয়েছে দেবহাটা থানার এসআই হেকমত আলী। আটককৃত ব্যক্তির নাম ফজর আলী (৪২)। সে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার কাশেমপুর গ্রামের দবির উদ্দীন খাঁনের ছেলে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ইং ০৫-০৬-১৮ ইং তারিখে সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে সাড়ে ১২ টার মধ্যে দেবহাটা থানার কম্পাউন্ডের মধ্যে মসজিদের ভিতরে জানালার পাশে একটি হলুদ খামে লিফলেট পাওয়া যায়। উক্ত লিফলেটটিতে সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উসকানীমূলক ও বিভ্রান্তিকর নানারকম কথা লেখা থাকে। উক্ত লিফলেটটি সরকার বিরোধী হওয়ায় ঐসময় তাৎক্ষনিকভাবে দেবহাটা থানার বেতার বার্তা নং- ৫৮, তাং- ০৫-০৬-১৮ মূলে পুলিশ সুপার, জেলা বিশেষ শাখা, সাতক্ষীরা বরাবর প্রেরন করা হয়। এছাড়া এ বিষয়ে দেবহাটা থানার জি.ডি নং- ১৭০, তাং- ০৫-০৬-১৮ দায়ের করা হয় এবং তৎকালীন দেবহাটা থানার এসআই ইয়ামিন আলী ঘটনার বিষয়ে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার বরাবর একটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। উক্ত প্রতিবেদনে এসআই ইয়ামিন আলী উল্লেখ করেন, ফজর আলী (৪১), পিতা- দবির উদ্দীন খাঁন, মাতা- মোছাঃ জহুরা খাতুন, সাং- কাশেমপুর, থানা- কালীগঞ্জ, সাতক্ষীরা সহ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি কর্তৃক লিখিত এরুপ শব্দাবলীর দ্বারা আইনবলে প্রতিষ্ঠিত সরকারের প্রতি ঘৃনা বা অবজ্ঞার সৃষ্টি করে পেনাল কোড ১৮৬০ এর ১২৪-ক ধারায় অপরাধ করিয়াছে। অতঃপর উক্ত বিষয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় বরাবর আবেদন করলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ আইন ২ শাখা স্মারক নং- ৪৪.০০.০০০.০৫৬.০৪.০৫৭.১৭.১১১ তারিখ- ০৭-০২-২০১৯ মূলে ফৌজদারী কার্যবিধি ১৮৯৮ এর ১৯৬ ধারার বিধান মোতাবেক উল্লেখিত আসামীর বিরুদ্ধে পেনাল কোড ১৮৬০ এর ১২৮-ক ধারায় মামলা রুজু করার অনুমতি প্রদান করলে দেবহাটা থানার এসআই হেকমত আলী মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং- ০৮, তাং- ১৬-০৫-১৯ ইং। ঐ মামলার আসামী ফজর আলীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। দেবহাটা থানার ওসি উজ্জ্বল কুমার মৈত্র রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় ফজর আলী গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের প্রক্রিয়া চলছে।